শাহজাদপুর উপজেলা যুবলীগের সন্মেলনকে সামনে রেখে প্রার্থীদের দৌড়ঝাঁপ শুরু

বিশেষ প্রতিবেদক, শাহজাদপুর : র্দীঘ সময় পরে হলেও অবশেষে বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ, শাহজাদপুর উপজেলা শাখার ত্রি-বার্ষিক সন্মেলন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। আগামী ২৫ এপ্রিল বুধবার ওই সন্মেলনের দিন নির্ধারণ করা হয়েছে। গত ১১ মার্চ সিরাজগঞ্জ জেলা আওয়ামী যুবলীগ সভাপতি মঈন উদ্দিন খান চিনু ও সাধারণ সম্পাদক এ্যাড. মোঃ আব্দুল হাকিম স্বাক্ষরিত দাপ্তরিক পত্রের মাধ্যমে ওই ত্রি-বার্ষিক সন্মেলনের নির্ধারিত দিনক্ষণ শাহজাদপুর উপজেলা যুবলীগ সভাপতি/সাধারণ সম্পাদককে বিষয়টি অবগত করা হয়েছে। জেলা যুবলীগ প্রেরিত ওই দাপ্তরিক পত্রে উল্লেখ করা হয়েছে,‘একাদশ জাতীয় নির্বাচন অতি আসন্ন।প্রতিটি নির্বাচন যুবলীগ নেতাকর্মীদের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। সেই লক্ষে সংগঠনের কাজকর্মে গতিশীলতা ফিরিয়ে এনে নৌকা মার্কাকে বিজয়ী করে রাষ্ট্রনায়ক জননেত্রী শেখ হাসিনা’কে আবারও বাংলার প্রধানমন্ত্রী করতে যুবলীগ অঙ্গীকারাবদ্ধ। উক্ত লক্ষকে সামনে রেখে জেলা যুবলীগ শাহজাদপুর উপজেলা যুবলীগের ত্রি-বার্ষিক সন্মেলন করার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে। সিদ্ধান্ত মোতাবেক আগামী ২৫ এপ্রিল বুধবার উপজেলা যুবলীগের ত্রি-বার্ষিক সন্মেলন অনুষ্ঠিত’র জন্য সকল প্রকার প্রস্তুতি গ্রহণপূর্বক তাৎক্ষনিক সিরাজগঞ্জ জেলা যুবলীগকে অবগত করার নির্দেশ প্রদান করা হলো।
এ নির্দেশনা পাবার পর থেকে বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ শাহজাদপুর উপজেলা শাখা’র ত্রি-বার্ষিক সন্মেলনের সাম্ভাব্য সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদপ্রার্থীরা কোমড় বেধেঁ মাঠে নেমেছেন। ঘুরছেন পৌর এলাকার মহল্লায় মহল্লায়, এ ইউনিয়ন থেকে সে ইউনিয়ন। প্রার্থীরা বিভিন্ন স্থানে গিয়ে ভোটারদের সাথে কথা বলছেন এবং নিজের পক্ষে ভোট চাইছেন।
সাম্ভাব্য সভাপতি ও সাধরণ সম্পাদক পদপ্রার্থীদের মধ্যে যুবলীগের ত্রি-বার্ষিক কাউন্সিলে যাদের নাম শোনা যাচ্ছে তারা হলেন, সভাপতি পদপ্রার্থী মানুনর রশীদ লিয়াকত (বর্তমানে উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক), ইউনুস আলী (বর্তমানে উপজেলা যুবলীগের সভাপতি ও সাবেক পৌর কাউন্সিলর), আরিফুর ইসলাম পলাশ (সাবেক জিএস, শাহজাদপুর সরকারি কলেজ), নুরুল ইসলাম মিঠু (উপজেলা যুবলীগের অন্যতম সদস্য ও সহ-সভাপতি, উপজেলা ক্রীড়া সংস্থা), সাধারণ সম্পাদক পদপ্রার্থী হলেন, মোঃ রাজীব শেখ (উপজেলা যুবলীগের প্রচার ও প্রকাশনা বিষয়ক সম্পাদক, তারুণ্যদীপ্ত যুবলীগ নেতা), কামরুল হাসান হিরোক (সবুজ বিপ্লবের উদ্যোক্তা, শাহজাদপুর পৌর ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক/সভাপতি) ও যুবলীগ নেতা আশিকুল হক দিনার।
জানা গেছে, আসন্ন উপজেলা যুবলীগের ত্রি-বার্ষিক সন্মেলনে শাহজাদপুর পৌর এলাকা ১৫ জন, ১১টি ইউনিয়নের ইউনিয়ন প্রতি ১৫ জন করে সর্বমোট ১’শ ৬৫ জন এবং উপজেলা যুবলীগের ৫১ জনসহ সর্বমোট ২’শ ৩১ জন ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন যদি ২৫ এপ্রিল পর্যন্ত সবকিছু ঠিকঠাক থাকে।
দলীয় সূত্রে জানা গেছে, গত ২০০৪ সালে বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ শাহজাদপুর উপজেলা শাখার ত্রি-বার্ষিক নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। ওই নির্বাচনে মোঃ ইউনুস আলী সভাপতি, মামুনর রশীদ লিয়াকত সাধারণ সম্পাদক ও হারুণ শেখ সাংগঠনিক সম্পাদক নির্বাচিত হন। পরবর্তী ৩ বছর পর ওই কমিটির মেয়াদ উত্তীর্ণ হলেও অজ্ঞাত কারণে উপজেলা যুবলীগের ত্রি-বার্ষিক সন্মেলন আর অনুষ্ঠিত হয়নি।
সাম্ভাব্য প্রার্থীগণ ও যুবলীগ নেতৃবৃন্দ আক্ষেপ প্রকাশ করে অভিযোগে জানান,’তাদের দীর্ঘদিনের দাবির প্রেক্ষিতে উপজেলা যুবলীগের ত্রি-বার্ষিক সন্মেলন সম্পন্ন করার জন্য ইতিপূর্বে বেশ কয়েকবার দলীয়ভাবে তারিখ, দিন, ক্ষণ, স্থান নির্ধারণ করে ত্রি-বার্ষিক সন্মেলন সম্পন্ন করার ঘোষণা দিলেও বিভিন্ন সময়ে সেটাও ভেস্তে যায়। ইতিপূর্বে কয়েকবার উপজেলা যুবলীগের পকেট কমিটি গঠনের অপচেষ্টা করা হলেও তা সফল হয়নি, হতে দেয়া হয়নি। ’বেশ কয়েকজন যুবলীগ নেতৃবৃন্দ ও ভোটার ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন,‘বার বার তাদের ভোট প্রদানের ও নির্বাচনে অংশগ্রহণের অধিকার থেকে বঞ্চিত করা হয়েছে। ফের যদি যোগ্য প্রার্থীদের বাদ দিয়ে, ভোটারদের ভোট প্রদানের অধিকার থেকে বঞ্চিত করে ক্ষমতা কুক্ষিগত করতে একক করায়াত্বে ক্ষমতা নেয়ার অভিলক্ষ্যে অযোগ্য প্রাথীদের নিয়ে পকেট কমিটির মতো কমিটি গঠনের অপচেষ্টা করা হয়, সেটা আর মেনে নেয়া হবে না। যে কোন মূল্যে যুবলীগ নেতৃবৃন্দ তা প্রতিহত করার মাধ্যমে তাদের ভোটের অধিকার প্রতিষ্ঠিত করবে।’ তারা আরও বলেছেন,‘ আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির নির্দেশনানুযায়ী উপজেলা যুবলীগের সাংগঠনিক কাজকর্মে গতিশীলতা ফিরিয়ে এনে নৌকা মার্কাকে বিজয়ী করে প্রধানমন্ত্রী, সফল রাষ্ট্রনায়ক জননেত্রী শেখ হাসিনা’কে আবারও বাংলার প্রধানমন্ত্রী করতে কেন্দ্রীয় যুবলীগসহ সারাদেশের যুবলীগ অঙ্গীকারাবদ্ধ, আগামী ২৫ তারিখে অনুষ্ঠিতব্য শাহজাদপুর উপজেলা যুবলীগের ত্রি-বার্ষিক সন্মেলন সম্পন্ন করে যোগ্য নেতৃত্ব নির্বাচিত করার মধ্য দিয়ে সেই অঙ্গীকার বাস্তবায়নে সর্বাত্বক চেষ্টা চালিয়ে যাবেন।’