শাহজাদপুরে ১০ টাকা কেজি চাল পাচারের অভিযোগে ইউনিয়ন আ’লীগ সেক্রেটারীসহ ৩ জনের বিরুদ্ধে মামলা : আটক ১

শাহজাদপুর প্রতিনিধি : শাহজাদপুরে ১০ টাকা কেজির চাউল পাচার করে কালোবাজারে বিক্রির ঘটনায় গোটা এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। এ ঘটনায় ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকসহ ৩ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের হয়েছে। পুলিশ এ ঘটনায় সোনাতুনী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আয়েজ উদ্দিনকে আটক করে জেলহাজতে প্রেরণ করেছে। জানা গেছে, উপজেলা দুর্গম যমুনার চরাঞ্চল সোনাতুনী ইউনিয়নের নির্বাচিত ডিলার মজিবর রহমান তার ভাই আয়েজ উদ্দিনকে দিয়ে এলাকায় হতদরিদ্রদের জন্য বরাদ্দকৃত ১০ টাকা কেজির চাল বিক্রি করাতো। এলাকাবাসী জানায়, হতদরিদ্রদের জন্য চাল আনলেও তার ভাই অবৈধভাবে কার্ডধারীদের না দিয়ে কালোবাজারে বিক্রি করে আসছিলো। এলাকার সাবেক মেম্বর শামসুল আলম জানান, গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে ৩টি ঘোড়ার গাড়িতে ৪৮ বস্তা চাল শ্রীপুর গোডাউন থেকে বিক্রির উদ্দেশ্যে বড় চামতারা এলাকায় নিয়ে যাচ্ছিল। এমন সময় স্থানীয় বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী ঘোড়ার গাড়িসহ ১৬ বস্তা চাল আটক করলেও অবশিষ্ট ৩২ বস্তা জোড়পূর্বক পাচার করা হয়। বিষয়টি শাহজাদপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে জানালে তার নির্দেশে ভ্রাম্যমান আদালতের ম্যাজিষ্ট্রেট সহকারী কমিশনার (ভূমি) মোহাম্মদ হাসিব সরকার সঙ্গীয় থানার এসআই ফারুক আজম, এএসআই আমজাদ হোসেন ঘটনাস্থলে গিয়ে এলাকাবাসীর হাতে আটক ১৬ বস্তা ও শ্রীপুর বাজারের আব্দুল কাদেরর ঔষধের দোকান থেকে আরও ৭ বস্তা চাল উদ্ধার করে। এ সময় শতশত এলাকাবাসী অভিযোগ করেন, ‘সরকারের গোডাউন থেকে চাল উত্তোলন করে তারা দীর্ঘদিন ধরে কালোবাজারে বিক্রি করে আসছে।’ শাহজাদপুর সহকারী কমিশনার (ভূমি) জানান, ‘ সরকারের খাদ্য বান্ধব কর্মসূচীর আওতাভূক্ত হতদরিদ্রদের জন্য বরাদ্দকৃত ১০ টাকা কেজির চাল কালোবাজারে পাচারের ঘটনায় ডিলার মজিবর রহমান, তার ভাই আয়েজ উদ্দিন ও ডা. আব্দুল কাদেরের বিরুদ্ধে উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক ইয়াছিন আলী বাদী হয়ে ফৌজদারী আইনে মামলা দায়ের করেছে। ’