আরো এক এমপি পরিবারের ১১ সদস্যসহ করোনা আক্রান্ত

বাঁশখালী উপজেলার সংসদ সদস্য (চট্টগ্রাম ১৬) মোস্তাফিজুর রহমান চৌধুরী পরিবারের ১১ সদস্যসহ কভিড-১৯ (করোনা) আক্রান্ত হয়েছেন। আক্রান্ত অন্যান্যরা হচ্ছেন তাঁর স্ত্রী, তিন মেয়ে, এক নাতনি, এক মেয়ের জামাই, এমপির এপিএস (ব্যক্তিগত একান্ত সহকারী) এ কে এম মোস্তাফিজুর রহমান রাসেল ও বাসার ৩ কাজের মেয়ে। প্রত্যেকে চট্টগ্রাম মহানগরীর নিজ বাসায় আইসোলেশনে রয়েছে।

এমপির এপিএস (ব্যক্তিগত একান্ত সহকারী) এ কে এম মোস্তাফিজুর রহমান রাসেল বলেন, সবার শারীরিক অসুস্থতা দেখা দিলে গত ১ জুন এমপির শহরের বাসায় পরিবারের ১৬ জনের করোনা নমুনা সংগ্রহ করা হয়। বিআইটিআইডির নমুনা পরীক্ষায় পরিবারের মোট ১১ জনের করোনা পজিটিভ আসে। বিষয়টি গত বৃহস্পতিবার জানাজানি হয়। তিনি আরো বলেন, চট্টগ্রাম সিভিল সার্জনের নির্দেশনা অনুসারে এমপি স্যার ও আক্রান্ত সবাই চিকিৎসা চালিয়ে যাচ্ছেন। এমপি স্যারসহ সবাই সুস্থ আছেন।

স্থানীয় প্রশাসন, দলীয় নেতাকর্মী ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, বিশ্বব্যাপী করোনা মহামারি ছড়িয়ে পড়ার খবরের পর থেকে এমপি মোস্তাফিজুর রহমান চৌধুরী একবারের জন্যও বাঁশখালীতে কোনো সরকারি ও বেসরকারি অনুষ্ঠানে আসেননি। এমনকি সরকার গত ২৫ মার্চ সাধারণ ছুটি ঘোষণার পর থেকে তিনি তাঁর ব্যক্তিগত গাড়ির চালকদেরও ছুটি দিয়ে রেখেছিলেন। তিনি ডায়বেটিস রোগে অসুস্থ থাকার কারণে নেতাকর্মীদের অনুরোধে বাধার মুখে তিনি ঈদ উদযাপন করেন চট্টগ্রাম মহানগরীর বাসায়। বাসায়ও সব সময় সামাজিক দূরত্ব মেনে চলতেন। বাঁশখালীতে তাঁর পক্ষে নেতাকর্মীরা করোনায় হতদরিদ্র পরিবারে ত্রাণ বিতরণ করেছিল। চট্টগ্রাম মহানগরীর বাসায় বসে ফোনে সবকিছু নিয়ন্ত্রণ করতেন। তারপরও পরিবারের ১১ সদস্যসহ করোনা আক্রান্ত হওয়ায় নেতাকর্মীরা নেতার সুস্থতায় বাঁশখালীজুড়ে বিভিন্নস্থানে দোয়া ও মোনাজাত করছেন।

এখানে মন্তব্য করুন

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.