এ বছর হজ করতে পারবে সর্বোচ্চ ১ হাজার জন

করোনাভাইরাস সংকটের কারণে এবার সীমিত পরিসরে হজ হবে বলে ঘোষণা দেওয়ার পরের দিন লোকসংখ্যাও নির্ধারণ করে দিলো সৌদি আরব কর্তৃপক্ষ। হজ মন্ত্রণালয় থেকে জানানো হয়েছে, এবার সর্বোচ্চ ১ হাজার জন হজ পালনে অনুমতি পাবেন।

মঙ্গলবার সাংবাদিকদেরকে সৌদি আরবের হজ মন্ত্রী মোহাম্মাদ বেনতেন এ তথ্য দেন বলে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা এএফপি।

তিনি বলেন, “সংখ্যাটা হবে ১,০০০ জনের মতো। এর কমও হতে পারে, এর চেয়ে কিছু সংখ্যক কম হতে পারে।”

“এ বছর হাজিদের সংখ্যাটা কোনোভাবে এক হাজারের বেশি হবে না।”-যোগ করেন বাতেন। তবে যাদের হজ পালনের সুযোগ দেওয়া হবে তাদের কিভাবে নির্বাচন করা হবে এ ব্যাপারে কিছু জানাননি তিনি।

এদিকে স্বাস্থ্য মন্ত্রী তৌফিক আল-রাবিয়াহ জানান, জুলাইয়ের শেষ দিকে অনুষ্ঠেয় এবারের হজে যাদের অনুমতি দেওয়া হবে তাদের বয়স ৬৫ বছরের নিচে নির্ধারণ করে দেওয়া হবে।

পবিত্র মক্কায় পৌঁছানোর আগে হাজিদের করোনাভাইরাস টেস্ট করা হবে। হজ শেষে ফিরে যাওয়ার পর তাদের কোয়ারেন্টাইনে রাখা হবে।

প্রতি বছর কুরবানির ঈদের সময় প্রায় সোয়া কোটি মুসলমানদের অংশগ্রহণে সৌদি আরবে পালিত হয় ইসলাম ধর্মের অন্যতম ‘ফরজ’ হজ।

সোমবার হজ ও ওমরাহ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের বরাত দিয়ে বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম জানায়, করোনা মহামারির কারণে এবারের বছর বৃহৎ পরিসরে হজ আয়োজন হবে না।

করোনা সংকটের কারণে মার্চে ওমরাহ হজসহ মক্কা-মদিনায় অনেক ধর্মীয় কার্যক্রমে অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে সৌদি আরব। বার্ষিক হজের পরিকল্পনা না নিয়ে ধৈর্য ধরতে মুসলিম উম্মার প্রতি আহ্বান জানিয়েছিল দেশটির হজ কর্তৃপক্ষ।

করোনা মহামারির কারণে এবার সৌদি আরবে জনসমাগম করে ঈদের জামাতও অনুষ্ঠিত হয়নি। তবে পরিস্থিতি কিছুটা নিয়ন্ত্রণে আসায় এরই মধ্যে মসজিদগুলো খুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার।

মধ্য প্রাচ্যের দেশগুলোর মধ্যে করোনাভাইরাস আক্রান্তে অন্যতম সৌদি আরব। এখন পর্যন্ত মোট সংক্রমিত রোগীর সংখ্যা ১ লাখ ৬১ হাজারের বেশি। প্রাণ গেছে ১ হাজার ৩০৭ জনের।

এবিএন/মমিন/জসিম

এখানে মন্তব্য করুন

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.