‘বঙ্গবন্ধু বাঙ্গালি জাতির স্বপ্ন পূরণে কবির সৃষ্টিকে প্রেরণা হিসাবে গ্রহণ করেছিলেন’– এমপি স্বপন

শামছুর রহমান শিশির, শাহজাদপুর থেকে : সিরাজগঞ্জ- ৬ (শাহজাদপুর) এর জাতীয় সংসদ সদস্য ও সাবেক শিল্প-উপমন্ত্রী বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব হাসিবুর রহমান স্বপন বলেছেন, ‘বিশ্ব সাহিত্যের উজ্জল নক্ষত্র কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ছিলেন বহুমুখী প্রতিভার অধিকারী। তিনি ছিলেন, শান্তির কবি মানবতার কবি। তাঁর সৃষ্টি বাংলা সাহিত্যেকে বিশ্ব মর্যাদার আসনে অধিষ্ঠিত করেছে। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বাঙ্গালি জাতীর স্বপ্ন পূরণের লক্ষে কবির সৃষ্টিকে প্রেরণা হিসেবে গ্রহণ করেছিলেন। মহান মুক্তিযুদ্ধসহ সকল গণতান্ত্রিক আন্দোলনে কবিগুরুর লেখনি আমাদেরকে উজ্জিবিত করেছে। শুধু তাই নয়, মহান মুক্তিযুদ্ধে কবির লেখা কবিতা ও গান মুক্তিকামী বাঙ্গালিকে শত্রুর বিরুদ্ধে যুদ্ধ করতে সাহস যুগিয়েছেন। তাই বঙ্গবন্ধু কবিগুরুর অমর সৃষ্টি ‘আমার সোনার বাংলা আমি তোমায় ভালোবাসি’ গানটি বাংলাদেশের জাতীয় সংগীত হিসেবে গ্রহণ করেন।’ আজ রোববার বিকেলে শাহজাদপুর রবীন্দ্র কাচারিবাড়ী অডিটোরিয়ামে কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ৭৬ তম প্রয়াণ বার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। কবিগুরুর প্রয়াণ বার্ষিকী উপলক্ষে উপজেলা পরিষদ এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান প্রফেসর আজাদ রহমান এবং রবীন্দ্র গবেষক ও নাট্যকর ড. মাহফুজা হিলালী। উপজেলা নির্বাহী অফিসার আলীমুন রাজীব এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মুস্তাক আহমেদ। এতে অন্যান্যদের মধ্যে আরও বক্তব্য রাখেন, সাবেক অধ্যক্ষ এ,এম আব্দুল আজীজ, রবীন্দ্র গবেষক প্রফেসর নাছিম উদ্দিন মালিথা, সহকারি কমিশনার (ভূমি) মোহাম্মদ হাসিব সরকার, থানার অফিসার ইনচার্জ মো: খাজা গোলাম কিবরিয়া, রংধনু মডেল স্কুলের অধ্যক্ষ শহিদুল ইসলাম শাহিন প্রমুখ। প্রধান অতিথি হাসিবুর রহমান স্বপন এমপি আরও বলেন, ‘বাংলাদেশে কবিগুরুর স্মৃতিবিজড়িত যে কয়েকটি স্থান রয়েছে তার মধ্যে শাহজাদপুর ছিল অন্যতম। রবীন্দ্রনাথ ছিলেন, শাহজাদপুরের মাটি ও মানুষের সাথে একান্ত আপনজন। মহান মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে স্বাধীন সার্বভৌম বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠার মধ্যে দিয়ে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান রবীন্দ্রনাথের স্বপ্নের সোনার বাংলাকে বাস্তবে রূপ দিয়েছেন। অন্যদিকে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা রবীন্দ্র স্মৃতিবিজড়িত শাহজাদপুরে ‘রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয় বাংলাদেশ’ প্রতিষ্ঠা করে শাহজাদপুরসহ সিরাজগঞ্জ জেলাবাসীর দীর্ঘদিনের প্রাণের দাবি পূরণ করেছেন। তিনি বলেন, ‘রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয় বাংলাদেশ’ প্রতিষ্ঠার জন্য শাহজাদপুরবাসী প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার কাছে চিরঋনী ও চিরকৃতজ্ঞ। তিনি বলেন, আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনসহ সকল নির্বাচনে জননেত্রী শেখ হাসিনা কর্তৃক মনোনীত নৌকা প্রতীকের প্রার্থীকে বিপুল ভোটে বিজয়ী করে আমাদের সে ঋন পরিশোধ করতে হবে।’ এমপি স্বপন বলেন, ‘ইতোমধ্যেই মহামান্য রাষ্ট্রপতি অধ্যাপক ড. বিশ্বজিত ঘোষকে ‘রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয় বাংলাদেশে’র উপাচার্য হিসেবে নিয়োগ দিয়েছেন। পাশাপাশি বাংলা একাডেমির সাবেক পরিচালক ড. আব্দুল ওয়াহাবকে ওই বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিষ্ট্রার হিসেবে নিয়োগ দেয়া হয়েছে। তিনি জানান, চলতি শিক্ষাবর্ষ থেকে রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা কার্যক্রম চালু করার সকল প্রস্তুতি প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।’ আলোচনা সভা শেষে সন্ধ্যায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে আবৃত্তি, নৃত্য ও সংগীত পরিবেশন করেন শাহজাদপুর সাংস্কৃতিক ঐক্য পরিষদ, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট ও রংধনু মডেল স্কুলের শিল্পীবৃন্দ। এছাড়া রংধনু মডেল স্কুলের উদ্যোগে চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়।