টিকটক অপু গ্রেফতার

সড়কে মারামারির ঘটনায় ‘টিকটক অপু’ ওরফে ‘অপু ভাইকে’ গ্রেফতার করেছে উত্তরা পূর্ব থানা পুলিশ। সোমবার সন্ধ্যায় উত্তরা ৬ নম্বর সেক্টরের আলাউল এভিনিউয়ের ১২ নম্বর বাড়ির পাশের সড়ক থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে এক পথচারীর সাথে মারামারির সময় তাকে স্থানীয়রা গণপিটুনিও দেয়। পরে পুলিশ তাকে আটক করে নিয়ে থানায় নিয়ে যায়। পরবর্তীতে একটি মামলায় গ্রেফতার দেখানো হয়।

উত্তরা মডেল থানার ডিউটি অফিসার এসআই মো. ফুয়াদ উদ্দিন গণমাধ্যমকে বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, ‘সড়কে একজনকে মারধরের ঘটনায় অপুর বিরুদ্ধে একটি মামলা হয়েছিল। এই মামলায় তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে’।

ঢাকার চারপাশের নদ-নদীর পানি বাড়ছে

ঢাকার চারপাশের নদ-নদীর পানি বাড়ছে

দেশের উত্তরাঞ্চলের পর গত কয়েকদিন ধরে মধ্যাঞ্চলের নদীগুলোতে বিপদসীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে উজানের ঢলে আসা বন্যার পানি। বানের পানিতে তলিয়ে গেছে ফসলের ক্ষেত, বাড়ির আঙ্গিনা। বহুস্থানে বিলীন হয়েছে মানুষের বসত ভিটা। উত্তর ও মধ্যাঞ্চলের পর এবার বন্যার পানির এই ঢলে প্লাবিত রাজধানীর নিম্নাঞ্চলও। ফলে বালু ও শীতলক্ষ্যা নদী তীরবর্তী মানুষের নিত্য দিনের ভোগান্তি বেড়েছে। সড়ক পথ পানি নিচে থাকায় এই এলাকার মানুষের এখন একমাত্র বাহন হয়েছে নৌকা।

সরকারি হিসেবে দেশের উত্তর ও উত্তরপূর্বাঞ্চলের ২৫ জেলায় এখন চলছে বন্যা। কুড়িগ্রাম, লালমনিরহাট, সিরাজগঞ্জ, জামালপুর, সিলেট ও সুনামগঞ্জসহ ১৮টি জেলায় বন্যা পরিস্থিতি ভয়াবহ রূপ নিয়েছে। অতি বর্ষণ ও পাহাড়ি ঢলে দেশের নদ-নদীর ধারণ ক্ষমতার অতিরক্ত এই পানির ঢল এসে এখন ধাক্কা দিচ্ছে রাজধানীর নিন্মাঞ্চলেও। ঢাকার চারপাশের ফসলের মাঠ বহু আগেই তলিয়েছে। এখন ঘরে মেঝেতে ঢেউ তুলছে বন্যার পানি। জীবন যাত্রা হয়ে ওঠেছে দুর্বিসহ।

নদী তীরবর্তী কেরানীগঞ্জ, সাভার, টঙ্গী ও নারায়ণগঞ্জের নিম্নাঞ্চল পানিতে তলিয়ে গেছে। রাস্তাঘাট তলিয়ে যাওয়ায় চলাচলের একমাত্র বাহন হয়েছে নৌকা। শ্রাবনের টানা বৃষ্টি আর নদীর পানি বাড়ার কারণে রাজধানীর শহরতলী খ্যাত নন্দীপড়া, সাতারকুল, ডেমরা ও মেরাদিয়াসহ বেড়িবাধের বাইরে থাকা বেশিরভাগ এলাকা এখন পানির নিচে। ফসলের মাঠে শুধুই জলরাশির ঢেউ।

নদীর পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় সিটি করপোরেশনের ভিতের ঢাকা ওয়াসা ও পানি উন্নয়ন বোর্ডের খালের পানি উল্টো শহরের ভেতরে আসায় স্লুইস গেইটগুলো বন্ধ করে দিয়েছে। নগরের ভেতরের পাঁচটি পাম্পস্টেশন দিয়ে সেচ করে পানি ফালাচ্ছে নদীতে। বিপদসীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে বালু ও শীতালক্ষ্যা নদীর পানি।

আবহাওয়া পূর্বাভাস বলছে, আগামী সপ্তাহ জুড়েই থেমে থেমে বৃষ্টি অব্যাহত থাকবে দেশের উত্তর ও উত্তর পূর্বাঞ্চলসহ মধ্যাঞ্চলেও। সে কারনে সব নদীর পানি বৃদ্ধি অব্যাহত থাকবে। বিপদসীমার ওপরে প্রবাহিত হওয়ার আশঙ্কার কথা জানান বন্যা পূর্বাভাস কেন্দ্র। ঢাকার আশপাশের নিম্নাঞ্চলের প্লাবিত এলাকার মানুষের জন্য আশ্রয়কেন্দ্র প্রস্তুত রাখার পরামর্শ দিয়েছে বিশেষজ্ঞরা।

করোনা : ওয়ারী লকডাউন করতে ঢাকা দক্ষিণ সিটিকে চিঠি

রাজধানীর ওয়ারীর কয়েকটি এলাকা রেড জোনে লকডাউন বাস্তবায়নের জন্য স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় থেকে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তাকে চিঠি দেওয়া হয়েছে।আজ সোমবার সন্ধ্যা সাড়ে ৫টার দিকে এই চিঠি ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনে পাঠানো হয়েছে।  চিঠি পাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ডিএসসিসির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা শাহ মো. এমদাদুল হক।

তিনি বলেন, আমরা সাড়ে ৫টার পর আমাদের ৪১ নং ওয়ার্ড ওয়ারীকে লকডাউন করার জন্য স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় থেকে একটি চিঠি পেয়েছি। যখন চিঠিটা পেয়েছি তখন অফিস বন্ধ হয়ে গেছে। তাই চিঠির বিষয়ে পরবর্তী কার্যক্রম আগামীকাল গ্রহণ করা হবে।

তিনি আরও বলেন, ওয়ারীকে লকডাউন করার জন্য আমাদের প্রয়োজনীয় সব প্রস্তুতি সম্পন্ন রয়েছে। আমরা আগেও একটি লকডাউন বিষয়ক সভা করেছি। এই চিঠি পাওয়ার পর দ্বিতীয় সভা ডাকা হতে পারে। আগামীকাল মেয়র মহোদয় এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত দেবেন।

স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের উপসচিব নাজনীন ওয়ারেস সই করা ওই চিঠিতে বলা হয়েছে, স্বাস্থ্য অধিদফতরের কেন্দ্রীয় কারিগরি গ্রুপের গত ২২ জুন তারিখে অনুষ্ঠিত সভায় গৃহীত সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের ওয়ারী এলাকার নিম্ন বর্ণিত অংশকে লাল অঞ্চল (রেড জোন) হিসেবে বাস্তবায়নের জন্য স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্য সেবা বিভাগ হতে অনুরোধ করা হয়েছে।

চিঠিতে ওয়ারীর লকডাউন এলাকার আউটার রোডের বর্ণনায় বলা হয়েছে টিপু সুলতান রোড, জাহাঙ্গীর রোড, ঢাকা-সিলেট হাইওয়ে (জয়কালী মন্দির থেকে বালধা গার্ডেন)। আর ইনার রোডের বর্ণনায় বলা হয়েছে লালমিনি রোড, হরে রোড, ওয়ার রোড, রানকিন  রোড ও নওয়াব রোড।
এ অবস্থায় রেড জোন লকডাউন বাস্তবায়নের জন্য স্থানীয় সরকার বিভাগ কর্তৃক জারিকৃত স্ট্যান্ডার্ড অপারেটিং প্রসিডিউর (এসওপি) এর সঙ্গে প্রেরণ করা হলো। পাশাপাশি স্বাস্থ্য অধিদফতরের প্রস্তাবনা অনুযায়ী ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের ৪১ নং ওয়ার্ডের উল্লেখিত রেড জোন এলাকায় লকডাউন বাস্তবায়নের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য নির্দেশ ক্রমে অনুরোধ করা হলো।

প্রসঙ্গত, করোনা মোকাবিলায় বেশি আক্রান্ত এলাকাকে রেড (লাল), অপেক্ষাকৃত কম আক্রান্ত এলাকাকে ইয়োলো (হলুদ) ও একেবারে কম আক্রান্ত বা আক্রান্তমুক্ত এলাকাকে গ্রিন (সবুজ) জোন হিসেবে চিহ্নিত করছে সরকার। রেড জোনকে ১৪ থেকে ২১ দিনের জন্য লকডাউন করা হচ্ছে, সেখানে থাকছে সাধারণ ছুটি।

গত ২১ জুন মধ্যরাতে ১০ জেলার ২৭টি এলাকা ও পরদিন ২২ জুন ৫ জেলার ১২ এলাকাকে রেড জোন হিসেবে তালিকাভুক্ত করে সেখানে সাধারণ ছুটি ঘোষণা করে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়।

সর্বশেষ গত ২৩ জুন দেশের চার জেলার ৭টি এলাকাকে রেড জোন ঘোষণা করা হয়। করোনা আক্রান্ত সবচেয়ে বেশি ঢাকায় থাকলেও সেখানে এখনও রেড জোন ঘোষণা করা হয়নি। তবে পরীক্ষামূলকভাবে রাজধানীর পূর্ব রাজাবাজারকে রেড জোন ঘোষণা করে সেখানে লকডাউন বাস্তবায়ন করা হচ্ছে।

নির্দেশনা পাওয়া মাত্রই রেড জোনে লকডাউন: আতিক

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র আতিকুল ইসলাম বলেছেন, রেড জোনে লকডাউন কার্যকর করার জন্য সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় থেকে নির্দেশনা পাওয়া মাত্র তা বাস্তবায়ন করবে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন।

বুধবার গুলশান, বনানী, বারিধারায় সাইকেল রাইড শেয়ারিং অ্যাপ জোবাইক উদ্বোধন করে তিনি এ কথা জানান।
মেয়র আতিক বলেন, স্বাস্থ্য অধিদফতর থেকে রেড জোনের ম্যাপ এখনও পাওয়া যায়নি। তবে তা হাতে পেলে ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে বাস্তবায়ন করা হবে।

এ সময় পরিচ্ছন্ন ও দূষণমুক্ত ঢাকা গড়তে সব এলাকায় অ্যাপসের মাধ্যমে বাইসাইকেল সুবিধা চালু করা হবে বলেও জানান তিনি।

আতিক বলেন, আগে আমরা মনে করতাম বাইসাইকেল গরিবের বাহন, এটা গরিবের বাহন নয়, উন্নত বিশ্বের অনেক রাষ্ট্রনায়কও বাইসাইকেল ব্যবহার করেন। সারাবিশ্বে এ বাহন অত্যন্ত জনপ্রিয়। তাই পরিবেশ ও নিরাপদ ঢাকা গড়তে বাইসাইকেল ব্যবহারে উৎসাহ দিতে হবে।

‘শৃঙ্খলা মেনে বাইসাইকেল চালাতে হবে। কেউ নির্ধারিত ম্যাপের বাইরে মেইন সড়কে গিয়ে বাইসাইকেল চালালে ৩ গুণ ভাড়া নেওয়া হয়, সেই ব্যবস্থাও থাকবে। সু-শৃঙ্খলভাবে বাইসাইকেল চালাতে হবে।’

উত্তরের মেয়র বলেন, মাত্র ১৪ দিন আগে এ সেবা চালুর উদ্যোগ নেই। অল্প দিনেই আমরা এ সেবা চালু করছি। এটা পাইলট প্রকল্প। এ প্রকল্প সফল হলে পুরো ঢাকায় এ সেবা চালু করা হবে।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন- জোবাইকের বোর্ড অব ডিরেক্টর শামীম আহসান, চেয়ারম্যান সাজিদ রহমান, কো-ফাউন্ডার ও সিইও মেহেদী রেজা ও স্থপতি ইকবাল হাবিব প্রমুখ।

কারওয়ান বাজার এলাকার সেই বেপরোয়া ছিনতাইকারী গ্রেফতার

রাজধানীর কারওয়ান বাজারের সার্ক ফোয়ারা এলাকায় মানুষের ব্যাগ কেটে মালামাল চুরি ও টান দিয়ে যাত্রীদের মালামাল ছিনিয়ে নেওয়া সেই চোর ও ছিনতাইকারী সোহেল (৩০) কে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।সোমবার রাত সোয়া ১০টার দিকে তেজগাঁও থানা পুলিশের একটি দল ফার্মগেট এলাকায় অভিযান চালিয়ে সোহেলকে গ্রেফতার করে। তার বিরুদ্ধে মামলা প্রক্রিয়াধীন।

