বেলকুচিতে মাদ্রাসা ছাত্র হত্যার বিচারের দাবীতে মানব বন্ধন ও বিক্ষোভ

চন্দন কুমার আচার্য, বেলকুচি প্রতিনিধিঃ সিরাজগঞ্জের বেলকুচিতে নিখোঁজ হওয়ার দু’দিন পর আরিফুল ইসলাম (১৩) নামে এক মাদ্রাসা ছাত্রের মরদেহ উদ্ধারের ঘটনায় ঘাতকদের গ্রেফতার এবং বিচারের দাবীতে মানব বন্ধন ও বিক্ষোভ করেছে এলাকাবাসী ও শিক্ষার্থীরা।

আজ বৃহস্পতিবার সকালে বেলকুচি উপজেলার ক্ষিদ্রমাটিয়া থেকে একটি বিক্ষোভ মিছিল শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিন করে চালা বাসষ্ট্যান্ড এলাকায় এক পথসভা অনুষ্ঠিত হয়। এসময় মুকুন্দগাঁতীতে শেরনগর আহকামুল সুন্নাহ ফাজিল মাদ্রাসার শিক্ষার্থী সহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষর্থীরা এক মানব বন্ধন করেন। এদিকে পথসভায় বক্তব্য রাখেন বেলকুচি ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান আব্দুল মজিদ প্রামানিক, শেরনগর আহকামুল সুন্নাহ ফাজিল মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মোঃ সাইফুদ্দিন আনসারী, উপজেলা যুবলীগের আহব্বায়ক সাজ্জাদুল হক রেজা, আওয়ামীলীগ নেতা শরীফ মির্জা।
উল্লেখ্য গত সোমবার সকালে বেলকুচি পৌর এলাকার মুকুন্দগাঁতী বাজার এলাকায় যমুনা নদীর একটি ক্যানেল থেকে ভাসমান অবস্থায় আরিফুলের মরদেহ উদ্ধার করা হয়। আরিফুল একই উপজেলার ক্ষিদ্রমাটিয়া মহল্লার শহিদ শেখের ছেলে।
নিহতের পিতা শহিদ শেখ অভিযোগ করে বলেন, আরিফুল তার চার সহপাঠিকে মাদকসেবী বলার কারণে শনিবার দুপুরে তাদের সাথে তর্ক-বিতর্ক হয়। এক পর্যায়ে আরিফুলের কাছে থাকা তিন হাজার টাকা ও মোবাইল ফোন কেড়ে নেয় ওই সহপাঠিরা। বিকেল তিনটার দিকে আরিফুলের মামার সহায়তায় ওই টাকা উদ্ধারকরা হয়। ওইদিন সন্ধ্যায় জুতো কেনার কথা বলে আরিফুল ইসলাম মুকন্দগাঁতী বাজারে যাওয়ার পর নিখোঁজ হয়। রাতভর খোঁজাখুঁজি করে তাকে না পেয়ে পরদিন সকালে থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়।
বেলকুচি থানার অফিসার ইনচার্জ সাজ্জাদ হোসেন জানান, অভিযোগ পেয়ে রাতেই তিন সহপাঠিকে আটক করেথানায় এনে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। এখন পর্যন্ত দুজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বাকীদের দ্রুত গ্রেফতার করতে নিয়মিত অভিযান চলছে।