স্বাভাবিক কার্যক্রমে ফিরেছে ব্যাংকিং খাত

করোনা ভাইরাসের প্রকোপ কমছে এমন কোনো লক্ষণ না থাকলেও স্বাভাবিক কার্যক্রমে ফিরছে দেশের ব্যাংকিং খাত।

অর্থনৈতিক উন্নয়ন অব্যাহত রাখতে বাংলাদেশ ব্যাংক একটি প্রজ্ঞাপন জারি করে বুধবার (১৯ আগস্ট) থেকে সাধারণ সময়ের মতো ব্যাংকের শাখা খোলা রাখা ও কার্যক্রম পরিচালনার নির্দেশ দিয়েছে।

মহামারি করোনা ভাইরাস থেকে কর্মীদের বাঁচাতে চলতি বছরের ২৬ শে মার্চ যে রোস্টার ব্যবস্থায় দায়িত্ব পালন করার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছিল তা তুলে নেওয়া হয়েছে। ফলে এখন থেকে ব্যাংকগুলোকে সাধারণ সময়ের মতো ব্যাংকিং কার্যক্রম পরিচালনা করতে হবে।

বুধবার (১৯ আগস্ট) রাজধানীর মতিঝিলে কয়েকটি ব্যাংকের শাখা ঘুরে দেখা গেছে, শারীরিক দূরত্ব ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে ব্যাংকার ও গ্রাহকরা লেনদেন করছেন।
সোনালী ব্যাংক স্থানীয় শাখায় গিয়ে দেখা গেছে, গ্রাহকরা নির্ধারিত শারীরিক দূরত্ব বজায় রেখে মাস্ক ব্যবহার করে লেনদেনের জন্য অপেক্ষা করছেন।

সেখানে রাশেদুল কবির খান নামের এক গ্রাহক বলেন, করোনা ভাইরাস কবে যাবে তার কোনো ঠিক নাই। জীবন ধারণ তো থেমে থাকবে না, স্বাভাবিক হতেই হবে।
সোনালী ব্যাংকের লোকাল শাখার ডেপুটি মহাব্যবস্থাপক মোহাম্মদ মনিরুজ্জামান বলেন, আমরা অনেক আগে থেকেই স্বাভাবিক কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছি। যেসব কার্যক্রম না চালালেই নয়, সেগুলো সব সময় চালু ছিল।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নির্দেশনা মোতাবেক করোনা ভাইরাস সংক্রমিত কর্মীরা একটি মেডিক্যাল সনদ জমা দিয়ে বাড়িতে থাকতে পারবেন। একই সুবিধা পাবেন গর্ভবতী নারী কর্মীরাও।

কেন্দ্রীয় ব্যাংক অবশ্য ব্যাংকের শাখাগুলোতে কাজ করার সময় বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার নির্দেশিকা অনুসরণ নিশ্চিত করতে বলেছে।

এছাড়াও ব্যাংকগুলোতে নিয়মিত সভা করতে এবং ব্যাংকারদের বিদেশ ভ্রমণের অনুমতি দেওয়া হয়েছে।

এ বিষয়ে রূপালী ব্যাংকের প্রিন্সিপাল অফিসার এহতেশামুজ্জামান বলেন, সাধারণ ছুটি শেষ হওয়ার আগেই রূপালী ব্যাংক সার্বক্ষণিক সেবা প্রদান করে আসছে। কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নির্দেশনা মোতাবেক সেবা কার্যক্রম আরও গতিশীল করা হয়েছে।

তথ্য সুত্রঃ বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম