বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী তরুণীকে অপহরণ করে পতিতালয়ে বিক্রির মূল হোতা টাঙ্গাইলে গ্রেফতার

ফাইল ফটো

শাহজাদপুর প্রতিনিধিঃ সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর উপজেলার মাদলা গ্রামের মানিক খার মেয়ে বুদ্ধি প্রতিবন্ধী তরুণীকে অপহরণ করে টাঙ্গাইল পতিতালয়ে বিক্রির হোতা চাঁন মিয়া (৬০) কে পুলিশ অবশেষে টাঙ্গাইল থেকে গ্রেফতার করেছে। সে টাঙ্গাইল সদর থানারকান্দাপাড়া গ্রামের কেফেত উল্লাহর ছেলে। পুলিশ জানায়, ভাল মানুষির আড়ালে চাঁন মিয়া সুদর্শন যুবকদের দিয়ে তরুণীদের ভাগিয়ে এনে তাদের পতিতালয়ে বিক্রি করে মোটা অংকের অর্থ হাতিয়ে নিয়ে আসছিল। সুদর্শন যুবকেরা উঠতি বয়সের তরুণীদের প্রেমের ফাঁদে ফেলে বিয়ে করার কথা বলে ভাগিয়ে নিয়ে চাঁন মিয়ার হাতে তাদের তুলে দিত। গত ৫ জুন একই কায়দায় শাহজাদপুরের মাদলা গ্রাম থেকে লিটন নামের এক যুবক মানিক খাঁর মেয়ে বুদ্ধি প্রতিবন্ধি ওই তরুণীকে তুলে নিয়ে গিয়ে টাঙ্গাইল পতিতালয়ে বিক্রি করে দেয়। এ ঘটনায় মেয়েটির পিতা গত ৮ জুন প্রথমে শাহজাদপুর থানায় একটি জিডি করে। এর পর টাঙ্গাইলের র‌্যাবের সহযোগীতায় গত ২২ সেপ্টেম্বর ওই পতিতালয় থেকে মেয়েটিকে উদ্ধার করে। এরপর চাঁন মিয়া, পতিতালয়ের সর্দারনীনার্গিস ও লিটন নামের এক যুবককে আসামী করে শাহজাদপুর থানায় একটি অপহরণ ও পতিতালয়ে বিক্রির অভিযোগে মামলা দায়ের করে। প্রায় ২ মাস আতœগোপনে থাকার পর অবশেষে শাহজাদপুর থানা পুলিশ টাঙ্গাইল থেকে চাঁন মিয়াকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়। এ ব্যাপারে এ মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এস আই আবু তালেব বলেন, আসামী চাঁন মিয়া অত্যন্ত ধূর্ত প্রকৃতির ব্যাক্তি। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সে কোন তথ্য প্রদান করছেনা। নানা চালাকির আশ্রয় নিয়ে নিজেকে আড়াল করার চেষ্টা করছে। তিনি আরো বলেন তাকে ৭ দিনের রিমান্ডে নেয়া হবে। বিজ্ঞ আদালত তার এ রিমান্ড মঞ্জুর করলে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদের মাধ্যমে প্রকৃত ঘটনা উদঘাটন ও এর সাথে জড়িত অন্য আসামীদেরও গ্রেফতার করা সম্ভব হবে।

এখানে মন্তব্য করুন

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.