নৌকায় পিকনিকের নামে অসামাজিক কার্যকলাপঃ আটক ১৭ যুবককে উৎকোচের বিনিময়ে ছেড়ে দেয়ার অভিযোগ, ওসির অস্বীকার

মোঃ মুমীদুজ্জামান জাহানঃ নৌকায় পিকনিকের নামে অসামাজিক কার্যকলাপের দায়ে শাহজাদপুর থানা পুলিশ গতকাল শুক্রবার দুপুরে গঙ্গাপ্রসাদের করতোয়া নদী থেকে ৫ জন প্রমদবালা ও ২৮ জন যুবককে আটক করে। এর মধ্যে  ৫ প্রমদবালা ও ১১ জন যুবককে গত কাল শনিবার সকালে শাহজাদপুর সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে হাজির করা হলে বিচারক তাদের জেল হাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন। পুলিশ বাঁকি ১৭ জনকে উৎকোচের বিনিময়ে ছেড়ে দিয়েছে বলে অভিযোগ  উঠেছে। শাহজাদপুর থানার ওসি খাজা গোলাম কিবরিয়া এ অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন,  যাদের ছেড়ে দেয়া হয়েছে তারা সবাই বয়সে নাবালক। তাই তাদের ছেড়ে দেয়া হয়েছে।
জানা গেছে, গত শুক্রবার  সকালে  শাহজাদপুর ও উল্লাপাড়া  উপজেলা থেকে ২৭/২৮ জন  যুবক গানের শিল্পীর নামে দুটি ইঞ্জিন চালিত নৌকায় করে শাহজাদপুরে পিকনিকে আসে । তারা পিকনিকের নামে অসামাজিক কার্যকলাপ চলাচ্ছে এমন সংবাদের ভিত্তিতে এদিন দুপুর ১২টার দিকে  শাহজাদপুর থানার এসআই গোলজার হোসেন একদল পুলিশ নিয়ে  করতোয়া নদীর গঙ্গাপ্রসাদ নামক স্থানে অভিযান চালিয়ে ওই দুই নৌকা থেকে ৫ জন প্রমদবালা সহ ২৭/২৮ যুবককে অসামাজিক কাজে লিপ্ত অবস্থায় আটক করে থানায় নিয়ে যায়। এদের বাড়ি শাহজাদপুর ও উল্লাপাড়া উপজেলার বিভিন্ন গ্রামে বলে জানা গেছে ।
এদের মধ্যে পুলিশ ৫ জন প্রমদবালা ও ১১ জন যুবককে রেখে  বাঁকিদের ছেড়ে দেয়। পুলিশের হাত থেকে ছাড়া পাওয়া  উল্লাপাড়া উপজেলার  ছোনতলা গ্রামের জহুরুল ইসলামের ছেলে আব্দুল কাদের (২২),  রেজাউল ইসলামের ছেলে রনি (২০),তারাবাড়িয়া গ্রামের আব্দুল কুদ্দুসের ছেলে তারেক (২০) ও আব্দুল  মজিদের ছেলে রাসেল (২৫) জানায়, পিকনিক করার জন্য আমরা নৌকায় করে  শুক্রবার করতোয়া নদী দিয়ে আনন্দ করতে করতে শাহজাদপুরের গঙ্গাপ্রসাদ নামক স্থানে পৌছালে শাহজাদপুর থানা পুলিশ আমাদের আটক করে থানায় নিয়ে যায়। বিষয়টি জানিয়ে  বাড়িতে খবর দেয়া হলে আমাদের অভিভাবকরা এদিন রাতেই শাহজাদপুর থানা পুলিশের সাথে যোগাযোগ করে মোটা অংকের উৎকোচের বিনিময়ে ছাড়িয়ে নেয় । তারা আরো জানায়, পুলিশ তাদের সহ ১৭ জনকে ছেড়ে দিলেও উৎকোচ না দেয়ায় বাঁকিদের থানায় আটক করে রাখে। এ ঘটনায় শাহজাদপুর ও উল্লাপাড়ায় ব্যাপক চাঞ্চল্যর সৃষ্টি হয়েছে। #