নাতীর লাঠির আঘাতে নানীর মৃত্যু, মেয়ে আটক

এক নাতীকে আম দেয়ার ঘটনাকে কেন্দ্র করে বরিশালের গৌরনদীতে অপর এক নাতীর লাঠির আঘাতে নানী জরিনা বেগমের (৬৫) মৃত্যু হয়েছে। সোমবার রাত ৮টার দিকে ওই উপজেলার বড়দুলালী গ্রামে এই ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, উপজেলার বড়দুলালী গ্রামের সাহেব আলী বেপারীর বিধবা স্ত্রী জরিনা বেগমের ৬ কন্যা সন্তান রয়েছে। বিধবা জরিনা তার ছোট মেয়ে লাইজু বেগমকে বিয়ে দিয়ে বাড়িতে ঘরজামাই রাখেন। জরিনার ছোট মেয়ে লাইজু বেগম বাবার বাড়ির গাছের আম পেড়ে সোমবার সকালে খালাতো ভাইয়ের মেয়ে ইয়ামিন খানমকে (১৩) দেয়। বিষয়টি লাইজুর সহোদর বোন ফাতেমা বেগম জানতে পেরে গত সোমবার রাত রাত ৮টার দিকে বাবার বাড়ি গিয়ে তাকে (ফাতেমা) ভাগের আম না দেয়ার কারণ জানতে চায় বোন লাইজুর কাছে। এ নিয়ে ফাতেমা ও তার ছেলে বাচ্চু বেপারীর সাথে লাইজুর বাকবিতন্ডা এবং এক পর্যায়ে সংঘর্ষ হয়। সংঘর্ষ থামাতে গিয়ে নাতী বাচ্চুর লাঠির আঘাতে নানী জরিনা বেগম মাটিতে লুটিয়ে পড়ে ঘটনাস্থলেই মারা যায়। খবর পেয়ে পুলিশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ওই রাতেই ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

গৌরনদী মডেল থানার ওসি গোলাম ছরোয়ার জানান, হত্যাকান্ডের শিকার জরিনার লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে লাইজুকে আটক করা হয়েছে। অন্যান্যদের আটকের চেষ্টা চলছে। এ ঘটনায় মামলা দায়েরসহ আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার কথা বলেন ওসি গোলাম ছরোয়ার।

সূত্রঃ বিডি প্রতিদিন

এখানে মন্তব্য করুন

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.