আজ মহানবমী, আনন্দের মাঝে বিষাদের সুর

সনাতন ধর্মাবলম্বীদের প্রধান ধর্মীয় উৎসব দুর্গাপূজার আজ মহানবমী। কাশফুলের ঝাঁকে আজ মন খারাপের হাওয়া, সনাতন ধর্মাবলম্বীদের প্রধান ধর্মীয় উৎসবে বাজতে শুরু করেছে বিষাদের সূর। আর মাত্র এক দিন পরেই মর্ত্য ছেড়ে কৈলাসে স্বামীগৃহে ফিরে যাবেন দুর্গতিনাশিনী দেবীদুর্গা। পেছনে ফেলে যাবেন ভক্তদের চার দিনের আনন্দ-উল্লাস আর বিজয়ার দিনের অশ্রু। তাই বাঙালি সনাতন ধর্মাবলম্বী ভক্তদের মনে আজ একটাই আকুতি- না পোহায় যেন এই নবমী নিশি।

সন্ধিপূজার মধ্যে দিয়ে পালিত হয়েছে মহাঅষ্টমী। আজ রোববার (২৫ অক্টোবর) সনাতন ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় উৎসব দুর্গাপূজার মহানবমী, দেবীকে প্রাণ ভরে দেখার দিন। কারণ পরদিন ভক্তদের কাঁদিয়ে কৈলাশে ফিরে যাবেন দুর্গতিনাশিনী। এবার দেবী ফিরবেন গজে চড়ে, এসেছিলেন দোলায় করে। প্রতিমা বিসর্জনের মধ্যে দিয়ে সোমবার (২৬অক্টোবর) শেষ হবে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় উৎসব দুর্গাপূজা।

আজ সকাল ৯টা ৫৭ মিনিটে বিহিত পূজার মাধ্যমে পালিত হচ্ছে মহানবমী। সনাতন ধর্মমতে এই নবমী পূজার আছে বিশেষ মাহাত্ম্য। এই দিন অগ্নিকে প্রতীক করে সব দেবদেবীকে আহুতি দেওয়া হয়। অগ্নি সব দেবতার যজ্ঞভাগ বহন করে যথাস্থানে পৌঁছে দিয়ে থাকেন। শাস্ত্র অনুযায়ী মহানবমী তিথি অন্যান্য তিথির তুলনায় ‘শুভ’। তাই এই তিথিতে দেবীর আরাধনা করলে পূণ্য লাভ হয়। নবমীর পূণ্য তিথিতে অশুভ শক্তির বিনাশ ঘটিয়ে পৃথিবীতে শুভ শক্তির প্রকাশ ঘটান দেবী দুর্গা। নবমী তিথি শুরু হয় সন্ধিপূজা দিয়ে। পুরাণ মতে, অষ্টমীর শেষ ২৪ মিনিট ও নবমী শুরুর ২৪ মিনিট অর্থাৎ মোট ৪৮ মিনিট সময়কে সন্ধিক্ষণ বলা হয়। আর এই সন্ধিক্ষণেই আয়োজিত হয় সন্ধি পুজো। এই সময়ই নাকি চিন্ময়ী দুর্গা পূজিতা হন মুণ্ডমালিনী চতুর্ভূজা চামুণ্ডারূপে। কারণ ঠিক ওই সময় দেবী দূর্গার ললাট থেকে জন্ম নেওয়া চামুণ্ডা, অসুর শুম্ভ ও নিশুম্ভকে বধ করেছিলেন বলে পুরাণে বর্ণিত আছে। এই মাহেন্দ্রক্ষণে সন্ধিপুজোর রীতি বহু প্রাচীনকাল থেকে চলে আসছে।

উল্লেখ্য করোনা মহামারীর কারণে করোনাভাইরাস সংক্রমণ এড়াতে এবছর বিভিন্ন ধর্মীয় অনুষ্ঠান সংক্ষিপ্ত করা হয়েছে। উৎসব সংশ্লিষ্ট বিষয়গুলো পরিহার করে সাত্ত্বিক পূজায় সীমাবদ্ধ রাখতে হবে বিধায় এবারের দুর্গোৎসবকে ‘দুর্গাপূজা’ হিসেবে অভিহিত করেছে বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ। সন্ধ্যায় আরতির পরই বন্ধ করে দেওয়া হচ্ছে পূজামন্ডপ। থাকছে না সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও ধুনুচি নাচের প্রতিযোগিতা। জনসমাগমের কারনে সাস্থ্যবিধি যাতে ভঙ্গ না হয় সেদিকে খেয়াল রেখেই দুর্গা পূজায় আগেই প্রসাদ বিতরণ ও বিজয়া দশমীর শোভাযাত্রা নিষিদ্ধ করা হয়েছে এবার।

