রবিবার, ১৭ অক্টোবর ২০২১
ছবিঃ প্রতীকী

সুস্থ ও অসুস্থতা আল্লাহর পক্ষ থেকে। সুস্থতা আল্লাহর তাআলার বড় নেয়ামত। অসুস্থতা তার পক্ষ থেকে পরীক্ষা। সুস্থতায় শোকর আদায় করতে হয়। আর অসুস্থতায় ধৈর্য ধারণ করে আল্লাহর নিয়ামতের অনুভক করতে হয়।

এই দুইটি মানবজীবনের অনুষঙ্গ। মহান আল্লাহ তার প্রিয় নবীদেরও কখনো কখনো রোগ-ব্যাধি দিয়েছেন। তাই কেউ অসুস্থ হলেই এই কথা ভাবা যাবে না যে, এটি তার পাপের ফসল। আমাদের প্রিয় নবী (সা.)-ও মাঝে মাঝে অসুস্থ হয়েছেন।

আয়েশা (রা.) থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, আমি রাসুলুল্লাহ (সা.)-এর চেয়ে বেশি রোগ যন্ত্রণা ভোগকারী অন্য কাকেও দেখিনি। (বুখারি, হাদিস : ৫৬৪৬)

রোগ-ব্যাধির মাধ্যমে আল্লাহ গুনাহ মাফ করেন

শুধু রোগ-ব্যাধি কেন মুমিনের যেকোনো দুঃখ-কষ্টের বিনিময়ে মহান আল্লাহ তাকে পাপমুক্ত করেন। আবু হুরায়রা (রা.) থেকে বর্ণিত, নবী (সা.) বলেছেন, মুসলিম ব্যক্তির ওপর যে কষ্ট ক্লেশ, রোগ-ব্যাধি, উদ্বেগ-উত্কণ্ঠা, দুশ্চিন্তা, কষ্ট ও পেরেশানি আসে, এমনকি যে কাঁটা তার দেহে ফোটে, এসবের মাধ্যমে আল্লাহ তার গুনাহসমূহ ক্ষমা করে দেন। (বুখারি, হাদিস : ৫৬৪১)

তবে শর্ত হলো, বিপদে আল্লাহর ওপর পূর্ণ ভরসা রাখতে হবে। পবিত্র কোরআনে মহান আল্লাহ বলেন, ‘আর আমি অবশ্যই তোমাদের পরীক্ষা করব কিছু ভয়, ক্ষুধা এবং জান-মাল ও ফল-ফলাদির স্বল্পতার মাধ্যমে। আর তুমি ধৈর্যশীলদের সুসংবাদ দাও।’ (সুরা বাকারা, আয়াত : ১৫৫)

বিপদ দিয়ে আল্লাহ পরীক্ষা করেন

আল্লাহ তাআলার এই পরীক্ষার পরিধি হয় মানুষের ঈমানের ওপর ভিত্তি করে। মহান আল্লাহ কখনো কখনো কঠিন বিপদ দিয়েও পরীক্ষা করেন। যার ঈমান যত বেশি তার পরীক্ষাও তত বড় হয়। রাসুল (সা.) বলেন, আল্লাহ যে ব্যক্তির কল্যাণ কামনা করেন তাকে তিনি দুঃখকষ্টে পতিত করেন। (বুখারি, হাদিস : ৫৬৪৫)

এই দুঃখ-কষ্টে যারা আল্লাহর ওপর পূর্ণ আস্থা রেখে ধৈর্যধারণ করে, আল্লাহ তাদের সওয়াবও বাড়িয়ে দেন। আবদুল্লাহ (রা.) থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, আমি রাসুলুল্লাহ (সা.)-এর কাছে গেলাম। তখন তিনি জ্বরে ভুগছিলেন। আমি বললাম, হে আল্লাহর রাসুল! আপনি তো ভীষণ জ্বরে আক্রান্ত। তিনি বললেন, হ্যাঁ। তোমাদের দু’ব্যক্তি যতটুকু জ্বরে আক্রান্ত হয়, আমি একাই ততটুকু জ্বরে আক্রান্ত হই। আমি বললাম, এটি এ জন্য যে, আপনার জন্য দ্বিগুণ সওয়াব। তিনি বললেন, হ্যাঁ তাই। কেননা যেকোনো মুসলিম দুঃখ-কষ্টে পতিত হয়, তা একটা কাঁটা কিংবা আরো ক্ষুদ্র কিছু হোক না কেন, এর মাধ্যমে আল্লাহ তার গুনাহগুলোকে মুছে দেন, যেমন গাছ থেকে তার পাতাগুলো ঝরে পড়ে। (বুখারি, হাদিস : ৫৬৪৮)

তাই প্রতিটি মুমিনের উচিত দুঃখ-কষ্ট ও রোগ-ব্যাধিতে হতাশ না হয়ে মহান আল্লাহর ওপর পূর্ণ আস্থা রাখা। তাঁর কাছে সাহায্য চাওয়া। আল্লাহ আমাদের সবাইকে সুস্থ রাখুন। আমিন।

সম্পর্কিত সংবাদ

কবিগুরুর চেতনা উন্নত বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠায় প্রেরণা যোগাবে- বিমান ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী

শাহজাদপুর

কবিগুরুর চেতনা উন্নত বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠায় প্রেরণা যোগাবে- বিমান ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী

কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের সৃষ্টি আমাদের সাহিত্যকে এত সমৃদ্ধ করেছে যে বিশ্ব দরবারে আমাদের ভিন্ন পরিচয় এনে দিয়েছে। প্রধা...

শাহজাদপুরে প্রতিবন্ধী ছালমা হত্যার বিচারের দাবীতে বিক্ষোভ ও মানববন্ধন

শাহজাদপুর

শাহজাদপুরে প্রতিবন্ধী ছালমা হত্যার বিচারের দাবীতে বিক্ষোভ ও মানববন্ধন

সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর উপজেলার পোতাজিয়া ব্যাপারীপাড়া মহল্লার জালাল উদ্দিন ব্যাপারীর বাক ও শ্রবণ প্রতিবন্ধী মেয়ে ছালমা (২৮...

শাহজাদপুর কাপড়ের হাটে নৌকায় ভোট চেয়ে এসএ হামিদ লাবলুর গণসংযোগ

অর্থ-বাণিজ্য

শাহজাদপুর কাপড়ের হাটে নৌকায় ভোট চেয়ে এসএ হামিদ লাবলুর গণসংযোগ

শামছুর রহমান শিশির : আজ মঙ্গলবার রাতে উত্তরাঞ্চলের সর্ববৃহত দেশিয় তাঁতবস্ত্র বিক্রয়ের শাহজাদপুর কাপড়ের হাটে তাঁতীদের মাঝ...

সাংবাদিক হান্নান এর শুভ জন্মদিন

শাহজাদপুর

সাংবাদিক হান্নান এর শুভ জন্মদিন

জনপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল শাহজাদপুর সংবাদ ডটকম এর নিজস্ব প্রতিবেদক সাংবাদিক এম এ হান্নান এর জন্মদিন আজ। এই দিনে সিরাজগ...

‘উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে নৌকার বিজয় নিশ্চিত করুন’ - শেখ আব্দুল হামিদ লাবলু

রাজনীতি

‘উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে নৌকার বিজয় নিশ্চিত করুন’ - শেখ আব্দুল হামিদ লাবলু

শাহজাদপুর সংবাদ ডটকম, নিজস্ব প্রতিনিধি, রোববার, ২৬ আগস্ট ২০১৮ খ্রিষ্টাব্দ : ‘প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা’র সরকার দ...

শাহজাদপুরে অস্বাভাবিক বন্যার পানি বৃদ্ধি

বন্যা

শাহজাদপুরে অস্বাভাবিক বন্যার পানি বৃদ্ধি

যমুনা নদীর পানি অস্বাভাবিক বৃদ্ধি পেয়ে শাহজাদপুর উপজেলার বিস্তীর্ণ এলাকা প্লাবিত হয়েছে ।...