ফরিদপুরে গৃহবধু বুবলী’র রহস্যজনক মৃত্যু

শাহজাদপুর (সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধিঃ গত শুক্রবার ভোররাতে পাবনা জেলার ফরিদপুর উপজেলার ফরিদপুর ইউনিয়নের বেড় হাউলিয়া গ্রামের আব্দুল মাজেদ সবুজের স্ত্রী ১ সন্তানের জননী আমেনা খাতুন ওরফে বুবলী(২৮)’র রহস্যজনক মৃত্যু ঘটেছে। নিহত গৃহবধুর শ্বশুরবাড়ির লোকেরা তার মৃত্যুর কারণ নিয়ে ভিন্ন বক্তব্য দেয়ায় ওই মৃত্যুকে ঘিরে ধু¤্রজালের রহস্য দানা বেধেঁছে । খবর পেয়ে ফরিদপুর থানা পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাবনা হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে। থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা দায়ের হয়েছে।
জানা গেছে, প্রায় একযুগ আগে সিরাজগঞ্জ জেলার রায়গঞ্জ উপজেলার নলকা ইউপি’র হোড়গাঁতী গ্রামের মোঃ বোরহান উদ্দিন সরকারের মেয়ে আমেনা খাতুন বুবলীর সাথে পার্শ্ববর্তী পাবনা জেলার ফরিদপুর উপজেলার ফরিদপুর ইউনিয়নের বেড় হাউলিয়া গ্রামের আব্দুল খালেকের পুত্র আব্দুল মাজেদ সবুজের সাথে বিয়ে হয়। তাদের আলিফ নামের ৮ বছরের একটি শিশুপুত্র রয়েছে। নিহত বুবলী প্রায় কয়েক বছর ধরে গার্মেন্টস্ শ্রমিক সবুজের সাথে সাভারে বসবাস করে আসছিলো। এদিকে, নিহতের স্বজনেরা অভিযোগে জানিয়েছে,‘ বুবলীর স্বামী সবুজের সাথে রংপুর জেলার পীরগঞ্জ উপজেলার জনৈক অপর গার্মেন্টস্ শ্রমিকের মধ্যে প্রায় এক বছর ধরে পরকীয় চলে আসছিলো। এ নিয়ে স্বামী সবুজ প্রায়ই বুবলীর সাথে অসদাচরণ করতো। ঈদের আগে বুবলী তার শিশুপুত্রসহ স্বামীর সাথে শ্বশুরবাড়ি গিয়েছিলো। শুক্রবার ভোররাতে আমাদের ফোনে জানানো হয় যে বুবলী মারা গেছে। আমরা বুবলীর শরীরে আঘাঁতের চিহ্ন দেখে মনে করছি বুবলীকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে।কেউ বলছে গ্যাসফোম করে বুবলী মারা গেছে,আবার অনেকেই বলছে সে ষ্ট্রোক করে মারা গেছে। তবে অনেকেই আবার এ ঘটনাকে স্বামীর পরকীয়ার বলি হিসাবে আখ্যায়িত করেছে।’ খবর পেয়ে ফরিদপুর থানা পুলিশ নিহতের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তে পাঠায়। এ ব্যাপারে নিহতের স্বামী সবুজের সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করেও তাকে পাওয়া যায় নি। অপরদিকে, মামলার আইও (তদন্তকারী কর্মকর্তা) ফরিদপুর থানার এসআই সাখাওয়াত হোসেন হোসেনকে নিহতের মৃত্যুর প্রাথমিক কারণের ধারণা সম্পর্কে জিজ্ঞাসা করা হলে তিনি এ প্রতিবেদককে জানান,‘প্রাথমিকভাবে কিছুই ধারণা করতে পারছি না। ময়নাতদন্ত রিপোর্ট হাতে পেলে মৃত্যুর প্রকৃত কারণ জানা যাবে।’

0 thoughts on “ফরিদপুরে গৃহবধু বুবলী’র রহস্যজনক মৃত্যু

এখানে মন্তব্য করুন

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.