চন্ডীপাঠ, বোধন এবং দেবীর অধিবাসের মধ্য দিয়ে ২২ অক্টোবর বৃহস্পতিবার থেকে শুরু হয়েছে বাঙালি হিন্দু সম্প্রদায়ের সবচেয়ে বড় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজা। বিহিত পূজার মাধ্যমে মহানবমী পূজা এবং সোমবার সকালে দর্পণ বিসর্জনের পর প্রতিমা বিসর্জনের মাধ্যমে শেষ হবে পাঁচ দিনের দুর্গাপূজার আনুষ্ঠানিকতা।

শারদীয় দুর্গাপূজার মহাসপ্তমী আজ

আজ শুক্রবার সনাতন ধর্মাবলম্বীদের শারদীয় দুর্গাপূজার মহাসপ্তমী।

চণ্ডীপাঠ, বোধন এবং দেবীর অধিবাসের মধ্য দিয়ে বৃহস্পতিবার (২২ অক্টোবর) থেকে শুরু হয়েছে বাঙালি সনাতন ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজা। গতকাল ছিল মহাষষ্ঠী। দেবীর আগমনের মধ্য দিয়ে শুরু হলো দুর্গাপূজা। ষষ্ঠীর দিন দেবী আসনে আসীন হয়েছেন। মহালয়ার মধ্য দিয়ে শুরু হয়েছিল দেবী দুর্গার আগমনের ক্ষণগণনা। এবার দেবী এসেছেন দোলায়, যাবেন হাতিতে চড়ে।

আজ মহাসপ্তমী। আজ বেলা ১১টা ৫৭ মিনিটের মধ্যে নবপত্রিকা প্রবেশ ও সপ্তমীবিহিত পূজা সম্পন্ন হবে। তাই শুক্রবার (২৩ অক্টোবর) সকাল থেকেই শুরু হয় মহাসপ্তমীর পূজার আনুষ্ঠানিকতা। পঞ্জিকামতে, গতকাল দুপুর ১টা ১৪ মিনিটে সপ্তমী শুরু হয়ে আজ বেলা ১১টা ৫৭ মিনিট পর্যন্ত স্থায়ী হবে। এই সময়ে দুর্গাদেবীর নবপত্রিকা প্রবেশ, স্থাপন ও সপ্তমী পূজা শুরু করে সম্পন্ন করতে হবে। আজ হবে প্রতিমায় প্রাণ প্রতিষ্ঠা। এবার দেবীর আগমন ঘটছে দোলায়। অর্থাৎ পৃথিবীতে মড়ক দেখা দেবে বলে বিশ্বাস সনাতন ধর্মাবলম্বীদের।

শুরুতেই বিশেষ রীতি মেনে স্নান করানো হয় মা দুর্গাকে। এসময় দেবী দুর্গার প্রতিবিম্ব আয়নায় ফেলে বিশেষ ধর্মীয় রীতিতে স্নান সেরে, বস্ত্র ও নানা উপচারে মায়ের পূজা অনুষ্ঠিত হয়। এরপর ত্রিনয়না দেবীর তৃতীয় চক্ষুদান করা হয়। নবপত্রিকা প্রবেশ ও স্থাপন শেষে দেবীর মহাসপ্তমী বিহিত পূজা অনুষ্ঠিত হয়। এরপর এবারের পূজার প্রথম অঞ্জলি। উপোস রেখে মায়ের পায়ে ফুলের অঞ্জলি দিয়ে চরণামৃত পান করে দিনের শুরু করবেন ভক্তরা।

ষষ্ঠীতে দেবীর অধিবাস ও আবাহনের মধ্য দিয়ে পূজা শুরু হয়েছে। সনাতন ধর্মাবলম্বীদের ঘরে ঘরে এখন পূজার ধুম। রংবেরঙের পোশাক পরে বিভিন্ন বয়সের মানুষ আসছেন মন্ডপে মন্ডপে। তবে করোনাভাইরাস মহামারীর কারণে উৎসবে ভাটা পড়েছে। মাস্ক পরে মন্ডপে প্রবেশের বাধ্যবাধকতা রয়েছে। সন্ধ্যায় আরতির পরই বন্ধ করে দেওয়া হবে পূজামন্ডপ। থাকছে না সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও ধুনুচি নাচের প্রতিযোগিতা।

করনা ভাইরাসের কারণে সরকার  ঘোষিত নিয়ম নীতি ও স্বাস্থ্য বিধি মেনে এবছর অনানুষ্ঠানিকতার মধ্য দিয়ে পালিত হচ্ছে এ পুজা।

অন্যদিকে মন্দির গুলোতে প্রবেশ করতে হলে মাস্ক পড়ে প্রবেশ করার নির্দেশ জারি করেছে মন্দির কমিটির নেতৃবৃন্দ। মাস্ক ছাড়া কেও যেন মন্দিরে প্রবেশ করতে না পারে সেদিকে দৃষ্টি মন্দির কতৃপক্ষ।

এ বছর শাহজাদপুর উপজেলায় ১টি পৌরসভাসহ ১৩টি ইউনিয়নে মোট ৮২টি পূজামন্ডপে দুর্গাপূজা অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

পোরজনা উপ-নির্বাচনে নৌকার প্রার্থী বাবু বিজয়ী

সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর উপজেলার পোরজনা ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) উপ-নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী আনোয়ার হোসেন বাবু বিজয়ী হয়েছেন। নৌকা প্রতীক নিয়ে তিনি পেয়েছেন ৯ হাজার ২৭৬ ভোট।

তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী স্বতন্ত্র প্রার্থী রফিকুল ইসলাম শাহীন ঘোড়া প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ২ হাজার ৪২৫ ভোট।

বুধবার (২১ অক্টোবর) রিটার্নিং কর্মকর্তা ও উপজেলা নির্বাচন অফিসার জাহাঙ্গীর হোসেন এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

এর আগে সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত দু’একটি বিচ্ছিন্ন ঘটনা ছাড়া ১৬টি ভোটকেন্দ্রে শান্তিপূর্ণভাবে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। এ ইউনিয়নের মোট ভোটার সংখ্যা ৪৩ হাজার ৯৪৫ জন। যার মধ্যে পুরুষ ২২ হাজার ৬৩৬ জন ও নারী ভোটার ২১ হাজার ৩০৯ জন। উপ-নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে ৯ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন।

উল্লেখ্য গত ২০ জুলাই চেয়ারম্যান জাহিদুল ইসলাম মুকুল হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করায় পোরজনা ইউপির চেয়ারম্যান পদটি শূন্য হয়।

বেলকুচিতে ট্রাকের ধাক্কায় নিহত ১

সিরাজগঞ্জের সয়দাবাদ-এনায়েতপুর আঞ্চলিক সড়কে ট্রাকের ধাক্কায় নজরুল ইসলাম (৬০) নামে এক ব্যক্তি নিহত হয়েছে।

বুধবার (২১ অক্টোবর) ভোরে বেলকুচি উপজেলার সমেশপুর আঞ্চলিক সড়কে হাটতে বের হলে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত নজরুল ইসলাম সমেশপুর গ্রামের মৃত আজগর আলী সরকারের ছেলে। স্থানীয় ইউপি সদস্য জুয়েল আহম্মেদ স্থানীয়রা জানান,ভোরে সমেশপুর আঞ্চলিক সড়কে মর্নিং ওয়ার্কে গেলে অপর প্রান্ত থেকে আসা একটি মিনি ট্রাক চাপায় সে মারা যায়।

বেলকুচি থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) গোলাম মোস্তফা জানান,খবর পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে ময়না তদন্তের জন্য মর্গে প্রেরন করা হবে। ট্রাকটি জব্দ করা হয়েছে এবং চালক পালাতক রয়েছে।

দেবী দূর্গার আগমন উপলক্ষে সাজসজ্জায় ব্যস্ত শাহজাদপুরের মন্ডপগুলো

নীলাকাশ, সাদা মেঘের ভেলা আর কাশফুল জানান দেয় শরৎ বিরাজমান। জানান দেয় শারদীয় দুর্গোৎসবের আগমনী বার্তার। যদিও এবার দেবী দুর্গা আসছেন হেমন্তে। শরতের আকাশে ভাসছে সাদা মেঘের ভেলা, প্রকৃতির সবুজের সমারোহে সাদা হয়ে কাশফুল দুলছে। শারদীয় দুর্গোৎসবের আগমনী বার্তায় সাজসজ্জায় ব্যস্ত হয়ে পড়েছে শাহজাদপুরের মন্ডপগুলো।

গত ১ সেপ্টেম্বরে মহালয়ার মধ্য দিয়ে শুরু হয়েছে হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় উৎসব দেবী দুর্গার আগমনী বার্তা। মহালয়ার সময় ঘোর অমাবস্যা থাকে। মহাতেজের আলোয় সেই অমাবস্যা দূর হয়। প্রতিষ্ঠা পায় শুভশক্তি। দুর্গাপূজার দিন গণনা এ মহালয়ার দিন থেকেই শুরু হয়। শাস্ত্রমতে প্রতি বছরই মা কোনো না কোনো বাহনে চড়ে আসেন। পঞ্জিকা অনুযায়ী এ বছর দেবী আসছেন ‘দৌলায়’ চড়ে আর যাবেন ‘গজে’ চড়ে।

সনাতন ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গা পূজা। এই ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গা উৎসব শুরু হবে আগামী ২২ অক্টোবর মহাষষ্ঠীর মধ্য দিয়ে।

আর এই উৎসবকে কেন্দ্র করে প্রতিমা শিল্পীরা কল্পনায় দেবী দুর্গার অনিন্দ্যসুন্দর রূপ দিতে রাতভর চলছে প্রতিমা তৈরির কাজ। নিখুঁত হাতের কারুকার্য দিয়ে সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত তৈরি করছে প্রতিমা। পূজার দিন যতই ঘনিয়ে আসছে ততই যেন ব্যস্ত হয়ে পড়ছেন শাহজাদপুরের প্রতিমা শিল্পীরা। তুলির আঁচরে মূর্ত হয়ে উঠছে দেবীর রূপ। এখন দম ফেলার সময় নেই মৃৎশিল্পীদের।

শাহজাদপুর উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সাধারন সম্পাদক বিমল কুন্ডু বলেন, শারদীয় দুর্গাপূজার বাকি আর মাত্র এক দিন। এ বছর শাহজাদপুর উপজেলায় ১টি পৌরসভাসহ ১৩টি ইউনিয়নে মোট ৮২টি পূজামন্ডপে দুর্গাপূজা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। প্রতিমা তৈরি করার কাজে ব্যস্ত সময় পার করছেন প্রতিমা শিল্পীরা। পূজা উৎসবকে পরিপূর্ণ রূপ দিতে মন্দিরগুলোতে চলছে ব্যাপক সাজসজ্জার প্রস্তুতি। এবার করোনার কারণে পূজা মণ্ডপগুলোতে ছাব্বিশটা বিধিমালা তৈরি করে দিয়েছে বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ। সেই নিয়ম অনুযায়ী এবার শাহজাদপুর উপজেলায় পূজা পালন করা হবে।

এ বিষয়ে থানার অফিসার ইনচার্জ শাহিদ মাহমুদ খান জানান, সনাতন ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজা। তাদের এ ধর্মীয় উৎসব সম্পন্ন করার লক্ষ্যে আইনশৃঙ্খলা রক্ষা বাহিনী সর্বদা সজাগ দৃষ্টি রাখছে। প্রতিটি পুজা মন্ডপে স্বেচ্ছাসেবী নিরাপত্তা কর্মী ছাড়াও পুলিশ ও আনছার সদস্য থাকবে। এখনো পর্যন্ত উপজেলায় কোন মন্দিরে বিশৃঙ্খলার খবর পাওয়া যায় নি।

করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে কিছুটা নিয়মের মধ্যে দিয়ে মাতৃবন্দনা করবেন সনাতন ধর্মালম্বীরা বলে জানা গেছে।

শাহজাদপুর গাছ থেকে উদ্ধার হলো ১১ ফুট অজগর সাপ

সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর বাড়ির গাছ থেকে ১১ ফুট লম্বা অজগর সাপ উদ্ধার করা হয়েছে।আজ (সোমবার) দুপুরে উপজেলার গালা ইউনিয়নের বিনুটিয়া বাধের পাশে এক বাড়ির গাছ থেকে অজগর সাপটি উদ্ধার করে। পরে সাপটি দি বার্ড সেফটি হাউজের সংগঠনের সদস্যরা তাদের হেফাজতে নিয়েছেন।

এলাকাবাসী জানায়, বাড়ির বাহিরে দেখে গাছের উপর একটি অজগর সাপ জড়িয়ে রয়েছে। পরে স্থানীয়রা শাহজাদপুর থানার এস এই মেহেদিকে ফোন করে বিষয়টি জানান । এস এই মেহেদি দি বার্ড সেফটি হাউজের চেয়ারম্যান মামুন বিশ্বাসকে জানায়। পরে সংগঠনটি সাপটি উদ্ধার করে।

এ বিষয়ে দি বার্ড সেফটি হাউজের চেয়ারম্যান মামুন বিশ্বাস বলেন, খবর পেয়ে স্থানীয় সংবাদ কর্মী মাহবুবুল আলমকে অবহিত করে আমি ও ইমন অজগর সাপটি উদ্ধার করার জন্য রওনা দেই। রাজশাহী বিভাগীয় বন্যপ্রাণী পরিদর্শক জাহাঙ্গীর কবির ও বন্যপ্রাণী অপরাধ দমন ইউনিটের পরিদর্শক আব্দুল্লাহ আস সাদিক এর সাথে কথা বলে বিস্তারিত তথ্য জানাই।পরে দুপুরের দিকে আমরা স্থানীয় বাসিন্দাদের সহযোগিতায় সাপটিকে গাছ থেকে উদ্ধার করি।

উদ্ধার করা পর উপস্থিত হন সিরাজগঞ্জের বন্যপ্রাণী ও প্রকৃতি সংরক্ষণ ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা হৃষীকেস চন্দ্র রায়ের কাছে অজগর সাপটি হস্তান্তর করা হয়। এসময় তিনি জানান, সিরাজগঞ্জ বঙ্গবন্ধু ইর্কো পার্কে অজগর সাপটি ছেড়ে দেওয়া হবে।

শাহজাদপুরে কর্মরত বেসরকারি কর্মচারীদের চাকুরী রাজস্বখাতে স্থানান্তরের দাবীতে মানববন্ধন

শাহজাদপুর সরকারি কলেজে কর্মরত বেসরকারি কর্মচারীদের চাকুরী রাজস্বখাতে স্থানান্তরের দাবীতে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে শনিবার সকালে শাহজাদপুর সরকারি কলেজ গেটের সামনে এ মানববন্ধন কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়।

উক্ত মানববন্ধনে শাহজাদপুর সরকারি কলেজের কর্মচারী ইউনিয়নের সভাপতি মোহাম্মদ লুৎফর রহমান বলেন, সরকারি কলেজের কর্মচারীরা ২০ থেকে ২৫ বছর ধরে নাম মাত্র মজুরিতে কাজ করে আসছেন। নির্দিষ্ট বেতন স্কেল না থাকায় পরিবার পরিজন নিয়ে এসব কর্মচারীদের মানবেতর জীবন যাপন করতে হচ্ছে। তাদের পদগুলোকে সরকারের রাজস্ব খাতের অন্তর্ভুক্ত করে সরকারি কর্মচারী হিসেবে বেতন স্কেলের আওতায় আনতে জোর দাবি জানান তিনি।

কর্মচারী ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক শাহনাজ পারভীন বলেন, নির্দিষ্ট বেতন স্কেল না থাকায় বর্তমানে আমরা পরিবার পরিজন নিয়ে খুবই মানবেতর জীবন যাপন করছি। দ্রব্যমূল্য ঊর্ধ্বগতির কারণে আমাদের সন্তানদের লেখাপড়া বন্ধ হয়ে যাচ্ছে। শাহজাদপুর সরকারি কলেজে বিভিন্ন পদে বেসরকারিভাবে নিয়োগ পাওয়া ২৪ জন কর্মচারী নামমাত্র মজুরি নিয়ে কাজ করে আসছেন। সরকারি কর্মচারী হিসেবে বেতন স্কেলের আওতায় আনার জন্য প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেন ।

মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সুদৃষ্টি কামনা করে মানববন্ধনে অন্যান্য বক্তারা বলেন, আমাদের যোগদানের তারিখ হতে চাকুরী রাজস্বখাতে স্থানান্তর করতে হবে, স্বপদে বহাল রেখে সকল প্রকার সরকারি সুবিধা প্রদান করতে হবে, বয়সের কোন উর্দ্ধসীমা থাকবে না।

