হাটিকুমড়ুলে নেই পাবলিক টয়লেট! থানার সামনের ফাঁকা জায়গা বেছে নিয়েছে জনগণ

তানিম তূর্যঃ সিরাজগঞ্জের হাটিকুমরুল গোলচত্ত্বর এলাকায় নেই কোন পাবলিক টয়লেট! সে কারণে মলগমূত্র ত্যাগ সহ আবর্জনা ফেলার জন্যে হাটিকুমরুল হাইওয়ে থানার সামনের ফাঁকা জায়গাটি বেছে নিয়েছে স্থানীয় জনগণ ও রাস্তায় চলাচলকারী যাত্রীর। সরেজমিন পরিদর্শনকালে এ চিত্র পরিলক্ষিত হয়েছে ৷ উত্তরবঙ্গের প্রবেশদ্বার সিরাজগঞ্জ রোড গোলচত্ত্বর এলাকা দিয়ে প্রতিদিন হাজার হাজার মানুষ চলাচল করে। একে কেন্দ্র করে এ এলাকায় গড়ে উঠেছে বড় বড় হোটেল, রেস্টুরেন্ট, হাসপাতাল, শপিংমল, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান সহ অসংখ্য দোকানপাট। ক্ষুদ্রব্যবসায়ী, হকার, কুলির সংখ্যাও কম নই। প্রতিনিয়ত লক্ষাধিক মানুষের আনাগোনায় জমজমাট এলাকাটি। এমন গুরুত্বপূর্ণ স্থানে সরকারী কোন পাবলিক টয়লেট নেই। চরম ভোগান্তি প্রহাতে হচ্ছে সাধারণ মানুষদের। এছাড়া ময়লা আবর্জনা ফেলার জন্য নেই কোন ডাস্টবিন। বিপাকে পড়ে হাটিকুমুরুল হাইওয়ে থানার সামনে ফাঁকা জায়গা পেয়ে যত্রতত্র মলমূত্রত্যাগ করতে বাধ্য হচ্ছে সাধারণ মানুষ। এমনকি ময়লা আবর্জনাগুলোও ফেলা হচ্ছে এখানে। যার দরুণ ব্যাপক দূর্গন্ধে চলাচল করতে সমস্যা হচ্ছে সেই সাথে এখানকার পরিবেশ দূষিত হচ্ছে। এছাড়া সরকারি ডাকবাংলোর সামনে একই অবস্থা দেখা গেছে। হাটিকুমুরুল হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আব্দুল কাদের জিলানী জানান, পাবলিক টয়লেট ও ডাস্টবিন না থাকায় লোকজন থানার সামনে এসে প্রস্রাব-পায়খানা করে, ময়লা ফেলে। এ অবস্থা বন্ধ করার জন্য আমার থানা থেকে দু-তিনবার কাটা তার ও বাঁশের বেড়া দিয়েছি। মহাসড়কের পাশে হওয়া স্থায়ীভাবে রাখা সম্ভব হচ্ছে না। আমরা নিয়ন্ত্রের চেষ্টা করে যাচ্ছি। সিরাজগঞ্জ রোড গোলচত্বর এলাকায় একটি পাবলিক টয়লেট হলে আশাকরছি এ অবস্থার অবসান ঘটবে। স্থানীয় বাসিন্দারা একই অভিযোগ করেছেন। হাইওয়ে থানাসহ এলাকার পরিবেশ রক্ষার্থে অতিদ্রুত পাবলিক টয়লেট ও ডাস্টবিন নির্মাণের দাবী জানিয়ে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন। হাটিকুরুল ইউপি চেয়ারম্যান হেদায়েতুল আলম আলম রেজা জানান, বিষটি আমার দৃষ্টিগোচর হয়েছে। ইতিমধ্যে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সাথে এ ব্যাপারে কথা বলেছি। অনতিবিলম্বে আমার এ এলাকায় একটি পাবলিক টয়লেট ও কয়েকটি ডাস্টবিন নির্মাণ করে সুন্দর পরিবেশ ফিরিয়ে আনবো ইনশাল্লাহ।