প্রতিবন্ধিদের সাথে শাহজাদপুরের ইউপি সদস্য সালমার এ কেমন প্রতারনা

সিরাজগঞ্জ শাহজাদপুর উপজেলার ৪ নং রুপবাটি ইউনিয়নের ৪,৫,৬ ওয়ার্ডের সংরক্ষিত মহিলা সদস্য মোছাঃ ছালমা খাতুনের বিরুদ্ধে ৬ নং ওয়ার্ডের প্রতিবন্ধীদের ভাতা করে দেওয়ার কথা বলে ৫ /৬ হাজার করে টাকা আদায়ের এবং ১ বছরের টাকা উত্তোলন করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। সরেজমিনে এলাকা ঘুরে কিছু প্রতিবন্ধীদের বাবা মায়ের সাথে কথা বলে জানা যায় প্রতিবন্ধি কার্ডের টাকার জন্য ব্যাংকে গেলে জানাযায় জ্বাল স্বাক্ষর করে টাকা উত্তলন করা হয়েছে। টাকা না পেয়ে হতাশ হয়ে বাড়ী ফিরতে হয়।

এ বিষয়ে সোনালি ব্যাংক বাঘাবাড়ীঘাট শাখা ব্যবস্থাপক মোঃ মনজুর আলমে সাথে কথা বললে তিনি জানান এ বিষযে তিনি কোন কিছু জানেন না। তবে এক পর্যায়ে জানান তার অবর্তমানে তার ব্যাংক কর্মকর্তা মোঃ রফিকুল ইসলাম দায়িত্বে থাকা অবস্থায় যদি দূর্নীতি হয়ে থাকে তহলে তার বেতনের টাকা থেকে ক্ষতি পূরন দেওয়া হবে।

এ বিষয়ে রুপবাটি ইউপি চেয়ারম্যানের মোঃ রফিকুল সিকদার কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন ভুক্তভোগীদের জিজ্ঞেসার জন্য গ্রাম পুলিশ দিয়ে ডাকা হয়েছে। তাদের সাথে কথা বলে আমি এ বিষয়ে ব্যবস্থা নেব।

এই বিষয়ে শাহজাদপুর উপজেলা সমাজ সেবা অফিসার দেবাশীষ কুমার ঘোষের সাথে কথা বলে জানা যায় ভাতা বই ভুক্তভোগীদের হাতে তুলে দেওয়ার কথা। কিন্তু সে বই মেম্বার মোছাঃ ছালমা খাতুনের হাতে কিভাবে পৌছায় এ বিষয়ে প্রশ্ন করলে তিনি এ অভিযোগ অস্বীকার করেন।

এ বিষয়ে রুপবাটি ইউপির ৪,৫,৬ সংরক্ষিত মহিলা আসনের সদস্য  সাালমা খাতুন যাবতীয় অভিযোগ অস্বীকার করেন।