গ্রেফতার সোহেলের ভাষ্য, তিনি একজন মাদকসেবী। রাতের বেলা মাদক সেবন করে ফার্মগেট এবং কারওয়ান বাজার এলাকার ফুটওভার ব্রিজ ও রাস্তার পাশে ঘুমিয়ে থাকেন আর দিনের বেলা সুযোগ বুঝে মানুষের ব্যাগ কেটে মালামাল চুরি ও ছিনতাই করেন।

তার গ্রামের বাড়ি শরিয়তপুর। তিনি ঢাকা শহরে ভাসমান ব্যক্তি হিসেবে বসবাস করে আসছেন।

ডিএসসিসির গুরুত্বপূর্ণ তিন পদে রদবদল

ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) প্রকৌশল বিভাগের তিনটি গুরুত্বপূর্ণ পদে রদবদল করা হয়েছে।

সোমবার ডিএসসিসি সচিব আকরামুজ্জামান স্বাক্ষরিত এই অফিস আদেশটি জারি করা হয়৷

অফিস আদেশ মতে, পরিবেশ জলবায়ু ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা সার্কেলের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী মুন্সি মোহাম্মদ আবুল হাসেমকে তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী (পুর) সিভিল সার্কেলে বদলি করা হয়েছে।

তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী (পুর) সিভিল সার্কেলের কাজী মো বোরহান উদ্দিনকে ট্রাফিক ইঞ্জিনিয়ারিং সার্কেল এবং নিজ দায়িত্বসহ তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী (পুর/যান্ত্রিক), বর্জ্য ব্যবস্থাপনা বিভাগের অতিরিক্ত দায়িত্বে বদলি করা হয়েছে।

এ ছাড়া ট্রাফিক ইঞ্জিনিয়ারিং সার্কেল এবং নিজ দায়িত্বসহ বর্জ্য ব্যবস্থাপনা বিভাগে থাকা খাইরুল বাকেরকে পরিবেশ, জলবায়ু ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা সার্কেলের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী (পুর) দায়িত্ব দেয়া হয়েছে।

যথাযথ কর্তৃপক্ষের অনুমোদনক্রমে জারি হওয়া অফিস আদেশে ‘বদলি হওয়া কর্মকর্তারা কোনো প্রকল্পের দায়িত্ব বা অতিরিক্ত দায়িত্বে নিয়োজিত থাকলে তা বহাল থাকবে’ বলে উল্লেখ করা হয়।

আগামীকাল যেসব এলাকায় গ্যাস সরবরাহ বন্ধ থাকবে

রাজধানীর বনানী, মহাখালী ডিওএইচএস এলাকাসহ আশপাশের এলাকায় আগামীকাল মঙ্গলবার (১৬ জুন) দুপুর ১২টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত মোট ছয় ঘণ্টা গ্যাস সরবরাহ বন্ধ থাকবে। বনানী রেলস্টেশন থেকে মহাখালী বাস টার্মিনাল পর্যন্ত গ্যাস পাইপলাইন স্থানান্তর ও গ্রাহক সংযোগ প্রতিস্থাপনের কাজের টাই-ইন এর জন্য এসব এলাকায় গ্যাস সরবরাহ বন্ধ থাকবে।

তিতাস গ্যাস ট্রান্সমিশন অ্যান্ড ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানির এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ২৪ ইঞ্জিনিয়ার কনস্ট্রাকশন ব্রিগেডের অধীন ঢাকা এলিভেটর এক্সপ্রেসওয়ে রুট অ্যালাইনমেন্টের মধ্যে বিদ্যমান ইউটিলিটি প্রতিস্থাপন-অপসারণ প্রকল্প ‘ক’-এর দ্বিতীয় ট্রাঞ্চের প্রথম পর্যায়ে বনানী রেলস্টেশন থেকে মহাখালী বাস টার্মিনাল পর্যন্ত গ্যাস পাইপলাইন স্থানান্তর ও গ্রাহক সংযোগ প্রতিস্থাপনের কাজের টাই-ইন করা হবে।

এজন্য মঙ্গলবার দুপুর ১২টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত মোট ৬ ঘণ্টা শহীদ তাজউদ্দিন অ্যাভিনিউয়ের উভয় পাশের এলাকা, বনানী সমগ্র এলাকা, মহাখালী ডিওএইচএস, ঢাকা ক্যান্টনমেন্ট আবাসিক এলাকা ও তৎসলগ্ন এলাকায় শিল্প ক্যাপটিভ পাওয়ার, বাণিজ্যিক, সিএনজি, আবাসিক শ্রেণির গ্রাহকদের গ্যাস সরবরাহ বন্ধ থাকবে। সাময়িকভাবে গ্যাস সরবরাহ বন্ধ থাকার জন্য তিতাস গ্যাসের পক্ষ থেকে দুঃখ প্রকাশ করা হয়েছে।

গুলশানের ফ্ল্যাটে ঢুকে খাবার দেখেই ৩ দিন কাটিয়ে দিল চোর, অতঃপর…

নাম তার মাসুম, পেশা চুরি। সম্প্রতি চুরির জন্য গুলশানের একটি ফ্ল্যাটে ঢোকেন। কিন্তু সেখানে ঢুকে কাটিয়ে দেন তিনদিন। চুরির কথা ভুলে আরও কয়েকদিন থাকার পরিকল্পনা করেন তিনি। মূলত সেখানে থাকা খাবার দেখেই সেখানে বেশ কয়েকদিন থেকে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেন মাসুম।

জানা গেছে, ফ্ল্যাটটির মালিক নর্থ অ্যান্ড কফির ব্যবস্থাপনা পরিচালক যুক্তরাষ্ট্রের রিচার্ড হাবার্ড। দীর্ঘদিন ধরে ক্যাফে বন্ধ থাকায় তিনি যুক্তরাষ্টে যান। ফ্ল্যাটটি খালি থাকলেও এর ভেতরে ছিল সিসিটিভি ক্যামেরা।

‘গুলশানের ঘরটি নিরাপদে আছে কি না’ নিজের মোবাইল ফোন থেকে যুক্তরাষ্ট্রের ঘরে বসেই নিয়মিত সিসিটিভি ক্যামেরার ফুটেজ দেখতেন রিচার্ড। তবে শনিবারের ফুটেজে হঠাৎ দেখতে পেলেন কেউ তার ঘরে হাঁটাহাঁটি করছে। ফ্রিজ থেকে খাবার ও ওয়াইন নিয়ে টেবিলে রেখে এক যুবকের নাচের দৃশ্য দেখে অবাক তিনি। সঙ্গে সঙ্গে জানালেন তার বাংলাদেশের সহকর্মীকে।

সহকর্মী খবর দিলেন পুলিশে। শনিবার রাতে গুলশান এভিনিউয়ের ৮৯ নম্বর সড়কের ভবনে ঢোকে পুলিশ। সংযুক্ত ড্রয়িং ও ডাইনিং টেবিলে অবস্থান নেয় তারা। কাউকে দেখতে না পেলেও টেবিলের ওপর কিছু রান্না করা খাবার ভর্তি কড়াই, জুসের প্যাকেট ও ওয়াইনের বোতল দেখতে পান তারা।
পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে লুকিয়েছিলেন ওই যুবক। কয়েক মিনিটের মধ্যেই একটি বেডরুমের টয়লেট থেকে গ্রেফতার করা হয় তাকে। তার নাম মাসুম। তিনি মাদকাসক্ত এবং পেশায় চোর।

গ্রেফতারের পর পুলিশি জিজ্ঞাসাবাদের মুখোমুখি করা হয় মাসুমকে। পুলিশ সূত্র জানায়, চুরির জন্য এসে বাড়িতে ঢুকে প্রচুর খাবার দেখে চুরির কথা ভুলে যান মাসুম। সেখানে তিনদিন থাকেন। ঘরের খাবারগুলো খেয়ে এই খালি ফ্ল্যাটে আরও কয়েকদিন থেকে যাওয়ার পরিকল্পনা করেছিলেন তিনি।
ঘটনার সত্যতা গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করেছেন মাসুমকে ধরার অভিযানে থাকা গুলশান থানার ইন্সপেক্টর আমিনুল ইসলাম।

তিনি জানিয়েছেন, ‘মাসুমের বিরুদ্ধে ঢাকার একাধিক থানায় মামলা রয়েছে। চুরির জন্য গ্রেফতার হয়েছিল একবার। আচার-আচরণ দেখে ধারণা করা হচ্ছে তার মানসিক সমস্যা থাকতে পারে। সে ফুটপাথে থাকে, ফ্ল্যাট খালি পেয়ে এখানে থেকে গিয়েছিল। সিসিটিভি ক্যামেরায় আমরা ফ্ল্যাটটিতে তার খাওয়ার দৃশ্য দেখতে পাই।