উক্ত মানববন্ধনে উপস্থিত ছিলেন মোঃ আব্দুর রহমান, মোঃ আশিকুরজ্জামান, ফিরোজা বেগম, নান্নু মিয়া, শামছুল হক, আনোয়ার হোসেন, জসিম, স্বপন আলী, আব্দুল রকিব, নিল কমল ঘোষ, মোবারক আলী প্রমুখ।

শাহজাদপুরে ৪০ কেজি গাঁজা সহ ০২ জন মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার

সিরাজগঞ্জ র‌্যাব-১২এর এ্যাডজুটেন্ট (অপ্স অফিসার) সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার প্রণব কুমার সরকার ও সদর কোম্পানীর ভারপ্রাপ্ত কোম্পানী কমান্ডার, (মিডিয়া অফিসার) সহকারী পুলিশ সুপার মোঃ এরশাদুর রহমান এর নেতৃত্বে র‌্যাব-১২ একটি আভিযানিক দল সিরাজগঞ্জ শাহজাদপুর উপজেলা থানাধীন বগুড়া টু নগরবাড়ী রোডের উপর বাঘাবাড়ী ওয়েল ডিপো এর সামনে অস্থায়ী চেকপোষ্ট বসিয়ে মাদকবিরোধী অভিযান পরিচালনা করে, বড় কাভার্ড ভ্যান তল্লাশী করে ৪০ কেজি গাঁজা, ০২ টি মোবাইল, ০২টি সিমসহ কাভার্ড ভ্যান জব্দ ও ২ জন মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করে এবং উক্ত কাভার্ড ভ্যান জব্দ করেন।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন, পাবনা ফরিদপুর উপজেলার সোহরাব আলী প্রমানিক ছেলে ফরিদুল ইসলাম, সিরাজগঞ্জ শাহজাদপুর উপজেলার, জামাল উদ্দিনের ছেলে আলম হোসেন।

গ্রেফতারকৃত মাদক ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে শাহজাদপুর থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা দায়ের করত উদ্ধারকৃত আলামতসহ তাদেরকে উক্ত থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

শাহজাদপুরে পোরজনা ইউপি উপ-নির্বাচনে নৌকা প্রার্থীর বিরুদ্ধে স্বতন্ত্র প্রার্থীর প্রচারণায় বাঁধা প্রদানের অভিযোগ

সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর উপজেলার ৬নং পোরজনা ইউনিয়ন পরিষদের উপ-নির্বাচনে আওয়ামী লীগ সমর্থিত নৌকা প্রতিকের প্রার্থী আনোয়ার হোসেন বাবুর বিরুদ্ধে নির্বাচনী প্রচারণায় বাধা প্রদানসহ হামলার অভিযোগ করেছেন সতন্ত্র প্রার্থীরা।

নির্বাচনী আচারণ বিধি লঙ্ঘন করে প্রতিদিন অর্ধশতাধিক মোটরসাইকেল বহর নিয়ে ভোটারদের ভয়ভীতি প্রদর্শন, স্বতন্ত্র প্রার্থীদের পোস্টার লাগানোর সময় বাধা প্রদান ও মাইক দিয়ে প্রচারণাকালে মাইক কেড়ে নিয়ে প্রচারকর্মীদের মারপিটের অভিযোগ এনে ইতোমধ্যেই রিটার্নিং কর্মকর্তা বরাবর অভিযোগ করেছেন স্বতন্ত্র প্রার্থীদের পক্ষ থেকে।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, সতন্ত্র প্রার্থী রফিকুল ইসলাম রওশনের অটো রিক্সা মার্কার প্রচার মাইাক পোরজনা বাজারে প্রচার করার সময় নৌকা প্রতীকের সমর্থকেরা জোর পূর্বক কেড়ে নিয়ে চলে যায় ।

এ ব্যাপারে অটো রিক্সার প্রার্থী রফিকুল ইসলাম রওশন জানান, অটো রিক্সা মার্কার প্রচার মাইকিং পোরজনা বাজারে প্রচার করার সময় নৌকা প্রতীকের সমর্থকেরা রিক্সাচালককে মারপিট করে জোর পূর্বক কেড়ে নিয়ে চলে যায় এবং বিভিন্ন স্থানে লাগানো পোস্টার ছিড়ে ফেলেছে।

