ড. মযহারুল ইসলামের ৯২তম জন্মদিন আজ

জহুরুল ইসলাম : দেশবরেণ্য লেখক, শিক্ষাবিদ, গবেষক, আন্তর্জাতিক খ্যাতি সম্পন্ন ফোকলোরবিদ, সংস্কৃতিকর্মী, মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিসি ও আরও বহুগুণে গুণান্নিত প্রফেসর ড. মযহারুল ইসলামের ৯২ তম জন্মদিন পালন হলো শ্রদ্ধা ও ভালবাসায়। দেশবরেণ্য এই মহান ব্যক্তির জন্মদিন উপলক্ষে গতকাল সন্ধ্যায় শাহজাদপুর উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের উদ্যোগে স্মরণ সভা, দোয়া ও মিলাদ মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।

উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি মাহবুবে ওয়াহিদ শেখ কাজলের উদ্যোগে সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর উপজেলার পৌর সদরের মণিরামপুর বাজারে নিরালা ডায়াগনস্টিক সেন্টারের দ্বিতীয় তলায় আয়োজিত এ স্মরণসভা ও দোয়া মাহফিলে উপস্থিত ছিলেন শাহজাদপুর উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাবেক আহ্বায়ক ফারুক সরকার, যুবলীগ নেতা আব্দুল আওয়াল, সাবেক ছাত্রনেতা নেসারুল হক, আহাদ খান রাসেল, মোঃ আব্দুল্লাহ আল নোমানসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক নেতৃবৃন্দ।

উল্লেখ্য দেশবরেণ্য এই মহান লেখক ১৯২৮ সালের ১০ সেপ্টেম্বর সিরাজগঞ্জ জেলার শাহজাদপুর উপজেলার চরনবীপুর গ্রামে জন্ম গ্রহণ করেন।

উপজেলার তালগাছী আবু ইসহাক উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ১৯৪৫ সালে এসএসসি পাশ করেন। সিরাজগঞ্জ কলেজ থেকে ১৯৪৭ সালে কৃতিত্বের সঙ্গে এইচ এস সি পাশ করেন। এরপর রাজশাহী সরকারি কলেজে বাংলা বিষয়ে অনার্স নিয়ে বিএ ক্লাশে ভর্তি হন। ১৯৪৯ সালে অনার্স পরীক্ষায় বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রথম শ্রেণীতে প্রথম স্থান অধিকার করেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ১৯৫০ সালে অনুষ্ঠিত বাংলা এম এ প্রিভিয়াস পরীক্ষায় এবং ১৯৫১ সালে অনুষ্ঠিত এম এ ফাইনাল পরীক্ষায় তিনি প্রথম বিভাগে প্রথম স্থান অধিকার করেন। একই সঙ্গে তিনি গোল্ড মেডেলিষ্ট এবং কালীনারায়ণ স্কলারের গৌরব অর্জন করেন।

১৯৫২ সালের প্রথম দিকে তিনি ঢাকা কলেজে বাংলা বিভাগে লেকচারার পদে যোগদান করেন। ১৯৫৩ সালে মেধার ভিত্তিতে তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে বাংলা বিভাগে সিনিয়র লেকচারার হিসেবে যোগদানের সুযোগ লাভ করেন। ১৯৫৬ সালের গোড়ার দিকে মযহারুল ইসলাম রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগে সিনিয়র লেকচারার পদে যোগদান করেন। ১৯৫৮ সালে ড. মুহম্মদ শহীদুল্লাহর তত্ত্বাবধানে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে তিনি পিএইচডি ডিগ্রি লাভ করেন। ১৯৬৩ সালে মযহারুল ইসলাম তাঁর দ্বিতীয় পিএইচডি ডিগ্রি লাভ করেন আমেকিার ইন্ডিয়ানা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে। ডিগ্রি অর্জনের পর এক বছর তিনি আমেরিকার শিকাগো ইউনিভার্সিটিতে ভিজিটিং প্রফেসর হিসেবে অধ্যাপনা করেন।

১৯৬৪ সালে দেশে ফিরে এসে বাংলা বিভাগের প্রফেসর এবং বিভাগীয় সভাপতির দায়িত্ব গ্রহণ করেন। ১৯৬৫ সালে প্রফেসর ইসলাম কলা অনুষদের ডীন নির্বাচিত হন। ১৯৬৬ সালে তিনি আমেরিকার হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ে ভিজিটিং প্রফেসর পদে আমন্ত্রিত হন। হার্ভার্ডের মেয়াদ শেষ হবার পর তিনি ক্যালিফোর্নিয়া ইউনিভার্সিটি এ্যাট বার্কলীতে কিছুদিন ভিজিটিং প্রফেসর হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৬৬ থেকে ১৯৭১ সাল পর্যন্ত প্রফেসর মযহারুল ইসলাম রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালযের বাংলা বিভাগের অধ্যাপনা এবং সভাপতির দায়িত্ব পালনের পাশপাশি দেশে বিদেশে অসংখ্য সেমিনা সিম্পোজিয়ামে অংশ গ্রহণ করেন।

ডঃ মযহারুল ইসলাম তাঁর বর্ণাঢ্য কর্মজীবনে স্বাধীন বাংলাদেশে বাংলা একাডেমীর প্রথম মহাপরিচালক এবং রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের দায়িত্ব পালন করেন। এছারাও পৃথিবীর বিভিন্ন বিখ্যাত বিশ্ববিদ্যালয়ে ভিজিটিং প্রফেসর হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। রাজনৈতিক সচেতন প্রফেসর মযহারুল ইসলাম মহান ভাষা আন্দোলন ও মুক্তিযুদ্ধে সক্রিয়ভাবে অংশ গ্রহণ করেন।

দেশবরেণ্য এই মহান কবি, শিক্ষাবিদ, পন্ডিত, গবেষক আন্তর্জাতিক খ্যাতি সম্পন্ন ফোকলোরবিদ, সংস্কৃতিকর্মী, মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক প্রফেসর মযহারুল ইসলাম ২০০৩ সালের ১৫ নভেম্বর সকালে ব্যাংককের বামরুনগ্রাদ হাসপাতালে শেষ নি:শ্বাস ত্যাগ করেন।