এদিকে, ফ্ল্যাটের মালিক যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিক এ ঘটনায় কোনও মামলা বা জিডি করতে রাজি হননি। তাই গত মার্চ মাসে গুলশান থানায় দায়ের করা একটি চুরির মামলায় তাকে গ্রেফতার দেখানো হয় মাসুমকে।

সূত্রঃ বিডি প্রতিদিন

বাঁচতে পারলেন না সাংবাদিক নান্নু; ছেলের পথ ধরলেন 

আগুনে পুড়ে ছেলের মৃত্যুর ৫ মাস না যেতেই একই ভাগ্য বরণ করতে হলো সাংবাদিক মোয়াজ্জেম হোসেন নান্নুকে। রাজধানীতে নিজ বাসায় আগুনে দগ্ধ হয়ে চিকিৎসাধীন নান্নু মারা গেছেন। আজ শনিবার সকাল ৮টা ২০ মিনিটে চিকিৎসকরা সাংবাদিক নান্নুকে মৃত ঘোষণা করেন।

মোয়াজ্জেম হোসেন নান্নু দৈনিক যুগান্তরের অপরাধ বিভাগের প্রধান। গতকাল শুক্রবার ভোররাতে আফতাবনগরের নিজ বাসায় বিকট শব্দে বিস্ফোরণের পর আগুন ধরে গেলে তিনি মারাত্মকভাবে দগ্ধ হন। পরে তাকে গুরুতর অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানেই আজ তার মৃত্যু হয়।

উল্লেখ্য যে, মাত্র ছয় মাস আগে গত ২ জানুয়ারি একই বাসায় এসি বিস্ফোরণে অগ্নিদগ্ধ হয়ে প্রাণ হারান নান্নুর একমাত্র সন্তান পিয়াস (২৪)। বাবা মায়ের চোখের সামনেই আগুনে পুড়ে মারা যান তিনি। সে সময় ধোঁয়ায় অসুস্থ হয়ে পড়েছিলেন সাংবাদিক নান্নু এবং তার স্ত্রী।

ছেলের পর এবার অগ্নিদগ্ধ সাংবাদিক নান্নু, অবস্থা সংকটাপন্ন

ক্রাইম রিপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশনের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মোয়াজ্জেম হোসেন নান্নুর বাসায় আবারো অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। আজ শুক্রবার (১২ জুন) ভোরে রাজধানীর বাড্ডার আফতাবনগরের ৩ নম্বর রোডের বি ব্লকের ৪৪/৪৬ নম্বর নিজ বাসায় হঠাৎ আগুন লাগে। এতে দগ্ধ হন সাংবাদিক নান্নু। গুরুতর অবস্থায় তাকে শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে ভর্তি করা হয়েছে।

শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটের সমন্বয়কারী ডা. সামন্ত লাল সেন জানান, রোগীর অবস্থা খুবই ক্রিটিক্যাল। তার শরীরে গভীর দগ্ধ। প্রায় ৬০ শতাংশের মতো পুড়ে গেছে। আশংকাজনক হওয়ায় ইনটেনসিভ কেয়ার ইউনিটে (আইসিইউ) স্থানান্তর করা হয়েছে।

সাংবাদিক নান্নুর স্ত্রী শাহীনা আহমেদ পল্লবী জানান, রাত্রিকালীন অফিস শেষে বাসায় ফিরে খাওয়া দাওয়ার পর রাত ৩টার দিকে হঠাৎ করে শব্দ হয়। গ্যাসের গন্ধও পাওয়া যাচ্ছিল। গ্যাস লাইনের লিকেজ থেকে সম্ভবত অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত হয়। তাতেই দগ্ধ হন তিনি।

উল্লেখ্য যে, মাত্র ছয় মাস আগে গত ২ জানুয়ারি একই বাসায় এসি বিস্ফোরণে অগ্নিদগ্ধ হয়ে প্রাণ হারান নান্নুর একমাত্র সন্তান মিউজিক ডাইরেক্টর পিয়াস (২৪)। বাবা মায়ের চোখের সামনেই আগুনে পুড়ে মারা যান তিনি। সে সময় ধোঁয়ায় অসুস্থ হয়ে পড়েছিলেন সাংবাদিক নান্নু এবং তার স্ত্রী।