অপরদিকে আরেক সতন্ত্র প্রার্থী রফিকুল ইসলাম শাহীনের ঘোড়া মার্কার পোস্টার লাগানোর সময় তা ছিনিয়ে নেয় বলেও অভিযোগ রয়েছে।

এ বিষয়ে আওয়ামীলীগ মনোনীত নৌকার প্রার্থী আনোয়ার হোসেন বাবু জানান, তার বিরুদ্ধে স্বতন্ত্র প্রার্থীর আনিত অভিযোগ সম্পর্কে কিছুই জানেন না। এমনকি তার সমর্থকরা কোথাও স্বতন্ত্র প্রার্থীদের উপর হামলা ও প্রচার মাইক কে বা কাহারা কেড়ে নিয়েছে তিনি জানেন না।

এ বিষয়ে পোরজনা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সভাপতি আমজাদ হোসেন জানান, স্বতন্ত্র প্রার্থীদের প্রচারণা বাঁধা দেওয়া উচিৎ নয়। এটা সম্পর্কে তিনিও কিছু জানেননা। তবে নির্বাচনে প্রার্থীর লোকজন কি করল না করল তার দায় দায়িত্ব দলের নয়।

এ ব্যাপারে নির্বাচন কমিশন মোঃ জাহাঙ্গীর হোসেন জানান, সতন্ত্র প্রার্থীদের পক্ষ থেকে অভিযোগ পেয়েছি। অভিযোগের বিষয়টি তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। সেই সাথে নির্বাচন অবাধ ও সুষ্ঠু করার জন্য জেলা প্রশাসক মহোদয়ের সাথে আলোচনা করে বুধবার থেকে একজন এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োগ করা হবে।

শাহজাদপুরে শারদীয় দুর্গাপূজা উপলক্ষে প্রস্তুতিমূলক সভা অনুষ্ঠিত

শাহজাদপুরে শারদীয় দুর্গাপূজা উৎসব উদযাপন ২০২০ উপলক্ষে আজ সোমবার শাহজাদপুর উপজেলা পরিষদের শহীদ স্মৃতি সম্মেলন কক্ষে এক প্রস্তুতিমূলক সভা অনুষ্ঠিত হয়। উপজেলা প্রশাসনের আয়োজিত সভায় সভাপতিত্ব করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার শাহ মো. শামসুজ্জোহা।

উক্ত প্রস্তুতিমূলক সভায় বক্তব্য রাখেন, উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান প্রফেসর আজাদ রহমান, উপজেলা ভায়েস চেয়ারম্যান মো. লিয়াকত আলী, সহকারি কমিশনার (ভূমি) মাসুদ হোসেন, পৌরসভার মেয়র (ভারপ্রাপ্ত) আব্দুর রাজ্জাক।

এছাড়া অন্যান্যদের মধ্যে আরও বক্তব্য রাখেন, শাহজাদপুর সরকারি কলেজের সহকারি অধ্যাপক মো. মাহবুবুর রহমান মিলন, শাহজাদপুর জোনাল অফিসের ডিজিএম প্রকৌশলী মো. মিজানুর রহমান, শাহজাদপুর ফায়ার সার্ভিসের ষ্টেশন কর্মকর্তা মঞ্জুরুল আলম, শাহজাদপুর উপজেলা আনসার ভিডিপি কর্মকর্তা ইনামুল হক, শাহজাদপুর থানার ওসি (তদন্ত) মো. ফজলে আশিক, এনায়েত পুর থানার ওসি (তদন্ত) কে এম রাকিবুল হুদা, শাহজাদপুর উপজেলা পূজা উদযাপন কমিটির সভাপতি বিনয় কুমার পাল, শাহজাদপুর উপজেলা পূজা উদযাপন কমিটির সাধারণ সম্পাদক বিমল কুন্ডু। পৌর পূজা উদযাপন পরিষদ কমিটির সভাপতি-সধারণ সম্পাদকসহ ইউনিয়ন পূজা উদযাপন পরিষদ কমিটির সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক উপস্থিত ছিলেন।

সভায় করোনা দূর্যোগের কারনে কেন্দ্রীয় ও জেলা কমিটির নির্দেশনা মোতাবেক সামাজিক দুরত্ব বজায় রেখে ও স্বাস্থ্য বিধি মেনে সীমিত আকারে শারদীয় দুর্গাপূজা উদযাপনের সিদ্ধান্ত গৃহিত হয়।