যেভাবে চিনবেন নকল হ্যান্ড স্যানিটাইজার

যেভাবে চিনবেন নকল হ্যান্ড স্যানিটাইজার

করোনাকালে কিছু জিনিসের চাহিদা এবং ব্যবহার বেড়েছে বহুগুণ। এরমধ্যে উল্লেখযোগ্য জিনিসটি হচ্ছে হ্যান্ড স্যানিটাইজার। সারা বিশ্বেই এর ব্যবহার, চাহিদা এবং বিক্রি বেড়েছে কয়েকগুণ।

করোনাভাইরাস প্রতিরোধে বারবার সাবান পানি দিয়ে হাত ধোয়ার পরামর্শ দিয়েছেন স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা। তবে সব সময় তো আর হাতের কাছে সাবান পানি পাওয়া যায় না। সেক্ষেত্রে সফল বিকল্প অ্যালকোহলোযুক্ত হ্যান্ড স্যানিটাইজার। তবে কিছু অসাধু ব্যক্তি এর সুযোগ নিয়েছেন। তৈরি করছেন নকল হ্যান্ড স্যানিটাইজার। যা ভাইরাস প্রতিরোধ তো করেই না বরং স্বাস্থ্যের জন্যও মারাত্মক ক্ষতিকর। তাই জেনে নিন কীভাবে নকল হ্যান্ড স্যানিটাইজার চিনবেন-

টিস্যু পেপার টেস্ট

একটি টিস্যু পেপার নিয়ে তা সমতল জায়গায় রাখুন। এরপর একটি কলম দিয়ে এর মাঝে একটি বৃত্ত আঁকুন। ওই বৃত্তের ভেতরে কয়েক ফোঁটা হ্যান্ড স্যানিটাইজার ঢালুন। যদি কলমের কালি ম্লান হতে শুরু করে এবং ছড়িয়ে পড়ে তবে এর অর্থ হলো আপনার হ্যান্ড স্যানিটাইজারটি নকল। তবে যদি বৃত্তটি যেমন ছিল তেমনই থাকে এবং কাগজটি দ্রুত শুকিয়ে যায় তাহলে বুঝতে হবে স্যানিটাইজারটি আসল।

ময়দা বা আটা টেস্ট

আপনি ময়দা বা আটা ব্যবহার করেও হ্যান্ড স্যানিটাইজার পরীক্ষা করতে পারেন। একটি পাত্রে কিছুটা ময়দা নিন এবং এতে কিছুটা হ্যান্ড স্যানিটাইজার দিন। এরপর ময়দাটি ভালো করে মাখুন। আপনি যদি খুব সহজেই স্যানিটাইজার দিয়ে ময়দা মাখতে পারেন, তবে ওই হ্যান্ড স্যানিটাইজারটি নকল।

হেয়ার ড্রায়ার টেস্ট

এই পরীক্ষাটি করার জন্য একটি হেয়ার ড্রায়ার এবং একটি ছোট বাটি লাগবে। একটি বাটিতে কয়েক ফোঁটা হ্যান্ড স্যানিটাইজার ঢালুন। এবার একটি হেয়ার ড্রায়ার নিন এবং স্যানিটাইজারটি শুকানোর চেষ্টা করুন। স্যানিটাইজারটি যদি আসল হয় তাহলে তা শুকাতে পাঁচ সেকেন্ডের বেশি সময় লাগবে না। আর যদি স্যানিটাইজার শুকিয়ে না যায়, তবে বুঝবেন এটি আসল নয়।