স্বাস্থ্য

ধূমপান ত্যাগের কিছু সহজ কৌশল

no_smoking

ধূমপান পরিত্যাগ করা কি কঠিন কিছু? ধূমপায়ীরা হয়তো বলবেন, অবশ্যই কঠিন। তাদের অনেকে ধূমপান ত্যাগের চেষ্টা করেছেন, কিন্তু পারেননি। এর কারণ হলো- ধূমপান ত্যাগে সঠিক পদক্ষেপ না নেয়া।
গবেষণায় দেখা গেছে, ধূমপান ত্যাগ করার জন্য যদি নিজ থেকে কিছু কৌশল রপ্ত করা যায়, তাহলে প্রতি ১০ জনের মধ্যে ৯ জনই সফল হন। সেরকম কিছু কৌশল নিচে উল্লেখ করা হলো-
১. ধূমপানের পক্ষ ও বিপক্ষের যুক্তিগুলোর তালিকা তৈরি করুন। তালিকাটি পরিবারের সদস্য ও বন্ধুদের দেখান। অন্যদের যুক্তিগুলোও তালিকাতে যোগ করুন। নিশ্চিতভাবেই বিপক্ষ যুক্তির তালিকা বেশি হবে।
২. ধূমপানের ক্ষতিকর দিকগুলোর লম্বা তালিকা চোখের সামনেই রাখার ব্যবস্থা করুন।
৩. ধূমপানের ক্ষতিকর দিকগুলো নিয়ে আলোচনা করুন এবং ধূমপান না করার ব্যাপারে নিজেকে উৎসাহিত করুন।
৪. ঠিক কোন কোন সময় আপনি ধূমপান করেন এবং তখন আপনি কী করেন, সেটি নোট করুন। পরবর্তী সময়ে ওই কাজ করার সময় আর ধূমপান করবেন না। সিগারেটের বদলে বাদাম, লজেন্স, চুইংগাম খেতে পারেন।
৫. এক মাস পরের একটি দিন ঠিক করুন। নিজেকে কথা দিন, ওই দিনের পর আর কখনও ধূমপান করবেন না।
৬. সিগারেট না কেনার কারণে প্রতিদিন যে টাকা জমবে তা একটি কাচের পাত্রে রাখুন, যাতে টাকাগুলো বাহির থেকে দেখা যায়। এক মাস পর ওই টাকায় প্রিয়জনকে সুন্দর কিছু দেয়ার পরিকল্পনা করুন।
৭. ধূমপানের সময় হলেই অন্যকিছুতে নিজেকে ব্যস্ত করে ফেলুন। গান শুনুন, কম্পিউটারে গেম খেলুন অথবা টবে লাগানো গাছের পরিচর্যা করুন।
৮. বাড়িতে ধূমপান নিষিদ্ধ করুন, এমনকি অতিথিদের বেলায়ও।
৯. নিজের অগ্রগতির প্রশংসা করুন এবং লক্ষ্য সম্পর্কে আরও স্থির হোন। পরিবারের সদস্যদের উৎসাহিত করতে বলুন।
যেকোনো ধরনের সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নে সবচেয়ে বড় বিষয় হলো ইচ্ছাশক্তি। ধূমপানের বিরুদ্ধে নিজের ইচ্ছাশক্তিকে জাগিয়ে তুলুন। আপনার জন্য অপেক্ষা করছে একটি সুস্থ ও সুখী জীবন।

একই বিভাগের সংবাদ

এখানে মন্তব্য করুন

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

এই সংবাদটি দেখুন
Close
Back to top button
x
Close
Close
%d bloggers like this: