বেফাঁস মন্তব্য করা বিসিবি কর্তাদের একহাত নিলেন মাশরাফি

ফাইল ছবি

দেশের ক্রিকেটের নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) শীর্ষস্থানীয় কয়েকজন কর্মকর্তার বিরুদ্ধে অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন সাবেক অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা। বিশ্বকাপে মাশরাফি ও তামিম ইকবালের পারফরম্যান্স এবং ব্রেন টিউমারে আক্রান্ত ক্রিকেটার মোশাররফ রুবেলকে নিয়ে গণমাধ্যমের সামনে বোর্ডের কয়েকজন কর্মকর্তার প্রকাশ্য নেতিবাচক মন্তব্যে ক্ষোভ ঝেড়েছেন ‘নড়াইল এক্সপ্রেস’ খ্যাত এই ক্রিকেটার।

ওয়ানডে বিশ্বকাপে দলনেতা মাশরাফির পারফরম্যান্স সন্তোষজনক ছিল না। প্রত্যাশা পূরণ করতে পারেননি তামিমও। দুজনের পারফরম্যান্স নিয়ে বোর্ডের অনেকে কানাঘুষা করতেন- বিশ্বকাপে বাংলাদেশ খেলেছে ‘সাড়ে ৯’ জন খেলোয়াড় নিয়ে!

সম্প্রতি নট আউট নোমান অনুষ্ঠানে মাশরাফি বলেন, ‘যখন বলা হয় বাংলাদেশ দল সাড়ে ৯ জন বা ১০ জন নিয়ে বিশ্বকাপে খেলেছে… আর এটা যখন মিডিয়ার সামনে বসে বলবে! ফাজলামো করে হোক বা গুরুত্ব দিয়েই হোক, একজন দর্শক এটা বলতে পারে। কিন্তু ক্রিকেটের সর্বোচ্চ মহলের কেউ যখন এটা মিডিয়ার সামনে বলে তখন অবশ্যই কষ্ট লাগবে। কারণ আমি তো বোর্ডের বিরুদ্ধে কোনোদিন একটা কথা বলেনি। বোর্ড আমাকে ডেকে বলতে পারে।’

বিশ্বকাপে নিজের ম্লান পারফরম্যান্স মেনে নিলেও চেষ্টার কোনো কমতি ছিল না বলে খোলাসা করেন মাশরাফি। তিনি জানান, ‘বিশ্বকাপে এমন কোনো প্র্যাকটিস সেশন নেই যে আমি যোগ দেইনি। একদিন দুইজন খেলোয়াড় অনুশীলন করেছে, সেখানে একজন আমি ছিলাম। আমার ভালো খেলতে হবে এই চেষ্টা ছিল। আমি বিন্দুমাত্র ছাড় দেইনি। সর্বোচ্চ চেষ্টা করেছি, জানি না কেন হয়নি।’

জাতীয় দলের সাবেক ক্রিকেটার মোশাররফ হোসেন রুবেল ব্রেন টিউমারে আক্রান্ত হলে তার চিকিৎসার ব্যয়ভার বহন করার জন্য অনুদান দিয়েছিল বিসিবি। এ নিয়েও অসন্তোষ আছে অনেক বোর্ড কর্তার। মাশরাফি ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, ‘মোশাররফ রুবেলের ব্রেন টিউমার হয়েছে। আপনি (অনুযোগ করে) মিডিয়ায় বলছেন- কারও কয়দিন পর ক্যান্সার হবে, তাকেও টাকা দিতে হবে… তখন খেলোয়াড় হিসেবে মনে হয়- আমরাও অনেক কিছু বলতে পারি যেগুলো আপনাদের করারই প্রয়োজন নেই, কিন্তু আপনারা করেন। আমরা বলেছি কখনো? রুবেল মৃত্যুপথযাত্রী ছিল। পাপন ভাই বা বোর্ডের সর্বোচ্চ মহল আলোচনা করেই তো তার চিকিৎসার টাকাটা দিয়েছে। আপনার আপত্তি থাকলে পাপন ভাইর সামনেই করতেন, মিডিয়ার সামনে এসে কেন বলছেন? চিন্তা করুন, এটা শুনে রুবেলের পরিবারের কেমন লেগেছে।’

ইউটিউবের এই অনুষ্ঠানে মাশরাফি অকপটে স্বীকার করেন, বোর্ডের শীর্ষপর্যায়ের কর্তাদের এমন আচরণ মেনে নিতে পারেননি তিনি।

মাশরাফি বলেন, ‘সত্যি বলতে, এই বিষয়গুলো আমার খারাপ লেগেছে। আমার পারফরম্যান্সের কারণে আমাকে যেখানেই নামান না কেন, আমি প্রস্তুত আছি। কিন্তু বোর্ডের মানুষ কথা শোনাবে এটার জন্য আমি মোটেও প্রস্তুত ছিলাম না। তাও আপনাদের মাধ্যমে জেনেছি, আমার সামনে বললেও এক কথা ছিল। মিডিয়াকে বললে এটা সবাইকে বলা হয়ে যায়। তখন মিডিয়াও ভাবে- আমাদের ভেতরে সমন্বয় নেই। প্রশ্ন ওঠে- আমাকে তারা কোন চোখে দেখে আর আমি কোন চোখে দেখি। আমার উনাদের প্রতি শ্রদ্ধা আছে, বিশ্বাস করি বেশিরভাগ মানুষেরই আছে। যাদের ভালো লাগে না তারা অন্যভাবে বিষয়টা দেখতে পারত, যেটা করেনি।’

নিউজটি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

সূত্রঃ বিডি ক্রিকটাইম

এখানে মন্তব্য করুন

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.