শাহজাদপুরে মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উদযাপিত

নিজস্ব প্রতিবেদক: যথাযোগ্য মর্যাদায় নানা আয়োজনে গতকাল সোমবার শাহজাদপুরে মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উদযাপিত হয়েছে। এ উপলক্ষে উপজেলা প্রশাসন দিনব্যাপি নানা অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। গতকাল সূর্য্যদয়ের সাথে সাথে ৩১বার তোপধ্বনির মাধ্যমে স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবসের সূচনা হয়। পরে স্থানীয় সরকারি কলেজ শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পন করে মহান মুক্তিযুদ্ধের শহিদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন জানানো হয়। সকাল ৮ টায় শাহজাদপুর পাইলট হাই স্কুল মাঠে আনুষ্ঠানিকভাবে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান প্রফেসর আজাদ রহমান। পরে তিনি বীর মুক্তিযোদ্ধা, বাংলাদেশ পুলিশ, আনসার ও ভিডিপি, কাব স্কাউট, গালর্স গাইড, রোভার স্কাউট এবং বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছাত্র-ছাত্রীদের সম্মিলিত কুচকাওয়াজে সালাম গ্রহণ করেন। এ সময় বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা ডিসপ্লে প্রদর্শন করে। সকাল ১১ টায় উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে বীর মুক্তিযোদ্ধা ও শহিদ মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সদস্যেদের সংবর্ধনা দেয়া হয়। স্থানীয় পাইলট হাই স্কুল মাঠের মুুক্ত মঞ্চে অনুষ্ঠিত এ সংবর্ধনা ও আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, স্থানীয় সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব হাসিবুর রহমান স্বপন। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা প্রফেসর আজাদ রহমান, মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার খালেকুজ্জামান খান ও কেন্দ্রীয় যুবলীগের আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক ড. সাজ্জাদ হায়দার লিটন। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার শেহেলী লায়লা। ‘মুক্তিযুদ্ধ, স্বাধীনতা ও সুখী-সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গঠনে ডিজিটাল প্রযুক্তির ব্যবহার’ শীর্ষক আলোচনা সভায় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, পৌরসভার মেয়র নাসির উদ্দিন, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মুস্তাক আহমেদ, মুক্তিযোদ্ধা বিনয় কুমার পাল, মুক্তিযোদ্ধা নেয়ামুল ওয়াকিল খান আরঙ্গ, মুক্তিযোদ্ধা গোলাম মওলা আজম, সহকারি কমিশনার (ভূমি) মোহাম্মদ হাসিব সরকার, ডাঃ ইউনুস আলী খান, থানার অফিসার ইনচার্জ খাজা গোলাম কিবরিয়া প্রমুখ। এর আগে মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উপলক্ষে সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব হাসিবুর রহমান স্বপনের নেতৃত্বে মুক্তিযোদ্ধাদের এক বর্ণাঢ্য র‌্যালি বের হয়ে পৌর এলাকার বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে। এছাড়া স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে প্রামান্য চলচ্চিত্র প্রদশনী, ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ও মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। পাশাপাশি বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উদযাপন উপলক্ষে দিনব্যাপি নানা কর্মসূচির আয়োজন করে।