জাতীয় শুদ্ধাচার পুরস্কার পেলেন এলজিইডির ইঞ্জিনিয়ার রুবাইয়াত জামান টিটো

সরকারের দেয়া দায়িত্বের প্রতি সততা, একাগ্রতা, নিয়মানুবর্তিতা, শৃংখলা, কাজের গুনগত ও সংখ্যাগত মান এ রকম ১২ টি শুদ্ধাচার বিষয়ক মূল্যায়ন সুচকে যাচাই বাছাই করে ২০২০-২১ অর্থ বছরের পুরস্কার ঘোষণা করেছে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর।

গত ২৭ মে বুধবার অধিদপ্তরের প্রধান প্রকৌশলী মোঃ আব্দুর রশিদ খান স্বাক্ষরিত অফিস আদেশের মাধ্যমে সদর দপ্তর ও মাঠ পর্যায়ের মোট ১৪ জন বিভিন্ন স্তরের কর্মকর্তাদের এ পুরস্কারের জন্য চুড়ান্ত অনুমোদন দেয়া হয়।

সরকারের উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়নে প্রকৌশলীদের বিরুদ্ধে নানা অনিয়মের খবরের মধ্যে এ খবরটি ইতিবাচক। তাই জানার জন্য ফোনে কথা হল মানিকগঞ্জ জেলার সিংগাইর উপজেলার প্রকৌশলী রুবাইয়াত জামানের সাথে। তিনি জানান- দেশের উন্নয়নে সরকার অনেক প্রকল্প গ্রহণ করছে, আমরা প্রকৌশলীরা সরকারের এসব প্রকল্প বাস্তবায়নে যারা সততা ও নিয়মানুবর্তিতার সাথে কাজ করেছি তারাই এ পুরস্কারের জন্য মনোনিত হয়েছি।

দূর্নীতি দূর করার জন্য বর্তমান সরকার সৎ কর্মকর্তাদের পুরস্কার দিচ্ছেন, যাতে অন্যরা উৎসাহিত হয়। এ পুরস্কার প্রাপ্তিতে নিজের প্রতিক্রিয়া জানাতে গিয়ে তিনি সরকারকে ধন্যবাদ দেন এবং আনন্দ প্রকাশের পাশাপাশি দায়িত্ব বেড়ে গেল বলে তিনি মন্তব্য করেন।

জানা যায়, রুবাইয়াত জামানের জন্ম ও বেড়ে ওঠা ঢাকার মিরপুরে। তিনি এশিয়া প্যাসিফিক বিশ্ববিদ্যালয় হতে সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং এ বিএসসি পাশ করেছেন। তার পিতা বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কেন্দ্রীয় কমান্ড কাউন্সিলের যুগ্ম মহাসচিব বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ আসাদুজ্জামান আরজু আর মা কবি ও কথা সাহিত্যিক রোকেয়া ইসলাম। বাবা মায়ের তিন সন্তানের মধ্যে রুবাইয়াত জামান বড় সন্তান। তার ছোট দুই বোনের মধ্যে একজন ডাক্তার ও অন্যজন ব্যাংকার।

উল্লেখ্য, তার মা রোকেয়া ইসলাম বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা প্রশিকা মানবিক উন্নয়ন কেন্দ্রের চেয়ারম্যান ও নির্বাহী সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।

মৌসুমি-ওমর সানি পুত্রের সিসা বারে অভিযান, গ্রেফতার ১১

মৌসুমি-ওমর সানি পুত্রের সিসা বার

রাজধানীর গুলশানে একটি সিসা বারে অভিযান চালিয়ে এর ম্যানেজার ও বয়সহ ১১ জনকে গ্রেফতার করেছে গুলশান থানা পুলিশ। এসময় ছয় প্যাকেট সিসা ও সিসা গ্রহণের স্ট্যান্ডসহ বিভিন্ন সরঞ্জাম উদ্ধার করেছে পুলিশ। গ্রেফতার ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা হয়েছে। সিসা বারটি তারকা দম্পতি মৌসুমি ও ওমর সানি পুত্র ফারদিন এহসান স্বাধীনের বলে জানিয়েছে পুলিশ।

বুধবার (১৯ মে) সকালে গুলশান থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল হাসান বাংলা ট্রিবিউনকে এ তথ্য জানিয়েছেন।

মৌসুমি-ওমর সানি পুত্রের সিসা বার

গুলশান অ্যাভিনিউয়ের আরএম সেন্টারের তৃতীয় তলায়  ‘মন্টানা লাউঞ্জ’ নামে এই সিসা বারটি  চালানো হতো। দেশীয় আইনে সিসা অবৈধ মাদক হিসেবে চিহ্নিত। তাই বারটির সবাইকে আটক করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন ওসি।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক পুলিশের এক কর্মকর্তা বলেন, ‘বারটি মৌসুমী পুত্র স্বাধীনের। পুলিশ পরবর্তীতে জানতে পেরেছে। তবে মাদকের বিষয়ে কারও সঙ্গে আপস নেই। তাই ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।’

গুলশান থানার ওসি জানিয়েছেন, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ওই বারে অভিযান চালানো হয়েছে। এ বিষয়ে পরবর্তীতে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এই ঘটনায় মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা হয়েছে। মামলা নম্বর ২০।

মৌসুমি-ওমর সানি পুত্রের সিসা বার

তবে মামলায় মৌসুমী পুত্র স্বাধীনকে আসামি করা হয়নি। তদন্তে তার সংশ্লিষ্টতা পাওয়া গেলে তার বিরুদ্ধে তদন্ত কর্মকর্তা ব্যবস্থা নেবেন বলে জানিয়েছে পুলিশ। বার থেকে ছয় প্যাকেট দামি সিসা, ১৭টি সিসা স্ট্যান্ড ও ২৫টি পাইপ উদ্ধার করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, মৌসুমী ও ওমর সানি দম্পতি দেশের বিভিন্ন জায়গায় মাদকবিরোধী ক্যাম্পেইনে বিভিন্ন সময়ে অংশ নিয়েছেন।

 

সূত্রঃ বাংলা ট্রিবিউন

শিবচরে বাল্কহেড ও স্পিডবোট সংঘর্ষ, ২৫ জনের মরদেহ উদ্ধার

মাদারীপুরের শিবচরে কাঠালবাড়ী-শিমুলিয়া নৌরুটের পুরাতন কাঁঠালবাড়ি ঘাটের কাছে বালুবোঝাই বাল্কহেডে যাত্রীবাহী স্পিডবোটের ধাক্কায় অন্তত ২৫ জন নিহত হয়েছে।

ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন অফিসার জানান, আজ সোমবার সকাল সাড়ে ছয়টার দিকে শিমুলিয়া ঘাট থেকে বাংলাবাজারের উদ্দেশে রওনা দেয় স্পিডবোটটি। পুরাতন কাঁঠলবাড়ি ফেরিঘাটে পৌঁছালে নোঙর করে রাখা বাল্কহেডে সজোরে ধাক্কা দেয় স্পিডবোটটি।

খবর পেয়ে নৌ-পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা ঘটনাস্থলে গিয়ে ২৫ জনের মরদেহ উদ্ধার করে। জীবিত উদ্ধার করা হয় ৪ জনকে। এদের মধ্যে দু’জনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

গাজীপুরে মৌমাছির হুলে যুবকের মৃত্যু

গাজীপুরের কালিয়াকৈরের সিনাবহ খন্দকার পাড়া এলাকায় মৌমাছির হুলে খন্দকার বিপ্লব নামের এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে।

মঙ্গলবার (২০ এপ্রিল) দুপুরে বাড়ীর পাশে বেল গাছে উঠে বেল পাড়ার সময় মৌমাছি আক্রমণে আহত হলে হাসপাতালে নেওয়ার পথে তার মৃত্যু ঘটে।

নিহত বিপ্লব (৪০) কালিয়াকৈরের সিনাবহ খন্দকার পাড়া এলাকার মৃত খন্দকার মোশারফের ছেলে।

স্থানীয় সুত্রে জানা যায়, খন্দকার বিপ্লব হোসেন মঙ্গলবার দুপুরে নিজবাড়ীর পাশে বেল পাড়ার জন্য বেল গাছে উঠেছিলেন। কিন্ত ওই গাছে থাকা মৌমাছির চাকের মৌমাছি তাকে অতির্কতভাবে হুল ফুটাতে থাকে। এ সময় বিপ্লব গাছ থেকে পরে গুরুতর আহত হন। পরে তাকে অজ্ঞান অবস্থায় উদ্ধার করে মির্জাপুর কুমুদিনী হাসপাতালে নেওয়ার পথে তার মৃত্যুঘটে।

