শাহজাদপুরে যুবদলের আহবায়ক কমিটি গঠিত

বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী যুবদল শাহজাদপুর উপজেলা ও পৌর শাখার আহবায়ক কমিটি গঠিত হয়েছে।

আজ বৃহস্পতিবার (১৭/০৯/২০২০) সিরাজগঞ্জ জেলা যুবদলের সভাপতি মীর্জা আব্দুল জব্বার বাবু ও সাধারণ সম্পাদক মুরাদুজ্জামান (মুরাদ) এর স্বাক্ষরিত শাহজাদপুর উপজেলা যুবদলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মোঃ মিজানুর রহমান মিন্টুকে আহবায়ক ও পৌর যুবদলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আব্দুল্লাহ আল-মাহমুদকে ১নং যুগ্ম-আহবায়ক, মোঃ আলাল হোসেনকে সদস্য সচিব করে ৩১ সদস্যবিশিষ্ট উপজেলা আহবায়ক কমিটি ও পৌর যুবদলের মোঃ মাহমুদুল হাসান সজল আহবায়ক ও বখতিয়ার ভূইয়াকে ১নং যুগ্ম-আহবায়ক করে ৩১ সদস্যবিশিষ্ট কমিটির অনুমোদন দিয়েছেন সিরাজগঞ্জ জেলা যুবদল।

এদিকে, এক বার্তায় শাহজাদপুর উপজেলা ও পৌর যুবদলের নবগঠিত আহবায়ক কমিটির সকলকে অভিনন্দন জানিয়ে শাহজাদপুর উপজেলা বিএনপি’র আহবায়ক, সিরাজগঞ্জ জেলা বিএনপি’র প্রধান উপদেষ্ঠা প্রফেসর ড.এম এ মুহিত ও উপজেলা বিএনপি’র সদস্য সচিব আলহাজ্ব এ্যাড.আবুল কাশেম, বলেন,‘নবগঠিত এ আহবায়ক কমিটির নেতৃবৃন্দ তাদের ওপর অর্পিত দায়িত্ব পালনের মাধ্যমে সাংগঠনিকভাবে উপজেলা ও পৌর যুবদলকে শক্তিশালী করবে বলে আমরা আশাবাদী।’

অন্যদিকে, নবগঠিত শাহজাদপুর উপজেলা যুবদলের আহবায়ক মোঃ মিজানুর রহমান মিন্টু ও পৌর যুবদলের আহবায়ক মোঃ মাহমুদুল হাসান সজল, জানান, ‘তৃণমূল পর্যায়ে যুবদলকে সুসংগঠিত করে শাহজাদপুর উপজেলা ও পৌর যুবদলকে সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যেতে চাই। এজন্য দলীয় নেতাকর্মীসহ সকলের দোয়া-ভালোবাসা ও সহযোগীতা বিশেষভাবে কামনা করছি।

শাহজাদপুরে এমপি স্বপনের রোগমুক্তি কামনায় দোয়া মাহফিল

সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুরে এমপি আলহাজ¦ হাসিবুর রহমান স্বপনের রোগমুক্তি কামনায় মিলাদ ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে ।  শনিবার দুপুরে বঙ্গবন্ধু পরিষদ উপজেলা শাখার আয়োজনে পরিষদ কার্যালয়ে এ মিলাদ ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয় । বঙ্গবন্ধু পরিষদের সভাপতি উপাধ্যক্ষ রফিকুল ইসলাম বাবলার সভাপতিত্বে ও সাধারন সম্পাদক প্রভাষক মোঃ জসিম উদ্দিনের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত মিলাদ ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান প্রফেসর আজাদ রহমান । বিশেষ অতিথি ছিলেন সাবেক পৌর মেয়র মোঃ নজরুল ইসলাম, সাবেক ডেপুটি কমান্ডার বিনয় পাল, সাবেক অধ্যক্ষ গোলাম সাকলাইন প্রমূখ। এ সময় বঙ্গবন্ধু পরিষদের সহ-সভাপতি লুৎফর রহমান তালুকদার, সাবেক জিএস আরিফুল ইসলাম পলাশ, উপজেলা যুবলীগের আহবায়ক আশিকুল হক দিনার, ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক শেখ মোঃ রাসেল, শাহজাদপুর সংবাদ ডটকমের জনসংযোগ কর্মকর্তা নাছির উদ্দিনসহ সংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

