শাহজাদপুরে দিনে দুপুরে চুরি হওয়া ৮ ভরি স্বর্ণালংকার বেলকুচি থেকে উদ্ধার !

শাহজাদপুর প্রতিনিধি: গত ২৭ নভেম্বর পৌরসদরের ইসলামপুর (রামবাড়ী) মহল্লার হাজী সেলিমের ‘একতা’ বাসভবনের দ্বো-তলার ভাড়াটিয়ার বাসা থেকে দিনে দুপুরে চুরি যাওয়া ৮ ভরি স্বর্ণালংকার পার্শ্ববর্তী বেলকুচি উপজেলা থেকে অক্ষত অবস্থায় গতকাল বৃহস্পতিবার গভীর রাতে উদ্ধার করেছে শাহজাদপুর থানার উপ-পরিদশক (এসআই) আব্দুল জলিল। রাতেই শাহজাদপুর থানার অফিসার ইনচার্জ রেজাউল হক, পরিদর্শক (তদন্ত) মনিরুল ইসলাম ও সংবাদকর্মীদের উপস্থিতিতে ওই স্বর্ণালংকারের মালিক ভাড়াটিয়া মিল্কভিটা’র ভেটেরিনারী সার্জন শরীফুল ইসলাম ও তার স্ত্রীর হাতে হস্তান্তর করা হয়েছে। চুরি হবার ৪ দিনের মধ্যেই অক্ষত অবস্থায় পুরো স্বর্ণালংকার ফেরত পেয়ে শরীফুল ইসলাম ও তার স্ত্রী শাহজাদপুর থানা পুলিশের প্রতি গভীর কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।
জানা গেছে, গত ২৭ নভেম্বর রোববার সকাল ১০ টায় সেলিম হাজীর বাসার দ্বো-তলা’র ভাড়াটিয়া মিল্কভিট’র মোহনপুরে কর্মরত ভেটেরিনারি সার্জন শরীফুল ইসলামের বাসায় বোরকা পড়ে আ্রত্মীয়তার পরিচয় দিয়ে অজ্ঞাত এক মহিলা প্রবেশ করে। এ সময় ওই বাসায় তাদের সন্তান ছাড়া কেউ ছিলো না। সুযোগ বুঝে ওই মহিলা বঙ্খাটের নীচে লুকিয়ে রাখা ৮ ভরি ওজনের স্বর্ণালংকার চুরি করে নিয়ে পালিয়ে যায়। পরে শরীফুল ও তার স্ত্রী বাসায় এসে তাদের সন্তানের কাছে ওই মহিলার আগমনের বিষয়ে জানতে পারেন এবং বাসায় মালামাল ঠিক আছে কী না তার সন্ধান করতে গিয়ে দেখতে পান খাটের নীচে লুকিয়ে রাখা ৮ ভরি স্বর্ণের গহনা নেই। এ ব্যাপারে শরীফুল ইসলাম বাদী হয়ে ওই দিনই শাহজাদপুর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দাখিল করেন। মামলাটির তদন্তভার এসআই আব্দুল জলিলের ওপর ন্যস্ত করা হয়। তদন্তকারী কর্মকর্তা ওই বাসা পরিদর্শন করে কোন তালা ভাঙ্গা দেখতে না পেয়ে মনে সন্দেহের সৃষ্টি হয় এবং বাসায় পূর্বে কর্মরত সকল গৃহপরিচারিকার সম্পর্কে খোজখবর নেন। তিনি জানতে পারেন, পার্শ্ববর্তী বেলকুচি উপজেলার বালাপাড়া গ্রামের আনোয়ার হোসেনের মেয়ে আলেয়া খাতুন মিম ইতিপূর্বে ওই বাসায় গৃহপরিচারিকার কাজ করতেন। ওই ঠুনকো সূত্র ধরে গতকাল বৃহস্পতিবার রাতেই এসআই আব্দুল জলিল সঙ্গীয় ফোর্সসহ বেলকুচির বালাপাড়াস্থ আনোয়ার হোসেনের বাড়িতে অভিযান চালান। এ সময় গৃহপরিচারিকা মিমের পিতা আনোয়ারকে জিজ্ঞাসাবাদে সন্দেহের সৃষ্টি হলে বাড়ির মাটি খুড়ে পলিথিনে মোড়ানো অক্ষত অবস্থায় চুরি যাওয়া ৮ ভরি স্বর্ণালংকার অবশেষে খুজে পান। খবর দেয়া হয় শরীফুল ইসলাম ও তার স্ত্রীকে। তারা থানায় এসে উদ্ধারকৃত ৮ ভরি স্বর্ণালংকার সনাক্ত করেন। অবশেষে গত রাত সাড়ে ১১ টার দিকে থানার অফিসার ইনচার্জ রেজাউল হক, পরিদর্শক (তদন্ত) মনিরুল ইসলামের উপস্থিতিতে শরীফুল ইসলাম ও তার স্ত্রীর হাতে চুরি যাওয়া ৮ ভরি স্বর্ণালংকার হস্তান্তর করা হয়। শাহজাদপুর থানা পুলিশ কর্তৃক ৮ ভরি স্বর্ণালংকার অক্ষত অবস্থায় উদ্ধারের ঘটনাটি বিজ্ঞমহল অভাবনীয় সাফল্য হিসেবে আখ্যায়িত করেছেন।

এখানে মন্তব্য করুন

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.