সেপ্টেম্বরেই খুলছে তাজমহল, আগ্রা ফোর্ট!

মহামারী করোনাভাইরাসের কারণে দীর্ঘ ছয় মাস বন্ধ থাকার পর অবশেষে খুলতে চলেছে বিশ্বের সপ্তম আশ্চর্যের অন্যতম ভারতের দর্শনীয় স্থান ‘তাজমহল’। আগামী ২১ সেপ্টেম্বর দর্শণার্থীদের জন্য তাজের দরজা খুলে দেওয়া হবে বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছে স্থানীয় প্রশাসন। তবে প্রাথমিকভাবে দিনে মাত্র ৫ হাজার পর্যটককে তাজের ভিতরে প্রবেশের অনুমতি দেওয়া হবে। অন্যদিকে ওই একই দিনে খুলে দেওয়া হবে আগ্রা ফোর্টের প্রবেশদ্বার। সেখানে প্রতিদিন আড়াই হাজার দর্শক ঢোকার অনুমতি পাবেন।

উল্লেখ্য, সম্রাজ্ঞী মুমতাজের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করতে মুঘল সম্রাট শাহ জাহান ভারতের আগ্রায় এই অনন্য স্থাপত্যটি তৈরি করেন। মুঘল স্থাপত্যের শ্রেষ্ঠ নমুনা হিসাবে বিবেচিত হয় তাজমহল। ১৯৮৩ সালে একে ওয়ার্ল্ড হেরিটেজ সাইট হিসাবে ঘোষণা করে ইউনেস্কো এবং ভারতে অবস্থিত ‘মুসলিম শিল্পের রত্ন’ বলেও একে আখ্যায়িত করা হয়। শুধু ভারত নয়, বিশ্বের ঐতিহ্যের সর্বজনীনভাবে প্রশংসিত একটি নিদর্শন মার্বেল পাথরের এই তাজমহল। আর তার সৌন্দর্যেই প্রতি বছরই কয়েক লাখ পর্যটক আসেন এই তাজমহলে। কিন্তু করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে গত ১৭ মার্চ তাজমহল, আগ্রা ফোর্ট, ফতেপুর সিক্রিসহ প্রতিটি দর্শনীয় স্থানেই প্রবেশ বন্ধ করে দেওয়া হয়। এসময় তাজে প্রতিদিন গড়ে ৮০ হাজার দর্শক প্রবেশের অনুমতি পেতেন, অন্যদিকে আগ্রা ফোর্টে ঢোকার অনুমতি পেতেন দিনে ৩০ হাজার মানুষ।

আগ্রার জেলা প্রশাসক প্রভু এন. সিং জানান, কোভিড-১৯ নিয়ে কেন্দ্রীয় সরকার ও উত্তরপ্রদেশ রাজ্য সরকারের জারি করা সমস্ত গাইডলাইন মেনেই আগামী ২১ সেপ্টেম্বর তাজমহলের সাথেই আগ্রা ফোর্টের প্রবেশদ্বারও দর্শকদের জন্য খুলে দেওয়া হবে। সেক্ষেত্রে তাজমহলে দৈনিক গড়ে ৫ হাজার দর্শক ও আগ্রা ফোর্টে দৈনিক গড়ে আড়াই হাজার মানুষকে প্রবেশ করতে পারবেন।’
তাজে ঢোকার প্রতিটি গেটেই দর্শকদের শারীরিক তাপমাত্রা পরীক্ষা করে দেখা হবে বলেও জানান তিনি।

তাজমহলের রক্ষাবেক্ষণের দায়িত্বে থাকা ‘আর্কিওলজিক্যাল সার্ভে অব ইন্ডিয়া’র (এএসআই)-এর প্রত্নতত্ত্ববিদ বসন্ত কুমার স্বর্ণকার জানান, কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য ও সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়ের করোনা স্বাস্থ্যবিধি মেনে সমস্ত ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। কেবলমাত্র ই-টিকিটের মাধ্যমেই তাজমহলে প্রবেশের সুযোগ থাকছে। তাজের ভিতর সমস্ত টিকিট কাউন্টার বন্ধ রাখা হচ্ছে।

তিনি আরও জানান, তাজমহলের পুরো চত্ত্বরেই দিনে দুইবার করে স্যানিটাইজ করা হবে। এছাড়াও মানুষের মধ্যে সচেতনতা বৃদ্ধি করতে অর্থাৎ সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে, তাজের মার্বেল, দরজা বা রেলিং স্পর্শ না করতে-গোটা তাজ চত্বর জুড়েই ছোট আকারে পোস্টারও টাঙানো হচ্ছে।

করোনার আবহে স্থাপত্য চত্ত্বরে দলবদ্ধভাবে ছবি তোলার ক্ষেত্রেও নিষেধাজ্ঞা থাকছে। প্রত্যেক দর্শকদের কাছে নিজস্ব স্যানিটাইজার ও পানির বোতল রাখার পাশাপাশি তাজমহল দর্শনের জন্য তাদের তিন ঘণ্টা সময় বেঁধে দেওয়া হয়েছে। আগ্রা ট্যুরিস্ট ওয়েলফেয়ার চেম্বার’এর সভাপতি প্রহ্লাদ আগরওয়ালের অভিমত, তাজমহল ও আগ্রা ফোর্ট খোলার আগে আন্তর্জাতিক বিমান চলাচলু ও শহরের ট্রেন সেবা চালু করা দরকার।

আগ্রা ট্যুরিজম গিল্ডের সাবেক চেয়ারম্যান অরুন দাং জানান, কখনও এত দীর্ঘ সময় তাজমহল বন্ধ ছিল না। এতে আগ্রার পর্যটন শিল্পের যে ক্ষতি হল তা কখনই পূরণ হওয়ার নয়।

তথ্য সুত্রঃ বিডি প্রতিদিন

বিশ্বের প্রথম বৈদ্যুতিক ‘উড়ন্ত’ স্পিডবোট যাত্রা শুরু

বিশ্বের প্রথম বৈদ্যুতিক ‘উড়ন্ত’ স্পিডবোট যাত্রা শুরু করেছে। ‘ক্যান্ডেলা সেভেন’ নাম দিয়ে এটি উদ্ভাবন করেছে সুইডেনের স্টকহোমভিত্তিক প্রতিষ্ঠান ডব্লিউএআর বুটবাউ অ্যান্ড বুথান্ডেল এজি। একে উড়ন্ত স্পিডবোট বলার কারণ হলো, এটি ঢেউয়ের ওপর দিয়ে অনেকটা ভেসে চলতে পারে। খবর: রয়টার্স।  নৌযানটির নিচের একটি ধাতব কাঠামো বা ফয়েল এটিকে পানির স্তর থেকে কিছুটা ওপরে তুলতে পারে। এতে ধেয়ে আসা ঢেউ স্পিডবোটটির নিচ দিয়ে চলে যায়। উদ্ভাবকদের দাবি, নৌযানটিতে থাকা কম্পিউটার প্রতি সেকেন্ডে ১০০ বার করে স্বয়ংক্রিয়ভাবে ফয়েলের অবস্থান সমন্বয় করতে পারে। এতে দুলুনি লাগে অনেক কম। দুলুনি কম হওয়ায় দুই ধরনের সুফল পাওয়া গেছে। প্রথমত, দীর্ঘ যাত্রাজনিত অসুস্থতা কমে আসে। দ্বিতীয়ত, পানির সঙ্গে স্পিডবোটের নিচের পৃষ্ঠের ঘর্ষণ কম হওয়ায় শক্তির ব্যয় কম হয়।

প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠানের দাবি, ডিজেলচালিত স্পিডবোটের তুলনায় এ স্পিডবোটে শক্তির খরচ ৮০ শতাংশ কম হয়। শব্দও কম হয় এতে। এই ষ্পিডবোট ঘণ্টায় ৫৫ কিলোমিটার বেগে ছুটতে পারে। অন্যান্য বিদ্যুৎচালিত নৌযানের চেয়ে এটি বেশি দূরত্বও অতিক্রম করতে পারে।