স্থানীয় মৌচাক ইউনিয়ন পরিষদের মেম্বার আব্দুল মান্নান জানান, মৌমাছির হুলে সে গুরুতর অসুস্থ্য হয়েছিল।

৭ দিনের রিমান্ডে মামুনুল হক

রাজধানীর মোহাম্মদপুর থানা এলাকায় নাশকতার অভিযোগে করা মামলায় হেফাজত নেতা মামুনুল হকের সাতদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।

সোমবার সকালে মামুনুলকে ঢাকা মহানগর হাকিম আদালতে হাজির করে পুলিশ। এদিন ২০২০ সালের মোহাম্মদপুর থানার একটি নাশকতার মামলায় তাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য সাতদিনের রিমান্ড আবেদন করেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা।

অপরদিকে মামুনুলের আইনজীবী তার রিমান্ড বাতিল চেয়ে জামিনের আবেদন করেছেন। উভয়পক্ষের শুনানি শেষে ঢাকা মহানগর হাকিম দেবদাস চন্দ্র অধিকারী তার জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে সাতদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

এর আগে রোববার রাজধানীর মোহাম্মদপুরের জামিয়া রাহমানিয়া মাদরাসা থেকে মামুনুল হককে গ্রেপ্তার করা হয়। এ সময় ডিসি তেজগাঁও জানান, মামুনুল হকের বিরুদ্ধে ২০১৩ সালের ৫ মে হেফাজতের তাণ্ডবের ঘটনায় দায়ের হওয়া একাধিক মামলা রয়েছে।

এছাড়া সাম্প্রতিক মোদিবিরোধী আন্দোলনের সময়ও সহিংসতা করায় একাধিক মামলায় মামুনুল হকের নাম রয়েছে। প্রথমে তাকে পুরনো মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে আদালতে পাঠানো হবে। পরে একে একে সব মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে।

নিজ বাসা থেকে জাবি’র অধ্যাপক তারেক শামসুর রেহমানের মরদেহ উদ্ধার

রাজধানীতে নিজ বাসা থেকে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ও রাজনৈতিক বিশ্লেষক ড. তারেক শামসুর রেহমানের মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। শনিবার (১৭ এপ্রিল) উত্তরা অ্যাপার্টমেন্ট প্রোজেক্টের দোলনচাঁপা ভবনের নিজের ফ্ল্যাটে মৃত অবস্থায় তাকে পাওয়া যায়।

জানা যায়, উত্তরা ১৮ নম্বর সেক্টরের ওই বাসায় একাই থাকতেন ড. তারেক শামসুর রেহমান। শনিবার সকালে বাসার কাজে নিযুক্ত গৃহপরিচারিকা এলেও ভেতর থেকে কেউ দরজা না খোলায় আশপাশের লোকজনকে খবর দেয় সে। পরে পুলিশ এলে দরজা ভেঙ্গে ভেতরে ঢুকে দেখা যায় বাথরুমের সামনে পড়ে আছেন তিনি।

প্রতিবেশীরা জানান, শুক্রবারও বেশ প্রাণবন্ত ছিলেন তিনি। তাই হঠাৎ করে মৃত্যুর কোনো কারণ বলতে পারছেন না প্রতিবেশীদের কেউই।

বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের সাবেক সদস্য তারেক শামসুর রেহমান জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের অধ্যাপক ও বিভাগের সাবেক চেয়ারম্যান ছিলেন।

আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিষয়ে পিএইচডি ডিগ্রির অধিকারী অধ্যাপক রেহমান ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অনার্স ও মাস্টার্স ডিগ্রি সম্পন্ন করেন। আন্তর্জাতিক রাজনীতি, আন্তঃরাষ্ট্রীয় সম্পর্ক ও বৈদেশিক নীতি এবং তুলনামূলক রাজনীতি নিয়ে তার একাধিক গ্রন্থ রয়েছে।