শাহজাদপুরে প্রফেসর ড. এমএ মুহিতের পক্ষ থেকে ৪৬০ টি প্রতিবন্ধি শিশুর পরিবারের মাঝে খাদ্য-সামগ্রী বিতরণ

আজ ০৮/০৯/২০২০ইং রোজ মঙ্গলবার সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুরে আন্তর্জাতিক খ্যাতি সম্পন্ন প্রতিবন্ধি বিষয়ক বিশেষজ্ঞ ও সিএসএফ গ্লোবালের সন্মানিত চেয়ারম্যান,শাহজাদপুর উপজেলা বিএনপি’র আহবায়ক প্রফেসর ড. এম.এ মুহিতের সার্বিক সহযোগিতায় সিরাজগঞ্জ জেলার শাহদাজপুর উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নে ৪৬০ জন সেরিব্রাল পালসিতে (সিপি) আক্রান্ত প্রতিবন্ধী শিশুদের পরিবারের মাঝে গিয়ে খাবার পৌঁছেদেন উপজেলা বিএনপি’র যুগ্ম-আহবায়ক মোঃ ইকবাল হোসেন হিরু ও মোঃ আরিফুজ্জামান আরিফ।
খাদ্য-সামগ্রীর মধ্যে ছিল ১৫ কেজি চাউল,৩ ডাউল কেজি, আলু ২ কেজি,পিঁয়াজ ১ কেজি,তেল ১ লিটার, লবন ৫০০ গ্রাম, সাবান ২পিছ, স্যালাইন ১০ প্যাকেট, মাস্ক ২পিছ।
এসময় খাদ্য-সামগ্রী পেয়ে সকল প্রতিবন্ধী শিশু ও তাদের পরিবারের পক্ষ থেকে সিএসএফ গ্লোবালের সন্মানিত চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. এমএ মহিতকে অসংখ্য ধন্যবাদ ও তার প্রতি কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করে।

প্রধানমন্ত্রীর উপহার নিয়ে হাজির কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সদস্য প্রফেসর মেরিনা জাহান কবিতা


শাহজাদপুরে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তরা পেলেন প্রধানমন্ত্রীর উপহার

জহুরুল ইসলাম , শাহজাদপুর (সিরাজগঞ্জ) : উত্তরবঙ্গের অন্যতম জনপদ সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর উপজেলার নদনদী থেকে পনি কমলেও জেগে উঠতে শুরু করেছে বন্যার ক্ষত। মহামারি করোনা ভাইরাসে যখন পর্যদস্তু মানুষ তার মধ্যেই ভয়াবহ আতঙ্ক হয়ে দেখা দিয়েছে বন্যা। একদিকে করোনা অপরদিকে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থ হয়ে রীতিমত সংসার চালাতে হিমসিম খাাচ্ছে নিম্ন আয়ের মানুষ। এমনই এক ভয়াবহ দুঃসময়ে দুস্থ ও বন্যার্ত মানুষের মাঝে বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর উপহার নিয়ে হাজির হলেন কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সদস্য প্রফেসর মেরিনা জাহান কবিতা। গতকাল শনিবার বিকেলে সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর উপজেলার শক্তিপুরস্থ নুরজাহান ভবনে প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া উপহার সামগ্রী বিতরণ করা হয়। বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য প্রফেসর মেরিনা জাহান কবিতার আয়োজনে ও শাহজাদপুর উপজেলা পরিষদের সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান মুস্তাক আহমেদের সঞ্চালনায় দুস্থ ও বন্যার্তদের মাঝে উপহার সামগ্রী বিতরণ অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সাবেক মন্ত্রী ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল লতিফ বিশ্বাস, সিরাজগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক ও সিরাজগঞ্জ সদর আসনের এমপি ডাঃ মোঃ হাবিবে মিল্লাত মুন্না, জেলা আওয়ামী লীগ নেতা এ্যাডভোকেট কে.এম হোসেন আলী হাসান, এ্যাডভোকেট মোস্তফা কামাল, সিরাজগঞ্জ পৌরসভার প্যানের মেয়র মোঃ হেলাল উদ্দিন, বেলকুচি পৌরসভার মেয়র আশানূর বিশ্বাস, সিরাজগঞ্জ জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ একরামুল হক প্রমুখ।
উপহার সামগ্রী বিতরণ শেষে অতিথিবৃন্দ বৃক্ষরোপণ কর্মসূচির উদ্বোধন করেন।

