বিভিন্ন মহলের অভিনন্দন


শাহজাদপুরে স্কুলছাত্রের তৈরী সার্চ ইঞ্জিনের জন্য ২ লাখ টাকা অনুদান

সার্চ বিডি নামক বাংলাদেশের দ্বিতীয় সার্চ ইঞ্জিন তৈরীর জন্য শাহজাদপুর সরকারি মডেল পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের ৭ম শ্রেণি থেকে ৮ম শ্রেণিতে উত্তীর্ণ হওয়া ছাত্র আবির আবেদীন খানের নামে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি ক্ষেত্রে উদ্ভাবনী কাজে উৎসাহ প্রদানের লক্ষ্যে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ ২ লাখ টাকার চেক প্রদান করেছে।

তরুণ উদ্ভাবক আবির আবেদীন খান জানায়, জিজিটাল মেলা ২০২০ এ সিরাজগঞ্জ জেলায় তার সার্চ ইঞ্জিন প্রকল্পটি প্রথম স্থান লাভ করে। পরবর্তীতে বাংলাদেশ সরকারের এটুআই প্রকল্পে আবেদন করলে অনলাইনে ইন্টারভিউ নেওয়া হয়। এর কিছুদিন পরেই তাকে জানিয়ে দেয়া হয় তার নামে ২ লাখ টাকা অনুদান বরাদ্দ করা হয়েছে। 

শাহজাদপুর উপজেলা আইসিটি সহকারি প্রোগ্রামার মাহবুবা আলম বীথি আবির আবেদীন খানকে তার কৃতিত্বের জন্য শুভেচ্ছা জানান।

শাহজাদপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার শাহ্ মো: শামসুজ্জোহা বলেন, ‘আবির শুধু আমাদের শাহজাদপুরের গর্ব নয়, বাংলাদেশের গর্ব। বাংলাদেশ সরকার তার কাজের মূল্যায়ন করায় আমি অনেক খুশি।’ 

শাহজাদপুর সরকারি মডেল পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ সাইফুল ইসলাম বলেন, ‘আবির আমাদের স্কুলের গর্ব। ওর কৃতিত্বের জন্য আমি স্কুল থেকে ওকে বিশেষভাবে পুরস্কৃত করবো।’

আবির জানায়, www.searchbd.net এই ঠিকানায় গিয়ে সার্চ ইঞ্জিনটি ব্যবহার করা যাবে। তার ইচ্ছা বড় হয়ে একজন সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার হওয়া।
উল্লেখ্য, বাংলাদেশে তৈরী প্রথম সার্চ ইঞ্জিন পিপিলিকা।

শাহজাদপুরের গর্ব তরুণ উদ্ভাবক আবির আবেদীন খানকে অভিনন্দন জানিয়েছে প্রেসক্লাব শাহজাদপুরের সকল সদস্যবৃন্দ।

সুপ্ত প্রতিভা প্রস্ফুটিত হয়ে মানবিক গুণে ভরে উঠুক কচিকাঁচাদের জীবন'- শিক্ষক সুমাইয়া আক্তার


শাহজাদপুরে ‘মানবতার দেয়াল’র সাথে ছোট্ট সোনামণি সর্গও

শাহজাদপুর সরকারি মডেল পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের মহান শিক্ষিক সুমনা আক্তার শিমু আলোকবর্তিকা সংগঠনের ব্যনারে মানবতার দেওয়াল নামের ব্যতিক্রমী ও সেবামূলক একটি পট উন্মোচন করে জনকল্যাণ করে চলেছেন। তার এ মহত উদ্যোগ সর্বমহলে ব্যাপক প্রশংসিত হয়েছে।

জানা গেছে, গত বছরের আদলে এবারও নতুন উদ্যোমে শাহজাদপুর সরকারি মডেল পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের মেইন গেটের সামনে দেয়ালের সাথে হ্যাঙ্গারে বিভিন্ন ধরনের পোশাক ঝুলিয়ে রাখা হয়েছে। সেখান থেকে বিদ্যালয়ের কিছু দরিদ্র  শিক্ষার্থী তাদের প্রয়োজনীয় পোশাক নিয়ে ব্যবহার করতে পারছে। বিদ্যালয়ের কিছু অভিভাবক ও শিক্ষার্থী ওই দেয়ালে পোশাক রেখে যাচ্ছে। সুবিধাবঞ্চিত ও অভাবগ্রস্থ শিক্ষার্থীদের মাঝে বিনামূল্যে স্কুল ড্রেস ও পরিধেয় কাপড় সরবরাহের জন্য এই বিদ্যালয়ের শিক্ষক সুমনা আক্তার শিমু মহৎ এ উদ্যোগ নিয়েছেন। মানবতার এই দেয়াল সবসময়ই চালু থাকবে বলে তিনি জানান।  এর মাধ্যমে কোমলমতি শিক্ষার্থীরা ছোটবেলা থেকেই মানবিক আদর্শে উজ্জীবীত হতে পারবে। সেই সাথে কচিকাঁচাদের মধ্যে লুকায়িত সুপ্ত প্রতিভা প্রস্ফুটিত হয়ে মানবিক গুণাবলী অর্জনের মাধ্যমে পরিশুদ্ধ মানুষ হিসেবে গড়ে উঠতে পারে – এ লক্ষ্যেই সংগঠনটি সৃষ্টি করেছেন শিক্ষক সুমনা আক্তার শিমু। তার এ ব্যতিক্রমি ও মহতী উদ্যোগের প্রতি সমর্থন জানাতে অনেকেই সহযোগীতার হাত প্রসারিত করছেন।