তার লেখা উল্লেখযোগ্য গ্রন্থগুলোর মধ্যে রয়েছে ইরাক যুদ্ধ পরবর্তী আন্তর্জাতিক রাজনীতি, গণতন্ত্রের শত্রু-মিত্র, নয়া বিশ্বব্যবস্থা ও আন্তর্জাতিক রাজনীতি, বিশ্ব রাজনীতির চালচিত্র, উপআঞ্চলিক জোট, ট্রানজিট ইস্যু ও গ্যাস রফতানি প্রসঙ্গ, বাংলাদেশঃ রাষ্ট্র ও রাজনীতি, বাংলাদেশঃ রাজনীতির ২৫ বছর, বাংলাদেশঃ রাজনীতির চার দশক, গঙ্গার পানি চুক্তিঃ প্রেক্ষিত ও সম্ভাবনা, সোভিয়েত-বালাদেশ সম্পর্ক, বিশ্ব রাজনীতির ১০০ বছর ইত্যাদি।

অধ্যাপনার পাশাপাশি ড. রেহমান নিয়মিত কলাম লিখতেন। প্রায় প্রতিটি জাতীয় দৈনিকে তার কলাম নিয়মিত ছাপা হতো।

রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়, বাংলাদেশ এর জনসংযোগ দপ্তরের পাবলিক রিলেশন অফিসার মোঃ শাহ্ আলী এসব তথ্য নিশ্চিত করেন


ইউজিসি’র সাথে রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি

উচ্চ শিক্ষায় সুশাসন ও সম্পদের যথাযথ ব্যবহার নিশ্চিত করতে মঙ্গলবার বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের সাথে রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়, বাংলাদেশ’র বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি (এপিএ) স্বাক্ষরিত হয়েছে। উক্ত চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়, বাংলাদেশ’র রেজিস্ট্রার মোঃ সোহরাব আলী এবং বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তির ফোকাল পয়েন্ট হিসেবে উপস্থিত ছিলেন অর্থ ও হিসাব দপ্তরের পরিচালক মোঃ গোলাম সরোয়ার। মঙ্গলবার (১৫ সেপ্টেম্বর) ইউজিসি অডিটরিয়ামে চলতি অর্থবছরের চুক্তি সম্পাদন এবং ২০১৯-২০২০ অর্থবছরের এপিএ’র মূল্যায়ন সভা অনুষ্ঠিত হয়। ২০২০-২০২১ অর্থবছরের জন্য গত দুইদিন ১ম ও ২য় পর্র্যায়ে ইউজিসি’র সঙ্গে ২৯টি বিশ্ববিদ্যালয়ের চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। সরকারি কর্মকান্ডে স্বচ্ছতা ও দায়বদ্ধতা বৃদ্ধি, সম্পদের সুষম ব্যবহার নিশ্চিতকরণ এবং প্রাতিষ্ঠানিক সক্ষমতা উন্নয়নের লক্ষ্যে এপিএ প্রবর্তন করা হয়। কমিশনের সচিব (অতিরিক্ত দায়িত্ব) ড. ফেরদৌস জামান এর সভাপতিত্বে চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ইউজিসি চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. কাজী শহীদুল্লাহ। অনুষ্ঠানে ইউজিসি সদস্য অধ্যাপক ড. দিল আফরোজা বেগম, অধ্যাপক ড. মোঃ সাজ্জাদ হোসেন, অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ আলমগীর, অধ্যাপক ড. বিশ্বজিৎ চন্দ এবং অধ্যাপক ড. মো. আবু তাহের বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন। কমিশনের সচিব (অতিরিক্ত দায়িত্ব) ও বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর রেজিস্ট্রারবৃন্দ নিজ নিজ প্রতিষ্ঠানের পক্ষে চুক্তিতে স্বাক্ষর করেন।
ভার্চুয়াল প্লাটফর্মে প্রধান অতিথির ভাষণে অধ্যাপক ড. কাজী শহীদুল্লাহ বলেন, নিয়ম-শৃঙ্খলা ও মানসম্পন্ন প্রশাসন উচ্চশিক্ষার ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে। উচ্চশিক্ষাকে এগিয়ে নিতে সুশাসন অবশ্যই প্রতিষ্ঠা করতে হবে। সম্পদের সুষ্ঠু ব্যবহারও নিশ্চিত করতে হবে। জনগণের কষ্টের টাকা কোনক্রমেই অপচয় করা যাবে না। প্রতিটি বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রারকে আইন শৃঙ্খলা মেনে দক্ষ ভূমিকা রাখতে হবে। আইনের ব্যত্যয় হলে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তির সফল বাস্তবায়ন নিশ্চিত করতে নিজ নিজ অবস্থান থেকে ভূমিকা রাখতে হবে। উক্ত অনুষ্ঠানে ১৯ টি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার, এপিএ’র ফোকাল পয়েন্ট এবং ইউজিসি’র কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়, বাংলাদেশ এর জনসংযোগ দপ্তরের পাবলিক রিলেশন অফিসার মোঃ শাহ্ আলী এসব তথ্য নিশ্চিত করেন।
উল্লেখ্য, ২০১৬-২০১৭ অর্থবছর থেকে ইউজিসি প্রতিবছর পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের সঙ্গে এ চুক্তি স্বাক্ষর করে আসছে।