শাহজাদপুরে বিএনপি’র ৪২তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত

মোঃ আল আমিন হোসেন, শাহজাদপুর, সিরাজগঞ্জ : সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুরে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি)’র ৪২তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত হয়েছে। এ উপলক্ষে আজ মঙ্গলবার সকালে শাহজাদপুর উপজেলা ও পৌর বিএনপি’র উদ্দ্যোগে শাহজাদপুর পৌর এলাকার খঞ্জনদিয়ার মহল্লায় উপজেলা বিএনপি’র আহবায়ক প্রফেসর ড. এমএ মুহিতের নিজ বাসভবনে বিভিন্ন কর্মসুচি পালিত হয়। কর্মসূচীর মধ্যে ছিল সকাল ৭টা ১ মিনিটে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন, ৮ টায় বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপি’র প্রতিষ্ঠাতা শহিদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুষ্পমাল্য অর্পণ, ১০ টায় আলোচনা সভা, মিলাদ ও দোয়া অনুষ্ঠিত হয়।
এ সকল কর্মসূচী পালনকালে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা বিএনপি’র যুগ্ম-আহবায়ক মোঃ আরিফুজ্জামান আরিফ, পৌর বিএনপি’র আহবায়ক আলহাজ্ব প্রফেসর আবু শামীম, সদস্য সচিব আব্দুল আজিজ, যুগ্ম-আহবায়ক এমদাদুল হক নওশাদ, আলহাজ্ব আইয়ুব আলী, উপজেলা বিএনপি’র সাবেক সাংগঠনিক সম্পাকদ রেজাউল ইসলাম রাজা, পৌর বিএনপি নেতা আবু বক্কার রঞ্জু, মাসুদ রানা, সাকিক চৌধুরী, সজল, উপজেলা যুবদলের সাবেক সাধারন সম্পাদক মিজানুর রহমান মিন্টু, পৌর যুবদলের সাবেক সাধারন সম্পাদক মোঃ জাহিদুল ইসলাম, সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ আলাল হোসেন, যুবদল নেতা বকতিয়ার, উপজেলা ছাত্রদলের আহবায়ক আব্দুল্লা আল মামুন জুয়েল, পৌর ছাত্রদলের আহবায়ক বাচ্চু ফকির প্রমূখ।

উপজেলা বিএনপি নেতৃবৃন্দের অভিনন্দন বার্তা


জুয়েলকে আহবায়ক করে শাহজাদপুরে উপজেলা ছাত্রদলের ২১ সদস্যের আহবায়ক কমিটি

দীর্ঘ প্রায় ৮ বছর পর বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল শাহজাদপুর উপজেলা শাখার আহবায়ক কমিটি গঠিত হয়েছে। শনিবার (২২আগষ্ট) সিরাজগঞ্জ জেলা ছাত্রদলের সভাপতি মোহাম্মদ জুনায়েদ হোসেন সবুজ ও সাধারণ সম্পাদক সেরাজুল ইসরাম সেরাজ স্বাক্ষরিত এক দাপ্তরিক পত্রে ঢাকা মহানগর (পশ্চিম) ছাত্রদলের ১নং সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক ও মিরপুর বিশ^বিদ্যালয় কলেজ ছাত্রদলের সাবেক সহ-সভাপতি মোঃ আল মামুন হোসেন জুয়েলকে আহবায়ক ও হোসাইন আলীকে ১নং যুগ্ম-আহবায়ক করে ২১ সদস্যবিশিষ্ট এ আহবায়ক কমিটির অনুমোদন দিয়েছেন। এদিকে, এক বার্তায় শাহজাদপুর উপজেলা ছাত্রদলের নবগঠিত আহবায়ক কমিটির সকলকে অভিনন্দন জানিয়ে শাহজাদপুর উপজেলা বিএনপি’র যুগ্ম-আহবায়ক ইকবাল হোসেন হীরু ও আরিফুজ্জামান আরিফ বলেন,‘নবগঠিত এ আহবায়ক কমিটির নেতৃবৃন্দ তাদের ওপর অর্পিত দায়িত্ব পালনের মাধ্যমে সাংগঠনিকভাবে উপজেলা ছাত্রদলকে শক্তিশালী করবে বলে আমরা আশাবাদী।’
অন্যদিকে, নবগঠিত শাহজাদপুর উপজেলা ছাত্রদলের আহবায়ক মোঃ আল মামুন হোসেন জুয়েল জানান, ‘তৃণমূল পর্যায়ে সুসংগঠিত করে শাহজাদপুর উপজেলা ছাত্রদলকে সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যেতে চাই। এজন্য দলীয় নেতাকর্মীসহ সকলের দোয়া-ভালোবাসা ও সহযোগীতা বিশেষভাবে কামনা করছি।’
উল্লেখ্য, গত ২০০৪ সালে শাহজাদপুর উপজেলা ছাত্রদলের সম্মেলনে আরিফুজ্জামান আরিফকে সভাপতি, মোতালেব হোসনেকে সাধারন সম্পাদক ও মাহমুদুল হাসানকে সাংগঠনিক সম্পাদক করে উপজেলা ছাত্রদলের কমিটি গঠিত হয় যা ২০১২ সালে স্থানীয় ররীন্দ্র কাছারিবাড়ি মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত এক সভায় জেলা ও উপজেলা বিএনপি’র নেতৃবৃন্দের উপস্থিতিতে বিলুপ্ত করা হয়। এরপর থেকে নানা কারণে গত ৮ বছরে উপজেলা ছাত্রদলের কমিটি গঠন সম্ভব হয়নি বলে দলীয় সূত্রে জানা গেছে।

প্রায় দেড়যুগ পর শাহজাদপুর ছাত্র দলের আহবায়ক কমিটি গঠন

প্রায় দেড়যুগ পরে বাংলাদেশ জাতীয়বাদী ছাত্রদল শাহজাদপুর উপজেলা শাখার আহবায়ক কমিটি গঠন করা হয়েছে।

আজ শনিবার (২২আগষ্ট) সিরাজগঞ্জ জেলা ছাত্রদলের সভাপতি মোহাম্মদ জুনায়েদ হোসেন সবুজ ও সাধারণ সম্পাদক সেরাজুল ইসলাম সেরাজ স্বাক্ষর করে এ আহবায়ক কমিটি অনুমোদন দিয়েছেন।

শাহজাদপুর উপজেলা শাখা ছাত্রদলের আহ্বায়ক করা হয়েছে মোঃ আল মামুন হোসেন জুয়েল কে ও ১নং যুগ্ন আহ্বায়ক করা হয়েছে হোসাইন আলীকে।এ কমিটতে মোট ১০জনকে যুগ্ম আহবায়ক করা হয়েছে। সদস্য সচিব করা হয়েছে মোঃ মাজহারুল ইসলাম (মাজাকে) এই আহবায়ক কমিটিতে সাধারণ সদস্য হিসেবে আছে ৯জনের নাম।

নবগঠিত কমিটিকে আগামী ৬০ দিনের মধ্যে তাদের অধীনস্থ ইউনিট কমিটি গঠন করে সিরাজগঞ্জ জেলা ছাত্রদল বরাবর জমা দেওয়ার নির্দেশ প্রদান করা হয়েছে।

বিএনপির কাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে জানতে চেয়েছেন ওবায়দুল কাদের

ফাইল ছবি

রাজনৈতিক কারণে বিএনপির কাকে, কোথায় গ্রেপ্তার করা হয়েছে দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলামের কাছে তা জানতে চেয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

বিএনপির নেতাকর্মীদের গ্রেপ্তার ও হয়রানি করা হচ্ছে মির্জা ফখরুলের এমন অভিযোগ প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের পাল্টা প্রশ্ন করে জানতে চান রাজনৈতিক কারণে কাকে, কোথায় গ্রেপ্তার করা হয়েছে তা বলুন?

