শাহজাদপুরে যুবককে ফালাবিদ্ধ করে হত্যা

শাহজাদপুর প্রতিনিধি : গত সোমবার শাহজাদপুর উপজেলার যমুনা নদী তীরবর্তী দুর্গম ভূলবায়রা গ্রামে জমিজমা সংক্রান্ত পূর্ব বিরোধের জের ধরে জাহাঙ্গীর আলী (২৭) নামের এক যুবককে ফালাবিদ্ধ করে হত্যা করা হয়েছে। এ সময় ৪/৫ টি বাড়িঘর ভাংচুর ও লুটপাটের ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের হয়েছে। পুলিশ নিহতের লাশ উদ্ধার করে পোষ্টমর্টেমের জন্য সিরাজগঞ্জ হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করেছে। অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে ওই গ্রামে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।
পুলিশ ও এলাকাবাসী জানায়, গত সোমবার সন্ধ্যায় উপজেলার গালা ইউনিয়নের ভূলবায়রা গ্রামের আনছার আলী ওরফে আনছু’র ছেলে জাহাঙ্গীর শাহজাদপুর থেকে বাড়ি ফেরার পথে বাড়ির কাছাকাছি পৌঁছালে পূর্ব থেকে ওঁৎ পেতে থাকা একই গ্রামের মৃত আবু বক্কারের ছেলে জিন্নাহ’ (৪২) ও নাইমুদ্দির ছেলে কালাচাঁদ (৪৮) এর নেতৃত্বে একদল সন্ত্রাসী দেশীয় অস্ত্রসস্ত্রে সজ্জিত হয়ে জাহাঙ্গীরের ওপর হামলা চালায়। এ সময় জিন্নাহসহ সন্ত্রাসীরা জাহাঙ্গীরকে মাটির ওপর ফেলে বুকের বাম পার্শ্বে ও মাথায় ফালা ঢুকিয়ে দেয় ও বেধড়ক মারপিট করে বলে নিহতের বোন প্রত্যক্ষদর্শী রাশিদা জানান। পরে জাহাঙ্গীরের স্বজনেরা তাকে উদ্ধার করে বেড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করে। এ খবর ছড়িয়ে পড়লে উভয় গ্রুপের মধ্যে ফের আরেকদফা সংঘর্ষ, বাড়িঘর ভাংচুর ও লুটপাটের ঘটনা ঘটে। নিহতের পিতা আনছু জানান, ‘গত শনিবার কাশিপুর বাজারস্থ তার চায়ের দোকানে হামলা চালিয়ে তাকে গুরুতর আহত করে জিন্নাহ গং।’ তিনি অভিযোগ করেন, ‘বাড়ির ৩ শতক জমির মালিকানা দাবী নিয়ে জিন্নাহ গং তার ওপর হামলা চালিয়েছিলো এবং তার ছেলে জাহাঙ্গীরকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করেছে।’ খবর পেয়ে শাহজাদপুর থানার অফিসার ইনচার্জ খাজা গোলাম কিবরিয়া, পরিদর্শক (তদন্ত) মনিরুল ইসলাম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। পুলিশ এ দিন রাত ১১ টার দিকে নিহতের লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। পরে নিহতের সহোদর জুয়েল রানা বাদী হয়ে ১৮ জন নামীয়সহ আরও অজ্ঞাত বেশ কয়েকজনকে আসামী করে থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছে। এ ব্যাপারে শাহজাদপুর থানার অফিসার ইনচার্জ খাজা গোলাম কিবরিয়া জানান, ‘ জমি-জমা নিয়ে পূর্ব বিরোধের জের ধরে এ ঘটনা ঘটেছে। মামলা হয়েছে। আসামীদের গ্রেফতারে পুলিশী তৎপরতা অব্যাহত রয়েছে।’