এরই ধারাবাহিকতায় শিক্ষিক কৃষ্ণা পৈইত ও ছোট্টমণি সর্গও মানবতার দেদিপ্যমান শিক্ষক সুমনা আক্তার শিমুর হাতে অব্যবহৃত পোষাক তুলে দেন।

অপরদিকে, সংগঠনটির মহৎ উদ্দেশ্যগুলোকে স্বাগত জানিয়ে বিভিন্ন সংগঠনের নেতৃবৃন্দ, অভিভাবকবৃন্দ এবং সচেতনমহলসহ এলাকাবাসী এ সংগঠনের উত্তরোত্তর সমৃদ্ধি কামনা করেছেন।

ঢাকা-০৫ আসনের উপ-নির্বাচনকে কেন্দ্র করে চলছে আলোচনার ঝড়


এশিয়ান গ্রুপের চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব হারুন-উর-রশিদ সিআইপি এগিয়ে

ঢাকা-০৫ আসন (যাত্রবাড়ী- ডেমরা) উপ-নির্বাচনকে ঘিরে শুরু হয়েছে নানা আলোচনা ও হিসাব নিকাশ। কাকে নৌকার মাঝি করলে এলাকার উন্নয়ন তরাণ্বিত হবে, এলাকাবাসীর কল্যাণ হবে তা নিয়ে সাধারণ ভোটারদের মধ্যে চলছে নানা সমীকরণ ও চুলচেরা বিশ্লেষণ।
এ আসনের এমপি হাবিবুর রহমান মোল্লা মৃত্যুবরণ করার পর আসনটি শুণ্য হয়। সামনে উপ-নির্বাচন। আসন্ন এ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের নেতাদের মধ্যেও ভোটের হিসাব কষাকষি শুরু হয়েছে। অনেকেই চাইতে পারেন এ আসনে আ.লীগের দলীয় মনোনয়ন। কিন্তু বর্তমানে এ আসনে আলোচনার শীর্ষে রয়েছেন এশিয়ান টিভি ও এশিয়ান গ্রুপের চেয়ারম্যান এবং বঙ্গবন্ধু সৈনিক লীগের জাতীয় সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির সদস্য সচিব আলহাজ্ব হারুন-উর-রশিদ সিআইপি।

তিনি বরাবরই গরীব দুঃখীদের সাথে পাশে রয়েছেন, থেকেছেন। বিপদে আপদে মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছেন। করোনা ভাইরাসের সংক্রমন শুরু হওয়ার পর থেকে তিনি ব্যক্তি উদ্যোগে ও অর্থায়নে দেশের অসহায় মানুষের মাঝে যে পরিমান ত্রান সহায়তা ও আর্থিক সহায়তা প্রদান করেছেন সর্ব মহলে তা ব্যপক প্রসংশা কুড়িয়েছে। তিনি এ আসনে নৌকা প্রতীকে দলীয় মনোনয়ন আলোচনায় শীর্ষ অবস্থানে রয়েছেন। এ আসনের জনগণও ত্যাগী এই নেতার মুল্যায়ন চান। এলাকার জণসাধারন তাকে এ আসনে উপ-নির্বাচনে নৌকা প্রতীকে মনোনয়ন প্রদান তথা এ আসনের সাংসদ হিসেবে দেখতে চান। এলাকাবাসী জানান, ‘আলহাজ্ব হারুন-উর-রশিদ শুধু নির্বাচন করার জন্য নয়, তিনি বরাবরই মানুষের বিপদে আপদে পাশে থেকেছেন, ডাকামাত্র এলাকার মানুষ তাকে পাশে পেয়েছে।’ এলাকাবাসী আরও জানান, আলহাজ্ব হারুন-উর-রশিদ রশিদ সৎ, বিনয়ী. পরিশ্রমী, উদার, সফল ও ত্যাগী একজন ভালো মানুষ ও বিশিষ্ট সমাজসেবক।

তিনি বঙ্গবন্ধুর আদর্শের একজন সৈনিক। স্বাধীনতা যুদ্ধের পর থেকে দেখেছি তিনি মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছেন। ১৯৮৮ সালে যখন ভয়াবহ বন্যায় ভেসেছে দেশ তখন তাকে দেখেছি ত্রান নিয়ে মানুষের দ্বারে দ্বারে পৌঁছে দিতে। যে কোন প্রাকৃতিক দুর্যোগ, ঝড়, বন্যা, খরাসহ মানবিক বিপর্যয়ে তিনি সর্বদা জনকল্যাণে কাজ করে চলেছেন। বিভিন্ন মসজিদ, মাদরাসা, কবরস্থান, ঈদগাহ মাঠ, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসহ নানা প্রতিষ্ঠানের উন্নয়নে অনুদান প্রদানসহ সহযোগীতা প্রদান করে চলেছেন। এ আসনে আসন্ন উপ-নির্বাচনে এশিয়ান গ্রুপের চেয়ারম্যান ও বঙ্গবন্ধু সৈনিক লীগের জাতীয় সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির সদস্য সচিব,সফল উদ্যোক্তা, শিল্পপতি মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব হারুন-উর-রশিদ সিআইপিকে এ আসনে নৌকা প্রতীকে দলীয় মনোনয়ন দেয়ার জন্য প্রধানমন্ত্রীর কাছে জোরালো দাবী জানাচ্ছি। তাকে নৌকার মাঝি করা হলে এলাকার মানুষ বিপুল ভোটে তাকে জয়যুক্ত করবে বলে আমরা এলাকাবাসী মনে প্রাণে বিশ্বাস করি।