অভিযোগকারী ইউপি চেয়ারম্যান হাজী সুলতান আমাকে মুক্তিযোদ্ধা ও আমার মেয়েকে মুক্তিযোদ্ধার মেয়ে হিসেবে প্রত্যয়নপত্র দিয়েছেন; ৭১ সালে তার বয়স ছিলো ২ বছর


শাহজাদপুরে অপ্রপ্রচারের প্রতিবাদে মুক্তিযোদ্ধা বজলুর রশীদের পাল্টা সংবাদ সম্মেলন

শাহজাদপুর বঙ্গবন্ধু মহিলা ডিগ্রি কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ (অবঃ), সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান ও এনায়েতপুর থানা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি বীরমুক্তিযোদ্ধা বজলুর রশীদের বিরুদ্ধে জালালপুর ইউপি চেয়ারম্যান হাজী সুলতান মাহমুদ আহূত অপপ্রচারর প্রতিবাদে পাল্টা সংবাদ সম্মেলন করেছেন মুক্তিযোদ্ধা বজলুর রশীদ ।

সোমবার (১১ জানুয়ারি) সকালে শাহজাদপুর পৌর এলাকার রপপুর মহল্লার বাসা বাড়িতে অনুষ্ঠিত পাল্টা সংবাদ সম্মেলনে উত্থাপিত অভিযোগ মিথ্যা, ভিত্তিহীন, উদ্দেশ্য প্রণোদিত ও চরম মানহানিকর উল্লেখ্য করে প্রতিবাদে লিখিত বক্তব্যে মুক্তিযোদ্ধা বজলুর রশীদ বলেন, ‘জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ডাকে সাড়া দিয়ে ১৯৭১ সালে ১৬ বছর বয়স মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ করি। রণাঙ্গনের ৭ নং সেক্টরে সশস্ত্র যুদ্ধ করার স্বীকৃতি স্বরপ ১৯৯৪ সাল বাংলাদশ মুক্তিযাদ্ধা সংসদ কেন্দ্রীয় কমান্ডে বীরমুক্তিযোদ্ধা হিসেবে আমার নাম তালিকাভূক্ত হয়। ২০০০ সালের ১২ জুন প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা ও মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কেন্দ্রীয় কমান্ডের চেয়ারম্যান আব্দুল আহাদ চৌধুরীর যৌথ স্বাক্ষরিত সনদপত্রের ( ক্রমিক নং- ২৭২৫৭) মাধ্যমে আমাকে মুক্তিযোদ্ধার স্বীকৃতি দেয়া হয় ও ২০০৪ নাম গেজেট ভুক্ত হয়। ২০১৭ সালে মুক্তিযোদ্ধা যাচাই-বাছাইয়ে মুক্তিযুদ্ধ সংশ্লিষ্ট কাগজপত্র যাচাই-বাছাই করে যাচাই বাছাই কমিটি আমাকে প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে প্রত্যয়ণ করে । মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রনালয়ের দেয়া সনদপত্রের অালোকে পরবর্তীতে মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে ভাতাপ্রাপ্ত হই।’

মুক্তিযোদ্ধা বজলুর রশীদ লিখিত বক্তব্যে ক্ষোভ প্রকাশ করে আরও জানান, ‘শাহজাদপুরের জালালপুর ইউনিয়ন পরিষদের আগামী নির্বাচনকে সামনে রেখে রাজনৈতিক প্রতিহিংসায় আমাকে সামাজিকভাবে হেয় প্রতিপন্ন করতে প্রধান প্রতিপক্ষ বর্তমান ইউপি চেয়ারম্যান হাজী সুলতান মাহমুদ গত ৬ জানুয়ারি সংবাদ সম্মেলন করে অপ্রকৃত মুক্তিযোদ্ধা আখ্যায়িত করে আমার বিরুদ্ধে যেসব অভিযাগ করেছেন তা অসত্য, মানহানীকর ও ষড়যন্ত্রমূলক। আমাকে অপ্রকৃত মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে অভিযোগকারী হাজী সুলতান মাহমুদের মুক্তিযুদ্ধের সময় বয়স ছিলো মাত্র ২ বছর। এছাড়া, অভিযোগকারী ইউপি চেয়ারম্যান হাজী সুলতান মাহমুদ ইউনিয়ন পরিষদের প্যাডে আমাকে প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধা ও আমার মেয়ে বর্নকেও মুক্তিযোদ্ধার সন্তান উল্লেখ করে প্রত্যয়নপত্র দিয়েছেন।’
এজন্য, পাল্টা এ সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে প্রকৃত সংবাদ প্রচারের জন্য উপস্থিত সংবাদকর্মীদের অনুরোধ জানান মুক্তিযোদ্ধা বজলুর রশীদ। উক্ত পাল্টা সংবাদ সম্মেলনে উপজেলার জালালপুর ইউনিয়নের সৈয়দপুর গ্রামের গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গসহ শাহজাদপুরে কর্মরত গণমাধ্যমকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।