শুক্রবার, ২৪ মে ২০২৪

প্রেমিক, ছেলে পক্ষের দেয়া বিয়ের প্রস্তাবে মেয়ে পক্ষ রাজি না হওয়ায় ও প্রেমিকের নিষেধ সত্বেও প্রেমিকা নানার বাড়িতে ঈদ পালন করতে যাওয়ায় ক্ষোভে অভিমানে ঈদের দিন সকালে মায়ের ঘরে ফাঁসি নিয়ে আত্মহত্যা করেছে ফজলে রাব্বি ওরফে চয়েন (২০) নামের কলেজ পড়ুয়া এক ছাত্র! অত্যন্ত বেদনাদায়ক এ ঘটনাটি ঘটেছে শাহজাদপুর উপজেলার হাবিবুল্লাহনগর ইউনিয়নের ঘোষ শ্রীফলতলা গ্রামে। নিহত ফজলে রাব্বি ওই গ্রামের আব্দুর রশিদের ছেলে ও শাহজাদপুর সরকারি কলেজের অনার্স ১ম বর্ষের ছাত্র বলে জানা গেছে। 

খবর পেয়ে থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। এদিকে, পবিত্র ঈদুল আজহা'র দিনে বেদনাদায়ক এ ঘটনার অবতারনায় ঘোষ শ্রীফলতলা গ্রামে ঈদের আনন্দের পরিবর্তে শোকের ছায়া নেমে এসেছে!

রোববার (১০ জুলাই) বিকেলে সরেজমিনে উপজেলার হাবিবুল্লাহনগর ইউনিয়নের দুর্গম পল্লী ঘোষ শ্রীফলতলা  পরিদর্শনকালে নিহত ফজলে রাব্বির আত্মীয় স্বজনসহ এলাকাবাসী জানায়, 'প্রায় দুই বছর ধরে ঘোষ শ্রীফলতলা গ্রামের  মৃত নুরু মিয়ার মেয়ে নূপুরের সাথে একই গ্রামের আব্দুর রশিদের ছেলে ফজলে রাব্বি ওরফে চয়েনের প্রেম ভালোবাসা চলে আসছিলো। বিষয়টি জানতে পেরে নিহতের পরিবার প্রায় দু'বছর আগেই নূপুরের বাড়িতে বিয়ের প্রস্তাব পাঠিয়েছিলো। কিন্তু ফজলে রাব্বি তখন বেকার থাকায় সে প্রস্তাব ফিরিয়ে দিয়েছিলো নূপুরের পরিবার। এরপর পাগলপ্রায় প্রেমিক ফজলে রাব্বি নূপুরকে বিয়ে করার জন্য নিজ পরিবারের ওপর চাপ সৃষ্টি করলে এক পর্যায়ে গত শুক্রবার আবারও নূপুরের বাড়িতে বিয়ের প্রস্তাব পাঠায় ফজলে রাব্বির পরিবার। কিন্তু, 'বিয়ের বয়স হয়নি নূপুরের' এ কথা বলে সে প্রস্তাবও নাকচ করে দেয় নূপুরের স্বজনেরা। এরপর শনিবার (৯ জুলাই) বিকেলে নূপুরের নানার বাড়ি পাশ্ববর্তী উল্লাপাড়া উপজেলার সলপের রাজাপুরে নূপুরকে পাঠিয়ে দেয়। নিহত ফজলে রাব্বি তার প্রেমিকা নূপুরকে ঈদে নানা বাড়িতে যেতে বারণও করেছিলো।'

এ বিষয়ে নিহতের মা নাজমা বেগম সাংবাদিকদের জানান, 'প্রেম ভালোবাসার বিষয় জানতে পেরে দু'বছর আগে একবার ও গত পরশু আমার দুই মেয়ে রুমি ও রত্না আবারও নূপুরের বাড়িতে গিয়ে আমার ছেলে ফজলে রাব্বির সাথে বিয়ের প্রস্তাব দেয়। এ প্রস্তাবে নূপুরের মায়ের সম্মতি থাকলেও চাচারা তাতে অসম্মতি জানিয়ে বিয়ের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করে। আমার ছেলে নানা বাড়িতে যেতে নূপুরকে নিষেধ করা সত্বেও নূপুর নানা বাড়ি ঈদ করতে গেলে রাগে ক্ষোভে এদিন সকাল সাড়ে সাতটার দিকে আমার ঘরে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে ফাঁসি নিয়ে আত্মহত্যা করে আমার ছেলে। আমাদের ও ছেলেরও ইচ্ছা ছিলো সে সেনাবাহিনীতে যোগদান করবে। ক'দিন পরেই সেনাবাহিনীতে চাকরির জন্য লাইনে দাঁড়াতে চেয়েছিলো আমার নারীকাটা ধন!'' এ কথা বলতে বলতে তিনি কান্নায় ভেঙে বাকরূদ্ধ হয়ে পড়েন!

এ বিষয়ে জানতে নূপুরদের বাড়ি যাওয়া হলে এ বিষয়ে কথা বলতে অপারগতা প্রকাশ করেন নূপুরের চাচা হাসান। 

অন্যদিকে, ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে উপজেলার হাবিবুল্লাহনগর ইউপি সদস্য শাহাদৎ হোসেন জানান, 'বিয়ের প্রস্তাব ফিরিয়ে দেয়ায় অভিমানে ফজলে রাব্বি আত্মহত্যা করেছে। শাহজাদপুর থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। '

পবিত্র ঈদুল আজহা'র আনন্দঘন দিনে ফজলে রাব্বি ওরফে চয়েনের আত্মহত্যার ঘটনায়  পুরো ঘোষ শ্রীফলতলা গ্রামে শোকের ছায়া নেমে এসেছে ও এলাকার আকাশ বাতাস ভারী হয়ে উঠেছে। 

সম্পর্কিত সংবাদ

আবার জোড়া গোল মেসির, মায়ামির পর এবার শীর্ষে তুললেন নিজেকে

খেলাধুলা

আবার জোড়া গোল মেসির, মায়ামির পর এবার শীর্ষে তুললেন নিজেকে

জিলেট স্টেডিয়ামে ম্যাচের শুরুটা অবশ্য ইন্টার মায়ামির পক্ষে ছিল না। প্রায় ৬৬ হাজার দর্শকের সামনে স্বাগতিক নিউ ইংল্যান্ড ম...

বিগ ডাটা কি এবং কেন! ( What is Big Data and Why? )

ফটোগ্যালারী

বিগ ডাটা কি এবং কেন! ( What is Big Data and Why? )

একটা সময় ছিলো যখন আমরা আমাদের সবকিছুই কাগজে লিখে রাখতাম। কখন খেতে যাবো, কবে মিটিং, কখন শপিং এ যাবো এসব টু ডু লিস্টগ...

৫ বছরেও চেয়ারম্যানের পা পড়েনি গালা ইউনিয়ন পরিষদেঃ ভোগান্তিতে ইউনিয়নবাসী

শাহজাদপুর

৫ বছরেও চেয়ারম্যানের পা পড়েনি গালা ইউনিয়ন পরিষদেঃ ভোগান্তিতে ইউনিয়নবাসী

নাগরিক পরিচয়পত্র, জন্ম-মৃত্যু সনদ, ত্রাণ পেতে পোহাতে হচ্ছে চরম ভোগান্তি। আসতে হয় পৌর সদরে এতে করে আর্থিক ক্ষতিগ্রস্থ হচ্...

সাংবাদিক শিমুল হত্যায় মিরুর জামিন মেলেনি

আইন-আদালত

সাংবাদিক শিমুল হত্যায় মিরুর জামিন মেলেনি

সমকালের শাহজাদপুর প্রতিনিধি আবদুল হাকিম শিমুল হত্যা মামলার অভিযোগপত্রভুক্ত প্রধান আসামি বরখাস্তকৃত পৌর মেয়র হালিমুল হক ম...

শাহজাদপুরে আন্তর্জাতিক দুর্ণীতি বিরোধী দিবস পালিত

শাহজাদপুরে আন্তর্জাতিক দুর্ণীতি বিরোধী দিবস পালিত

শাহজাদপুরে খদ্দেরসহ ৭ পতিতা আটক!