৫ হাজার মানুষের যাতায়াতে চরম দূর্ভোগ


শাহজাদপুরে সেতুতে উঠতে লাগে মই

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর উপজেলার হাবিবুল্লাহনগর ইউনিয়নের ডায়া ঘোনাপাড়া গ্রামের মোহন মাস্টারের বাড়ির পাশে খালের উপর নির্মিত কংক্রিট সেতুর দু‘পাশের সংযোগ সড়ক না থাকায় গত ৩ বছর ধরে সেতুটি পরিত্যাক্ত অবস্থায় পড়ে আছে। এটি এখন এলাকাবাসির কোন কাজেই আসছেনা।
ডায়া ঘোনাপাড়া গ্রামের আব্দুল মালেক, ফখরুল ইসলাম, মনজেল হোসেন, সুজন মিয়া, রজিনা খাতুন, খাদিজা খাতুন, শাহনাজ বেগম বলেন, গত ২০১৬-১৭ ইং অর্থ বছরে ৩৮ লাখ টাকা ব্যয়ে শাহজাদপুর উপজেলা দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা বিভাগ ৪০ ফুট দৈর্ঘ্যরে এ সেতুটি নির্মাণ করেন। সেই থেকে গত ৩ বছরেও এ পরিত্যাক্ত সেতুটির দু‘পাশে কোন সংযোগ সড়ক নির্মাণ করা হয়নি। সংযোগ সড়কের অভাবে সেতুটিতে উঠতে মই ব্যবহার করতে হয়। মই ছাড়া সেতুটিতে ওঠা যায় না। ফলে পরিত্যাক্ত সেতুটি এলাকাবাসি এখন গোবরের ঘোষি, ভেজা কাপড়, লেপ, তোষক, কাঁথা-বালিশ, চট, ছালা, পলিথিন কাগজ ও শিশুদের মূত্রের তেনা শুকানোর কাজে ব্যবহার করছেন। এ জন্য তারা সেতুটির উত্তর পাশে একটি কাঠের মই স্থাপন করে নিয়েছেন। এ মই দিয়ে উঠেই এলাকাবাসি তাদের এ প্রয়োজনীয় কাজগুলি প্রতিদিন সারছেন।
অপর দিকে বর্ষায় নৌকায় ও শুষ্কমৌসুমে সেতুটির নিচ দিয়ে পথচারিদেও চলাচল করতে হচ্ছে। তারা জানায়, এতে তাদেও ধন চালের বোঝা, খইল ভুষির বস্তা মাথায় নিয়ে চলাচল করতে খুবই কষ্ট হচ্ছে। তাই তারা অবিলম্বে এ সেতুটির দু‘পাশের সংযোগ সড়ক নির্মাণের জোর দাবী জানান।
এ ব্যাপারে হাবিবুল্লাহনগর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আব্দুল মজিদ সরকার বলেন, এলাকাবাসি মাটি না দেয়ার কারণে সংযোগ সড়ক নির্মাণ সম্ভব হয়নি। আগামী সেশনে কর্মসৃজন কর্মসূচি প্রকল্পর শ্রমিক দিয়ে সেতুটির সংযোগ সড়ক তৈরী করার পরিকল্পনা হেেত নেয়া হয়েছে। এতে কাজ না হলে, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তার সাথে কথা বলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।
এ ব্যাপারে শাহজাদপুর উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা জিন্দার আলী বলেন, সরেজমিন পরিদর্শন করে অচিরেই এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।