সোমবার (১০ আগস্ট) ময়মনসিংহ সড়ক জোন, বিআরটিএ ও বিআরটিসির কর্মকর্তাদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় মির্জা ফখরুল ইসলামের কাছে এ প্রশ্ন জানতে চান তিনি।

নিজ সরকারি বাসভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এ মতবিনিময় সভায় যুক্ত হন ওবায়দুল কাদের।

তিনি বলেন, অপরাধী ও সন্ত্রাসীদের কোনো দলীয় পরিচয় থাকতে পারে না। সরকার বিভিন্ন অপরাধে নিজেদের দলের লোকদেরও ছাড় দিচ্ছে না। তাহলে বিএনপি সমর্থিত কোনো অপরাধী গ্রেপ্তার হলে অভিযোগ কেন?

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, যারা এদেশের রাজনীতিতে রক্তপাত, হত্যা আর প্রতিহিংসা ছড়িয়েছে তাদের মুখে গণতন্ত্র ও মানবাধিকারের কথা বলা আরেক ষড়যন্ত্রের অংশ।

মারা গেছেন বিএনপির ভাইস-চেয়ারম্যান আ. মান্নান

ফাইল ছবি

বিএনপির ভাইস-চেয়ারম্যান ও সাবেক মন্ত্রী আব্দুল মান্নান মৃত্যুবরণ করেছেন (ইন্নালিল্লাহি ওয়াইন্নইলাহি রাজিউন)। গতকাল ৪ আগস্ট, মঙ্গলবার ৯টা ২০ মিনিটে এভারকেয়ার (সাবেক অ্যাপোলো) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

আব্দুল মান্নানের মৃত্যুর খবরটি নিশ্চিত করেছেন বিএনপি চেয়ারপার্সনের মিডিয়া উইংয়ের সদস্য শামসুদ্দিন দিদার।

গত ২ আগস্ট, রবিবার অসুস্থ অবস্থায় আবদুল মান্নানকে রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানকার সিসিউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

৭৮ বছর বয়সী এই নেতা মৃত্যুকালে এক মেয়ে ও এক ছেলে রেখে গেছেন। তিনি বিএনপি সরকারের বেসামরিক বিমান চলাচল ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন।

এনামুল হত্যা মামলার বাদীকে অপহরণ ঘটনায় মামলা, গ্রেফতার ২

পারভেজ রেজা পাভেল ও মামুন শেখ

সিরাজগঞ্জে আলোচিত ছাত্রলীগ নেতা এনামুল হক বিজয় হত্যা মামলার বাদী রুবেল প্রামাণিককে অপহরণের ঘটনায় উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি পারভেজ রেজা পাভেল ও সাধারণ সম্পাদক মামুন শেখকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

এর আগে উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকসহ ৬ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাতনামা আরো কযেজনকে আসামি করে মামলা দায়ের করা হয়।

মঙ্গলবার (০৪ আগস্ট) বিকেলে রুবেলের বাবা আব্দুল কাদের প্রমাণিক বাদী হয়ে মামলাটি দায়ের করেন।

এদিকে, মামলা করতে গেলে বাদী ও ভিকটিমকে থানার ওসির রুমে প্রতিপক্ষের লোকজন মারধর করেছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

অপরদিকে ছাত্রলীগের সভাপতি/সম্পাদককে গ্রেফতারের প্রতিবাদে থানার সামনে ঘণ্টাব্যাপী বিক্ষোভ মিছিল করেছে সমর্থকরা।

কামারখন্দ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রফিকুল ইসলাম জানান, এনামুল হক বিজয় হত্যা মামলার বাদী রুবেল প্রামাণিককে অপহরণের অভিযোগে তার বাবা আব্দুল কাদের প্রমাণিক বাদী হয়ে ৬ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাতনামা আসামিদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছেন। মামলার পরই থানা এলাকা থেকে আসামি পারভেজ রেজা পাভেল ও মামুন সেখকে গ্রেফতার করা হয়। সন্ধ্যায় তাদের আদালতে পাঠানো হয়েছে। তবে নিজ রুমের ভেতরে বাদী ও ভিকটিমকে মারধরের বিষয়টি অস্বীকার করেন তিনি।

মামলার এজাহারে উল্লেখ করা হয়েছে, ২ আগস্ট বিজয় হত্যা মামলার বাদী নিহতের বড় ভাই রুবেলকে কামারখন্দ বাজার এলাকা থেকে মাইক্রোবাসে করে অপহরণ করা হয়। এরপর বিজয় হত্যা মামলা তুলে নিতে এবং নিহত বিজয়ের ব্যবহৃত মোবাইল ও মেমোরি কার্ডের জন্য চাপ দেয় অপহরণকারীরা। একপর্যায়ে তার চিৎকারে বেকায়দায় পড়ে অপহরণকারীরা তাকে বগুড়ার মাঝিরা ক্যান্টনমেন্ট এলাকায় মাইক্রোবাস থেকে ফেলে দেয়। পরে স্থানীয় একটি মসজিদের মুসল্লিরা তাকে অসুস্থ অবস্থায় পায়। সেখান থেকে শাহজাহানপুর থানা পুলিশ তাকে উদ্ধারের পর পরিবারের কাছে হস্তান্তর করেন।

নিহত বিজয়ের ভাই রুবেল প্রমাণিক বলেন, আজ বিকেলে মামলা করার জন্য থানায় যাচ্ছিলাম। বিষয়টি টের পেয়ে পাভেলসহ ৩ জন আমাদের পিছু নেয়। আমরা দ্রুত থানায় ঢুকে ওসি সাহেবের রুমে আশ্রয় নেই। বিষয়টি জানানোর পর ওসি সাহেব থানার ভেতর থেকেই পাভেলকে আটক করে। তাকে আটকের সংবাদ পেয়ে সমর্থকরা থানায় চলে আসে। তাদের মধ্যে কয়েকজন ওসির রুমের মধ্যেই আমাকে ও বাবাকে মারধর করে এবং সাদা কাগজে স্বাক্ষর নেওয়ার চেষ্টা করে। ওই সময় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের জন্য থানার গেটের বাইরে ছিলেন ওসি সাহেব। এ সময় বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী থানার বাইরে ও ভেতরে জমায়েত হয়ে বিক্ষোভ করতে থাকে। এ অবস্থায় পুলিশী নিরাপত্তায় আমাদের বাড়িতে নিয়ে আসা হয়।

কামারখন্দ সার্কেলের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার শাহিনুর কবির জানান, সংবাদ পেয়ে তাৎক্ষণিক থানায় গিয়েছিলাম। থানার বাইরে পাভেলের সমর্থক নেতাকর্মীরা বিক্ষোভ করলেও তারা থানার ভেতরে প্রবেশ করতে পারেনি। ভেতরে প্রবেশের চেষ্টা করায় মামুন সেখ নামে একজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। সে অপহরণ মামলার প্রধান আসামি।

বিক্ষোভ থামাতে টিয়ারসেল ও শর্টগানের গুলি করা হয় বলে স্থানীয়ভাবে জানা গেলেও অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জানান, তেমন কোনো ঘটনা ঘটেনি।

প্রসঙ্গত, জাতীয় নেতা মোহাম্মদ নাসিমের স্মরণে দোয়া মাহফিলে যোগ দিতে আসার পথে শহরের বাজার স্টেশন এলাকায় জেলা ছাত্রলীগের সহ-সম্পাদক ও জামতৈল হাজী কোরপ আলী ডিগ্রি কলেজ শাখার সভাপতি এনামুল হক বিজয়কে কুপিয়ে আহত করে প্রতিপক্ষ। ৯ দিন হাসপাতালে লাইফসাপোর্টে থাকার পর ৫ জুলাই তার মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় বড় ভাই রুবেল বাদী হয়ে জেলা ছাত্রলীগের ২ সাংগঠনিক সম্পাদকসহ সংগঠনের ৫ নেতাকর্মীর নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাতনামা ৪/৫ জনের বিরুদ্ধে সদর থানায় মামলা দায়ের করেন।

এদিকে ৭ জুলাই নিহত এনামুল হক বিজয় স্মরণে মিলাদ মাহফিলকে কেন্দ্র করে ছাত্রলীগের দু’গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। এতে উভয়পক্ষে অন্তত ৪০ জন নেতাকর্মী আহত হন। এ সংঘর্ষের ঘটনায় পাল্লাপাল্টি ৪টি মামলা হয়েছে। এরই জেরে কেন্দ্রীয় হস্তক্ষেপে ৮ জুলাই থেকে জেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয় তালাবদ্ধ ও দলের সব অঙ্গ-সহযোগী সংগঠনের দলীয় কার্যক্রম স্থগিত রাখা হয়েছে।