বন্যার্তদের পাশে দাড়ালেন ডিইউজে’র সাংগঠনিক সম্পাদক জিহাদুর রহমান জিহাদ

মুকসুদপুরে বন্যাকবলিত এলাকায় ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সাংগঠনিক সম্পাদক এ জিহাদুর রহমান জিহাদের উদ্যোগে বন্যার্ত মানুষের মাঝে মঙ্গলবার ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে।

সাম্প্রতিক বন্যায় দেশের বেশ কিছু জেলার চরাঞ্চল ও নিচু এলাকাসহ বিস্তীর্ণ এলাকার বহু ঘরবাড়ি ও রাস্তাঘাট প্লাবিত হয়েছে। এতে পানিবন্দী হয়ে পড়েছে লাখ লাখ মানুষ। বন্যার এ ভয়াল থাবা থেকে রক্ষা পায়নি মুকসুদপুর উপজেলাও। অসহায় পরিবারগুলো এখন মানবেতর জীবন যাপন করছে।

ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সাংগঠনিক সম্পাদক এ জিহাদুর রহমান জিহাদের ব্যক্তিগত তহবিল থেকে এলাকার বন্যার্ত ক্ষতিগ্রস্ত ও করোনাকালিন সময়ে দুস্থ পরিবারের মধ্যে চাল, ডাল, আলুসহ নিত্য প্রয়োজনীয় খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করেন। এ সময় স্থানীয় গণ্যমান্য রাজনৈতিক ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

এছাড়াও তিনি চলমান করোনা কালীন সময়ে সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে মাক্স, হ্যান্ড গ্লাভস, পিপিইসহ সুরক্ষা সামগ্রীও বিতরণ করেন।

পশু কোরবানিতে ব্যস্ত নগরবাসী

ছবি: ইন্টারনেট

আজ পবিত্র ঈদুল আজহা। মহামারি করোনাভাইরাস পরিস্থিতির মাঝে সকালে মসজিদে মসজিদে ঈদুল আজহার নামাজ আদায় শেষে পশু কোরবানিতে ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন নগরবাসী। কাকডাকা ভোরে ঘুম ভেঙে পশুকে কোরবানি করার জন্য গোসল করিয়ে প্রস্তুত করে রাখা হয়েছে।

এছাড়া নিজেরাও গোসল করে জামা কাপড় পরিধান করে এবং আঁতর সুগন্ধি মেখে নামাজ আদায়ের জন্য মসজিদের ছুটে চলেছেন। স্বাস্থ্যবিধি বজায় রেখে নির্দিষ্ট দূরত্বে বসে এবং মাস্ক পরিধান করে মুসল্লিরা নামাজের জন্য অপেক্ষা করতে থাকেন। মসজিদের ইমাম এ সময় খুতবা পাঠ করেন।

খুতবা পড়ার সময় কিভাবে কোরবানি করতে হবে, কোরবানির মাংস কিভাবে বিলিবণ্ঠন করতে হবে ইত্যাদি সম্পর্কে বয়ান করেন। এছাড়াও বয়ানে মহামারি করোনাভাইরাস ও চলমান বন্যা থেকে দেশবাসীকে রক্ষার জন্য মহান আল্লাহর দরবারে ফরিয়াদ জানান। নামাজ আদায় শেষে আল্লাহর কাছে দেশের মঙ্গল কামনায় মোনাজাত করা হয়।

অন্যান্য বছরের মতো এবার ঈদের নামাজ আদায় শেষে প্রচলিত রেওয়াজ অনুযায়ী কোলাকুলি করেননি। নামাজ আদায় শেষে মুসল্লিরা কুরবানির পশু জবাইয়ের ব্যস্ত হয়ে পড়েন।