ডব্লিউএআর বুটবাউ অ্যান্ড বুথান্ডেল এজির ওই স্পিডবোট এরই মধ্যে সুইজারল্যান্ডের লুসারনা হ্রদে ভাসতে শুরু করেছে। প্রতিষ্ঠানটির ব্যবস্থাপক ক্রিশ্চিয়ান ভোগেল বলেন, যেহেতু স্পিডবোটে কোনো ঢেউ আঘাত করবে না, কাজেই কোনো দুলুনিও থাকবে না। তিনি বলেন, এ পর্যন্ত বিদ্যুৎচালিত যত নৌযান উদ্ভাবিত হয়েছে, সেগুলোর ক্ষেত্রে হয় গতি, না হয় পাল্লার বিষয়টি ছাড় দিতে হয়েছে। কিন্তু ক্যান্ডেলা সেভেনে দুটোই পাওয়া যাবে। একেকটি স্পিডবোটের দাম পড়বে দুই লাখ ৯৬ হাজার ডলার।

ভারতে স্বর্ণের দাম পড়ে দাঁড়াল ৫০ হাজারের ঘরে!

ভারতে ক্রমেই কমতে শুরু করেছে স্বর্ণের দাম। উৎসবের মৌসুমের আগে স্বর্ণের দামের কমতি বিক্রেতাদের মুখে হাসি ফোটাতে শুরু করেছে। অন্যদিকে, বাজারে সোনার দাম কনতে থাকায় বিনিয়োগকারীদের কপালে চিন্তার ভাঁজ। ভারতের এমসিএক্স ফিচারে সোনার দাম দাঁড়িয়েছে ৫০,৭৭১ টাকা (ভারতয়ি রুপি)। এদিন ১০ গ্রামের হিসাবে ০.১ শতাংশ কমতে শুরু করে সোনার দাম।

জানা গেছে, বিশ্ববাজারেও এদিন সোনার দাম অনেকটাই কমতিতে ছিল। বিশ্ববাজারে দাম ১.৪ শতাংশ কমেছে। এর প্রভাব বিশ্বের অনেক দেশের স্বর্ণের বাজারেও পড়েছে। এদিকে, ভারতে রুপার দাম এদিন এমসিএক্স ফিচারে ০.০৫ শতাংশ পড়েছে। ফলে এক কেজিতে রুপার দাম ৬৮, ২৮৭ টাকা হয়েছে। এই নিয়ে পর পর দিনে নামল রুপার দর।

ওয়ান ইন্ডিয়ার প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ২২ ক্যারেটে কলকাতায় সোনার দাম আজ ৪৯,৯৯০ টাকা ছিল। উল্লেখ্য, অন্যান্য শহরও ২২ ক্যারেটের দাম এমনই হারে বজায় রেখেছে আজ। কলকাতায় ২৪ ক্যারেটে সোনার দাম আজ ৫২, ৬৯০টাকা হয়েছে। চেন্নাইতে এদিন সোনার দাম ২২ ক্যারেটে ছিল ৪৮, ৭৭০ টাকা। ২৪ ক্যারেটে ছিল ৫৩, ২০০ টাকা। মুম্বাইতে সোনার দাম আজ ২২ ক্যারেটে ছিল ৪৯, ৩৪০ টাকা। ২৪ ক্যারেটে ৫০,৩৪০ টাকা। দিল্লিতে সোনার দাম ২২ ক্যারেটে ৪৯৬০০ টাকা। ২৪ ক্যারেটে ৫৪,১১০ টাকা ছিল।

বিডি-প্রতিদিন

করোনায় বিপর্যস্ত ভারত, একদিনেই ৮৩ হাজার করোনা রোগী শনাক্ত

করোনাভাইরাসের হানায় বিপর্যস্ত ভারত। আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা প্রতিদিনই বাড়ছে। ভারতে গত ২৪ ঘণ্টায় ৮৩ হাজার ৮৮৩ জন করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছে। এর মধ্য দিয়ে বিশ্বে একদিনে সর্বাধিক সংখ্যক কোভিড রোগী শনাক্তের রেকর্ড করে ভারত। এতে দেশটিতে এখন পর্যন্ত শনাক্ত রোগীর সংখ্যা দাঁড়ালো ৩৮ লাখ ৫৩ হাজার ৪০৬।

এদিকে, ভারতে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ১ হাজার ৪৩ জন মারা গেছেন। দেশটিতে এখন পর্যন্ত এ রোগে মারা গেছেন ৬৭ হাজার ৩৭৬ জন। তবে আক্রান্ত আর মৃত্যুর মধ্যেও ভারতে করোনা থেকে সুস্থ হয়েছেন ২৯ লাখ ৭০ হাজার ৪৯২ জন। এর মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ৬৮ হাজার ৫৮৪ জন।

করোনাভাইরাসে সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত ভারতের মুম্বাইয়ের মহারাষ্ট্র। এরপরই রয়েছে যথাক্রমে অন্ধ্রপ্রদেশ, তামিলনাড়ু, কর্ণাটক, উত্তরপ্রদেশ, দিল্লি, পশ্চিমবঙ্গ, বিহার, তেলেঙ্গানা, আসাম, উড়িষ্যা ও গুজরাট।

বিডি-প্রতিদিন

ইসরাইলকে সৌদির আকাশ ব্যবহারের অনুমতি

ইসরাইলকে নিয়মিতভাবে নিজেদের আকাশসীমা ব্যবহারের অনুমতি দিয়েছে সৌদি আরব। বুধবার সংযুক্ত আরব আমিরাতের অনুরোধে দেশটি ইসরাইলের বিমানকে তাদের আকাশসীমা ব্যবহার করার অনুমতি দিয়েছে। খবর নিউইয়র্ক টাইমসের।

খবরে বলা হয়েছে, দুবাইয়ের অনুরোধের পর আরব আমিরাতের সঙ্গে যেকোনো দেশ থেকে বিমান যোগাযোগে সৌদি আরবের আকাশ সীমা ব্যবহার করার অনুমতি দিয়ে ঘোষণা পত্র প্রকাশ করা হয়। এতে করে দুবাই ও তেলআবিবের মধ্যে বিমান যোগাযোগের সময় ও খরচ অর্ধেক কমে আসবে।

এর আগে দেশ দু’টির বিমান যোগাযোগে দুটি আলাদা দেশে অবতরণ করে তারপর আমিরাতে প্রবেশ করাতে হতো। এখন সেটির আর প্রয়োজন হবে না। এর ফলে মধ্যপ্রাচ্যে ইসরাইল নিজেদের ব্যবসায় এবং পর্যটনের ক্ষেত্রে নতুন দিগন্তের সূচনা করবে।
১৩ আগস্ট দুবাইয়ের সঙ্গে তেল আবিবের হওয়া ‘সম্পর্ক স্বাভাবিককরণ’ চুক্তির পর বেশ কয়েকটি চুক্তি হয়। এর মধ্যে দু’দেশের মধ্যে বিমান যোগাযোগ চালুর সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। গত সোমবার (৩১ আগস্ট) ইসরাইলি পতাকাবাহী বিমানটি তেল আবিব থেকে উড্ডয়ন করে। ফ্লাইটে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের শীর্ষ সহযোগীদের সঙ্গে ছিলেন ইসরাইলি প্রধানমন্ত্রী বিনইয়ামিন নেতানিয়াহু।

বিডি প্রতিদিন

ভারতে এবার পাবজিসহ ২২৪ চীনা অ্যাপ নিষিদ্ধ

ভারতে নিষিদ্ধ হয়ে ঘোষণা করা হল জনপ্রিয় গেমিং অ্যাপ পাবজি (PUBG)। সেইসঙ্গে শতাধিক অ্যাপ নিষিদ্ধ ঘোষণা করল নরেন্দ্র মোদি সরকার। মোট ১১৮টি চীনা অ্যাপ ব্যান করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ভারত। খবর এনডিটিভির।

ভারতের কেন্দ্রীয় তথ্য ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে এই সিদ্ধান্তের কথা ঘোষণা করা হয়েছে। দেশটির প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, এইসব অ্যাপ ভারতের সার্বভৌমত্বের পরিপন্থী। তাই এমন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

উল্লেখ্য, গত মাসে ৪৭ টি ও এর আগে ৫৯ টি চীনা অ্যাপ নিষিদ্ধ করে ভারত সরকার। তখন থেকেই ভারতের নজরে ছিল এই জনপ্রিয় অনলাইন গেম অ্যাপ পাবজিও। এখন পর্যন্ত ভারত টিকটক, উইচ্যাট ও ইউসি ব্রাউডারসহ ২২৪ চীনা অ্যাপ নিষিদ্ধ করেছে। ফলে ভারতের এই সিদ্ধান্ত চীন বড়সড় ধাক্কা খেয়েছে বলেই মনে করা হচ্ছে।

বিডি-প্রতিদিন

কাশ্মীর সীমান্তে পাকিস্তানের গুলিতে ভারতীয় সেনা কর্মকতা নিহত

জম্মু-কাশ্মীর সীমান্তের রাজৌরি এলাকায় পাকিস্তানি সেনাদের গুলিতে ভারতীয় সেনাবাহিনীর এক জুনিয়র কমিশন্ড অফিসার (জেসিও) নিহত হয়েছেন। আজ বুধবার ওই সীমান্ত নিয়ন্ত্রণ রেখায় এ ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, উপত্যকা এলাকায় চীনা বাহিনীর হামলায় এক সেনা নিহতের ঘটনা সামনে আসার মধ্যেই এ ঘটনা ঘটল।ভারতীয় সেনাবাহিনীর সূত্র জানায়, পাকিস্তানি সেনারা যুদ্ধবিরতি ভঙ্গ করে কেরি সেক্টরে গুলি চালায়। এতে ওই জুনিয়র কমিশন্ড অফিসার (জেসিও) গুলিতে গুরুতর আহত হন। পরে তিনি মারা যান। এ ঘটনায় পাকিস্তানকেও জবাব দেওয়া হয়েছে।

খবরে বলা হয়েছে, চার দিনের মাথায় এটি দ্বিতীয় ঘটনা। এর আগে ৩০ আগস্ট রাজৌরি জেলার নওশেরা এলাকায় পাকিস্তানি সেনাবাহিনীর গুলিতে ভারতীয় সেনাবাহিনীর এক জেসিও নিহত হয়েছেন।

সূত্র : টাইমস অব ইন্ডিয়া।

বিডি-প্রতিদিন

পুড়ছে আমাজন, পরিস্থিতি গতবারের থেকেও ভয়াবহ!

এ বছর গতবারের চেয়েও ভয়াবহভাবে পুড়ছে আমাজন। প্রকৃতি বিজ্ঞানী ও ব্রাজিলের সংবাদ মাধ্যমে আমাজন বনাঞ্চলের দাবানল নিয়ে ভয়ঙ্কর তথ্য আসতে শুরু করেছে। যদিও ব্রাজিল সরকার এমনটি স্বীকার করছে না।

কিন্তু ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি জানাচ্ছে, এ নিয়ে বিশেষজ্ঞরা চিন্তিত। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, গত বছরের চেয়ে আরও বেশি খারাপ হতে যাচ্ছে আমাজনে এই বছরের দাবানল পরিস্থিতি। স্যাটেলাইট থেকে প্রাপ্ত ছবি বলছে, জানুয়ারি থেকে জুলাই পর্যন্ত ব্রাজিলের অংশে পড়া আমাজনের ১৩ হাজার বর্গকিলোমিটারের বেশি অঞ্চল পুড়ে ছাই। আমাজনের দাবানল আরও বাড়বে বলেই আশঙ্কা। আমাজনে প্রতিবছর আগুন কী করে লাগছে প্রশ্ন তুলছেন বিজ্ঞানীরা।

বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়, গতবারের মতো এবারেও হুমকির মুখে পরিবেশের ভারসাম্য।
এদিকে, অভিযোগ রয়েছে‌ কাঠ ব্যবসায়ীদের অবাধ ছাড়, জমি ও খনি মাফিয়াদের সুযোগ করে দেওয়া হচ্ছে। এছাড়া বিভিন্ন সংস্থাকে আমাজনের দুর্লভ খনিজ সম্পদ তোলার অনুমতি দিতেই আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয়েছে বলেও ব্রাজিল সরকারের বিরুদ্ধে অভিযোগ আনা হয়েছে ।

তথ্য সুত্রঃ বিডি প্রতিদিন

একদিনে সর্বোচ্চ করোনা শনাক্তের বিশ্বরেকর্ড গড়লো ভারত

যুক্তরাষ্ট্রকে টেক্কা দিয়ে একদিনে সর্বোচ্চ সংখ্যক ব্যক্তির করোনা ভাইরাস শনাক্তের বিশ্বরেকর্ড গড়লো ভারত। টানা কয়েকদিন নিজেদের রেকর্ড ভেঙে চলেছিল।

শুক্রবার (২৮ আগস্ট) গত ২৪ ঘণ্টায় ৭৭ হাজার ২৬৬ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। গত ১৬ জুলাই যুক্তরাষ্ট্রে শনাক্ত হয়েছিল ৭৭ হাজার ২৫৫ জনের। সে রেকর্ড এদিন ভাঙলো ভারত।
শনিবার (২৯ আগস্ট) আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যম সিএনএন ও ভারতীয় সংবাদ মাধ্যম টাইমস অব ইন্ডিয়া, এনডিটিভি এ তথ্য জানায়।

গত ২৪ ঘণ্টায় মারা গেছেন ১ হাজার ৫৭ জন। এ নিয়ে মোট মৃত্যু দাঁড়িয়েছে ৬১ হাজার ৫২৯ জনে। মোট শনাক্ত ৩৩ লাখ ৮৭ হাজার ৫শ। এ পর্যন্ত সুস্থ হয়েছে ২৫ লাখ ৮৪ হাজার। এর আগে এক দিনে সর্বোচ্চ ১০ লাখের বেশি নমুনা পরীক্ষার রেকর্ড গড়ে ভারত। মৃত্যুর সংখ্যায়ও প্রতিদিন যুক্তরাষ্ট্র, ব্রাজিল, মেক্সিকোকে হার মানাচ্ছে।

করোনা ভাইরাসে সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত রাজ্য মহারাষ্ট্র। এরপরই রয়েছে যথাক্রমে তামিলনাড়ু, অন্ধ্রপ্রদেশ, কর্ণাটক, উত্তরপ্রদেশ, দিল্লি, পশ্চিমবঙ্গ, বিহার, তেলেঙ্গানা, আসাম ও গুজরাট।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার তথ্য অনুযায়ী, ৪ আগস্ট থেকে বিশ্বে দৈনিক সবচেয়ে বেশি কোভিড রোগী শনাক্ত হচ্ছে ভারতে। মোট রোগীর সংখ্যার দিক থেকে যুক্তরাষ্ট্র ও ব্রাজিলের পরই ভারতের অবস্থান।

তথ্য সুত্রঃ বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

করোনাভাইরাস: রোলস-রয়েসের ৫৪০ কোটি পাউন্ড ক্ষতি

করোনাভাইরাসের কারণে চলতি বছরের প্রথমার্ধে রেকর্ড পরিমাণ ক্ষতির মুখে পড়েছে ব্রিটিশ অ্যারোস্পেস জায়ান্ট রোলস-রয়েস। সংস্থাটি জানায়, ২০২০ সালের জানুয়ারি থেকে জুন পর্যন্ত তাদের নিট ক্ষতি হয়েছে ৫৪০ কোটি পাউন্ড। খবর বিবিসি।

এ বিষয়ে রোলস-রয়েসের প্রধান নির্বাহী ওয়ারেন ইস্ট বিবিসিকে বলেন, করোনাকালীন ভ্রমণ চাহিদা কমে যাওয়ার ফলে এই পরিস্থিতি দাঁড়িয়েছে। ২০১৯ সালে যে চাহিদা ছিল, সেটি আগামী ৫ বছরেও ফিরে আসবে না।

এদিকে, কোম্পানিটি ৩ হাজার কর্মী ছাঁটাই পরিকল্পনার অংশ হিসেবে যুক্তরাজ্যের নটিংহ্যামশায়ার ও ল্যাঙ্কাশায়ারের কারখানা বন্ধ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। বিশ্বে কোম্পানিটির ৫০ হাজার কর্মী রয়েছে। এর মধ্যে শুধু ২৫ হাজার যুক্তরাজ্যের। এর আগে অবশ্য কোম্পানিটি ব্যয় কমানোর লক্ষ্যে তার বৈশ্বিক কর্মী বাহিনীর এক-পঞ্চমাংশ ছাঁটাইয়ের পরিকল্পনার কথা জানিয়েছিল।
রোলস-রয়েসের প্রধান নির্বাহী ওয়ারেন ইস্ট বিবিসির টুডে প্রোগ্রামে বলেন, ২০২০ সালে এ পর্যন্ত বিশ্বব্যাপী তাদের সাড়ে চার হাজারের মতো কর্মী চাকরি ছেড়ে চলে গেছেন। এ বছর রোলস-রয়েস ৫০০ জেট ইঞ্জিন সরবরাহের প্রত্যাশা করেছিল।

কিন্তু করোনা পরিস্থিতির কারণে এর অর্ধেক পরিমাণ সরবরাহ করা যেতে পারে। এছাড়া কোম্পানিটি তার স্পেনের আইটিপি অ্যারো ইউনিট এবং অন্য সম্পদ বিক্রি করে অন্তত ২০০ কোটি পাউন্ড সংগ্রহের কথা ভাবছে।

তিনি আরও বলেন, রোলস-রয়েস ইঞ্জিন বিক্রি করে নয়, বরং সেগুলোর ব্যবহারের মধ্য দিয়ে উপার্জন করে থাকে। এর মানে হলো, উড়োজাহাজ ল্যান্ডেড অবস্থায় থাকলে আয়ও থেমে যায়। আর মহামারীর কারণে বিশ্বব্যাপী ঠিক এ ঘটনাই ঘটেছে। করোনাসংক্রান্ত বিধি-নিষেধের কারণে বসে থাকতে হয়েছে রোলস-রয়েসের ইঞ্জিন ব্যবহারকারী উড়োজাহাজগুলোকে।

এদিকে, সংস্থাটি জানিয়েছে, বিমান পরিবহন খাতের চলমান অনিশ্চয়তার মধ্যে ব্যাল্যান্স শিটকে শক্তিশালী করতে তারা বিকল্প উপায় খতিয়ে দেখছেন। তারা যেকোনোভাবেই উদ্ভূত পরিস্থিতি সামলে সামনের দিনে মুনাফায় ফিরতে চাইছে।

উল্লেখ্য, ১৯১৪ সালে প্রতিষ্ঠিত বিলাসবহুল ব্রিটিশ অটোমোবাইল প্রস্তুতকারী সংস্থা রোলস-রয়েস বেশ সুনামের সাথে ব্যবস্থা পরিচালনা করে আসছে। তবে করোনা অতিমারিতে সংস্থাটি বড় ক্ষতির মুখে পড়েছে। এজন্য তারা বর্তমানে মধু উৎপাদনের কাজও শুরু করেছে।

তথ্য সুত্রঃ বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম