শাহজাদপুরে প্রফেসর ডক্টর মযহারুল ইসলামের ১৭তম মৃত্যু বার্ষিকী পালিত

রবিবার(১৫ নভেম্বর) আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন ফোকলোরবিদ, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য, বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ, কবি, গবেষক, বাংলা একাডেমির প্রতিষ্ঠাতা মহাপরিচালক, সংস্কৃতিকর্মী ও মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক প্রফেসর ড. মযহারুল ইসলামের ১৭ মৃত্যুবার্ষিকী পালিত হয়েছে। তার মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে শাহজাদপুরে বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন নানা কর্মসুচি পালন করেছে ।

এ উপলক্ষে উপজেলার পৌর সদরের শক্তিপুরস্থ ‘নুরজাহান’-এ মযহারুল ইসলামের সমাধিতে সকালে শ্রদ্ধাঞ্জলী নিবেদন করে তাঁর আত্মার মাগফিরাত কামনা করে দোয়া করা হয়। এছাড়াও শাহজাদপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মুস্তাক আহমেদের ব্যাক্তিগত উদ্যোগে প্রফেসর ডক্টর মযহারুল ইসলামকে স্মরণ করে তাঁর সমাধিতে শ্রদ্ধা নিবেদন ও বিশেষ মোনাজাত পরিচালনা করা হয়। এসময় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন কৈজুরি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি হারুনর রশীদ, সাংবাদিক ও মানবাধিকার কর্মী মনিরুল গনি চৌধুরী শুভ্র, স্বাধীনতা পরিষদ শাহজাদপুর শাখার সভাপতি মির্জা রাজু, সাবেক ছাত্র নেতা হাজী আব্দুস সোবহান, সাংবাদিক ফারুক হাসান কাহার, মানবাধিকার কর্মী ইব্রাহিম খলিলুল্লাহ নিশান প্রমুখ।

ড. মযহারুল ইসলাম তার বর্ণাঢ্য কর্মজীবনে স্বাধীন বাংলাদেশে বাংলা একাডেমীর প্রথম মহাপরিচালক এবং রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসির দায়িত্ব পালন করেন। এছাড়াও বিশ্বের বিভিন্ন বিখ্যাত বিশ্ববিদ্যালয়ে ভিজিটিং প্রফেসর হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। রাজনীতি সচেতন প্রফেসর ইসলাম মহান ভাষা আন্দোলন ও মুক্তিযুদ্ধে সক্রিয় অংশগ্রহণ করেন।

দেশবরেণ্য এই শিক্ষাবিদ ২০০৩ সালের ১৫ নভেম্বর সকাল ৮টা ১১ মিনিটে ব্যাংককের বামরুনগ্রাদ হাসপাতালে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। তার চার সন্তানরা হলেন, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য প্রফেসর মেরিনা জাহান কবিতা, বিশিষ্ট শিল্পপতি ও সাবেক সংসদ সদস্য চয়ন ইসলাম, যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী প্রফেসর ড. ছন্দা ইসলাম এবং বিশিষ্ট কম্পিউটার বিজ্ঞানী ও শিল্পপতি শোভন ইসলাম।