পাবনায় কোচিং সেন্টার চালানোর অপরাধে শিক্ষককে অর্থদণ্ড

পাবনার বেড়া উপজেলায় করোনাকালে স্বাস্থ্যবিধি লঙ্ঘন ও নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে কোচিং করানোর অপরাধে রবিউল ইসলাম নামের এক শিক্ষককে ছয় হাজার টাকা অর্থদণ্ড দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।

রোববার উপজেলা নির্বাহী অফিসার আসিফ আনাম সিদ্দিকী উপজেলার কাজিরহাট এলাকায় অভিযান চালিয়ে কোচিং করানোর সময়ে তাকে হাতেনাতে আটক করে এ দণ্ডাদেশ দেন।

ভ্রাম্যমাণ আদালত সুত্রে জানা যায়, বেড়া উপজেলার বিভিন্ন কোচিং সেন্টারে করোনাকালে সরকারের নিষেধাজ্ঞা ও স্বাস্থ্যবিধি লঙ্ঘন করেই কয়েকজন শিক্ষক কোচিং সেন্টার চালিয়ে যাচ্ছে। এই নিয়ে কয়েকটি প্রত্রিকায় প্রতিবেদনও প্রকাশ হয়। সংবাদ প্রকাশের পর উপজেলা নির্বাহী অফিসার গত (২৪ জুন) উপজেলার চাকলা, হাটুরিয়া-নাকালিয়ার বিভিন্ন পাড়া মহল্লায় ও কোচিং সেন্টারে অভিযান পরিচালনা করেন।

রোববার সকাল সাড়ে সাতটার দিকে কাজিরহাট বাসষ্ট্যান্ড সংলগ্ন রবিউল ইসলাম নামের এক শিক্ষকের কোচিং সেন্টারে অভিযান চালানো হয়। এসময় স্বাস্থ্যবিধি না মেনে প্রইভেটের নামে কোচিং বাণিজ্য চালানোর সময় তাকে হাতেনাতে আটক করা হয়। পরে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে শিক্ষক রবিউল ইসলামকে ছয় হাজার টাকা অর্থদণ্ড দেন।

এর আগে সকাল সাতটার সময় কাশিনাথপুরের কয়েকটি শিক্ষকের বাসায় অভিযান চালায় ভ্রাম্যমাণ আদালত। ভ্রাম্যমাণ আদালতের উপস্থিতি টের পেয়ে শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা সটকে পড়ে।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার আসিফ আনাম সিদ্দিকী জানান, সরকারি প্রজ্ঞাপন না মেনে শিক্ষার্থীদের কোচিং করানোর অপরাধে শিক্ষক রবিউল ইসলামকে করোনা সংক্রমণ রোধ নিয়ন্ত্রণ নির্মুল ও প্রতিরোধ আইনে ছয় হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। নীতিমালা লঙ্ঘন করে প্রাইভেট-কোচিং পরিচালনাকারীদের বিরুদ্ধে এ অভিযান চলমান থাকবে বলেও তিনি জানান।

 

এখানে মন্তব্য করুন

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.