জাতীয় বায়তুল মোকাররম মসজিদের আজ সর্বমোট সাতটি জামাত অনুষ্ঠিত হবে। অন্যান্য বছর পশু জবাই করা পর্যন্ত প্রায় প্রতিটি পরিবারের শিশুরা উপস্থিত থাকলেও এবার ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কায় শিশুরা উপস্থিত ছিল না।

ঢাকার চারপাশের নদ-নদীর পানি বাড়ছে

ঢাকার চারপাশের নদ-নদীর পানি বাড়ছে

দেশের উত্তরাঞ্চলের পর গত কয়েকদিন ধরে মধ্যাঞ্চলের নদীগুলোতে বিপদসীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে উজানের ঢলে আসা বন্যার পানি। বানের পানিতে তলিয়ে গেছে ফসলের ক্ষেত, বাড়ির আঙ্গিনা। বহুস্থানে বিলীন হয়েছে মানুষের বসত ভিটা। উত্তর ও মধ্যাঞ্চলের পর এবার বন্যার পানির এই ঢলে প্লাবিত রাজধানীর নিম্নাঞ্চলও। ফলে বালু ও শীতলক্ষ্যা নদী তীরবর্তী মানুষের নিত্য দিনের ভোগান্তি বেড়েছে। সড়ক পথ পানি নিচে থাকায় এই এলাকার মানুষের এখন একমাত্র বাহন হয়েছে নৌকা।

সরকারি হিসেবে দেশের উত্তর ও উত্তরপূর্বাঞ্চলের ২৫ জেলায় এখন চলছে বন্যা। কুড়িগ্রাম, লালমনিরহাট, সিরাজগঞ্জ, জামালপুর, সিলেট ও সুনামগঞ্জসহ ১৮টি জেলায় বন্যা পরিস্থিতি ভয়াবহ রূপ নিয়েছে। অতি বর্ষণ ও পাহাড়ি ঢলে দেশের নদ-নদীর ধারণ ক্ষমতার অতিরক্ত এই পানির ঢল এসে এখন ধাক্কা দিচ্ছে রাজধানীর নিন্মাঞ্চলেও। ঢাকার চারপাশের ফসলের মাঠ বহু আগেই তলিয়েছে। এখন ঘরে মেঝেতে ঢেউ তুলছে বন্যার পানি। জীবন যাত্রা হয়ে ওঠেছে দুর্বিসহ।

নদী তীরবর্তী কেরানীগঞ্জ, সাভার, টঙ্গী ও নারায়ণগঞ্জের নিম্নাঞ্চল পানিতে তলিয়ে গেছে। রাস্তাঘাট তলিয়ে যাওয়ায় চলাচলের একমাত্র বাহন হয়েছে নৌকা। শ্রাবনের টানা বৃষ্টি আর নদীর পানি বাড়ার কারণে রাজধানীর শহরতলী খ্যাত নন্দীপড়া, সাতারকুল, ডেমরা ও মেরাদিয়াসহ বেড়িবাধের বাইরে থাকা বেশিরভাগ এলাকা এখন পানির নিচে। ফসলের মাঠে শুধুই জলরাশির ঢেউ।

নদীর পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় সিটি করপোরেশনের ভিতের ঢাকা ওয়াসা ও পানি উন্নয়ন বোর্ডের খালের পানি উল্টো শহরের ভেতরে আসায় স্লুইস গেইটগুলো বন্ধ করে দিয়েছে। নগরের ভেতরের পাঁচটি পাম্পস্টেশন দিয়ে সেচ করে পানি ফালাচ্ছে নদীতে। বিপদসীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে বালু ও শীতালক্ষ্যা নদীর পানি।

আবহাওয়া পূর্বাভাস বলছে, আগামী সপ্তাহ জুড়েই থেমে থেমে বৃষ্টি অব্যাহত থাকবে দেশের উত্তর ও উত্তর পূর্বাঞ্চলসহ মধ্যাঞ্চলেও। সে কারনে সব নদীর পানি বৃদ্ধি অব্যাহত থাকবে। বিপদসীমার ওপরে প্রবাহিত হওয়ার আশঙ্কার কথা জানান বন্যা পূর্বাভাস কেন্দ্র। ঢাকার আশপাশের নিম্নাঞ্চলের প্লাবিত এলাকার মানুষের জন্য আশ্রয়কেন্দ্র প্রস্তুত রাখার পরামর্শ দিয়েছে বিশেষজ্ঞরা।