শাহজাদপুরে বিশ্বব্যাংকের অর্থ সহায়তায় দুদকের ৩৬ তম গণশুনানী

শামছুর রহমান শিশির : বিশ্বব্যাংকের আর্থিক সহায়তায় আজ ১১ জানুয়ারি বুধবার সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুরে দুদক আয়োজিত দুর্নীতি প্রতিরোধ বিষয়ক ৩৬তম গণশুনানী অনুষ্ঠিত হয়েছে। উপজেলা শহিদ স্মৃতি মিলনায়তনে শাহজাদপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার আলীমুন রাজীবের সভাপতিত্বে দুই পর্বের অনুষ্ঠিত ওই সভায় প্রথম পর্বে ছিলো অতিথিবৃন্দের বক্তব্য। দ্বিতীয় পর্বে অভিযোগকারীদের অভিযোগের বিষয়ে গণশুনানী অনুষ্ঠিত হয়। ওই গণশুনানীতে মর্ডারেটর হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন সিরাজগঞ্জ জেলা প্রশাসক কামরুন নাহার সিদ্দীকা। প্রথম পর্বে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, দুদক প্রধান কার্যালয়ের কমিশনার (তদন্ত) এএফএম আমিনুল ইসলাম। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, সিরাজগঞ্জ পুলিশ সুপার মিরাজ উদ্দিন আহমেদ, দুদক রাজশাহী বিভাগীয় পরিচালক আবদুল আজিজ ভূঁইয়া, দুদক প্রধান কার্যালয়ের পরিচালক ( প্রতিরোধ ও গণসচেতনতা) মো: মনিরুজ্জামান, উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান প্রফেসর আজাদ রহমান, ভাইস চেয়ারম্যান মুস্তাক আহমেদ প্রমূখ। স্বাগত বক্তব্য রাখেন উপজেলা দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি এ এম আব্দুল আজীজ। দ্বিতীয় পর্বে গণশুনানীতে অংশ নেন অভিযোগকারীরা। অভিযোগকারীদের মধ্যে মো: জাহাঙ্গীর আলম, মো: গোলজার হোসেন, ইউসুফ আলী, শামছুল হক, তৈয়ব মোল্লা, আব্দুল মোন্নাফ মন্ডল, মো: রওশন আলী । এদের প্রত্যেকেরই অভিযোগ ছিলো বিদ্যুৎ সংযোগ প্রাপ্তিতে পল্লী বিদ্যুতের কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে নানা অনিয়ম ও দুর্নীতির। অভিযোগে উত্তর দেন সিরাজগঞ্জ পল্লী বিদ্যুত সমিতির জেনারেল ম্যানেজার হাসান আহমেদ মজুমদার ও শাহজাদপুর জোনাল অফিসের ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার জুলফিকার রহমান। তারা অভিযোগকারীদের সকল অভিযোগ দ্রুত নিরসনের প্রতিশ্রুতি দিয়ে অভিযোগ থেকে অবমুক্তি পান। উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসের অনিয়ম দুর্নীতির বিরুদ্ধে অভিযোগ দেন পোরজনা এমএন উচ্চ বিদ্যালয়ের পেন্ডিং পরিচালনা পরিষদের সভাপতি জহুরুল সর্দার পলাশ। তিনি স্কুলের প্রধান শিক্ষক ওয়ারেছ আলীর বিরুদ্ধে নানা দুর্নীতির অভিযোগ করেন। এসব অভিযোগে উত্তর দেন উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার আব্দুল কাদের বিশ্বাস ও উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার সাঈদা সিদ্দীকা। ভূমি অফিস ও সাবরেজিষ্টারের নানা অনিয়মের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেন শামছুর রহমান। ১ দিনের মধ্যে সরকারি সম্পত্তি রেজিষ্ট্রি হয়েছে কী না বিষয়টি নিশ্চিত করতে স্থানীয় সাবরেজিষ্টারকে নির্দেশনা প্রদান করা হয়। পোরজনা ভূমি অফিসের নায়েব শামসুল হকের জাল জালিয়াতির কারণে তাকে সাময়িকভাবে বরখাস্তের নির্দেশ দেয়া হয়। উপজেলা ভূমি অফিসের পিয়ন আলমের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহনের নির্দেশ দেয়া হয়। মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের নানা অনিয়ম ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে অভিযোগ করেন মুক্তিযোদ্ধা, সাংবাদিক, গবেষক আবুল বাশার। অভিযোগের প্রেক্ষিতে সিরাজগঞ্জ জেলা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক নুরূল হকের সম্পদের হিসাব বিররণী প্রস্তুত ও তা অনুসন্ধানের নির্দেশসহ শাহজাদপুরের মাদক ব্যবসায়ী মানিক সরকার ও তার পিতা রতন সরকারের মদের পারমিট বাতিলের নির্দেশ এবং উল্লাপাড়ার মাদক ব্যবসায়ী খন্দকার শফিকুর রহমানের শাহজাদপুরে মদের দোকান খুলে ব্যবসা বন্ধ করে দেয়ার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। গণশুনানী অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি দুদক কমিশনার এএফএম আমিনুল ইসলাম বলেন, ‘২০১৬ সাল ছিলো সরকারি কর্মকর্তাদের জন্য সতর্কতামূলক বার্তা। কিন্তু ২০১৭ সালে এটি হবে না। আইন অনুযায়ী সকল দুর্নীতিবাজ কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে দুর্নীতি দমন আইন প্রয়োগ করা হবে। তিনি সরকারি অফিসের সকল কর্মকর্তাদের ছবিসহ নাম, মোবাইল নম্বর এবং সিটিজেন চার্টার অনুযায়ী জনগণ কার কাছে কোন ধরণের এবং কত দিনের মধ্যে সেবা পাবেন, এ ধরণের তথ্য সম্বলিত সাইনবোর্ড টাঙ্গানোর নির্দেশ দেন। তিনি আরও বলেন, দুদকের গণশুনানী ঘোষণায় একটি বিশেষ বিভাগের কর্মকর্তারা ঘুষের টাকা ফেরত দিয়েছেন এমন খবরও তার নিকট রয়েছে বলে তিনি জানিয়ে বলেন, ‘ যদি ঘুষ নেয়া অপরাধ, এই আত্ম উপলদ্ধি থেকে তারা যদি টাকা ফেরত দিয়ে থাকেন, তাহলে দুদকের তেমন কিছু বলার নেই। কিন্তু অভিযোগ থেকে মুক্তি পাওয়ার কৌশল হিসেবে যদি এটা করে থাকেন, তবে এ বিষয়ে দুদক যথাযথ পদক্ষেপ নেবে।’ এই গণশুনানীর পর সাধারণ মানুষের মধ্যে আশার সঞ্চার হয়েছে।

এখানে মন্তব্য করুন

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.